Opu Hasnat

আজ ২১ এপ্রিল রবিবার ২০২৪,

ইতিহাসখ্যাত কালজয়ী মহাপুরুষের আন্তর্জাতিক স্মরণসভা অনুষ্ঠিত শিল্প ও সাহিত্য

ইতিহাসখ্যাত কালজয়ী মহাপুরুষের আন্তর্জাতিক স্মরণসভা অনুষ্ঠিত

শুধুমাত্র একটি স্মরণসভা নয়। বৃহত্তর ভারত উপমহাদেশের ইতিহাসখ্যাত সুফি সাধক ও অলিআল্লাহ সম্পাদিত এবং প্রকাশিত ইংরেজি পত্রিকা দ্যা মোহামেডান অবজারভার। অর্থাৎ তিনি প্রথম বাঙালি মুসলমান ইংরেজিতে সংবাদপত্র সম্পাদনা এবং প্রকাশনা করেছেন। যাঁর নাম ভারতীয় স্বাধীনতা সংগ্রামে স্বর্ণাক্ষরে লেখা রয়েছে। তৎকালীন বৃটিশবিরোধী আন্দোলনে যোগ্য সংগঠক, স্পষ্টবাদি ও তেজস্বী বক্তব্যের সাথে রাজপথে এবং একই সাথে কলমে নিজস্ব প্রকাশিত ইংরেজি পত্রিকার মাধ্যমে আন্দোলন করেছেন। এজন্যে তাঁকে কারাবরণ হতে হয়েছে। হারাতে হয়েছে ম্যাজিস্ট্রেটের চাকুরি। তারপরেও থেমে থাকেননি তিনি। তাঁর প্রচন্ড প্রতিবাদের মুখে বৃটিশ সরকার পূণরায় চাকুরিতে বহাল করেন। কিন্তু বৃটিশের গোলামি চাকুরি আর করবেন না বলে ইস্তফা দেন, এ সময় বৃটিশ সরকার খানবাহাদুর উপাধি প্রদান করে তাকে সন্তষ্ট করতে চাইলেন কিন্তু তিনি তা প্রত্যাখ্যান করেন। 

এই ইতিহাসখ্যাত ব্যক্তিত্ব হলেন হযরত ডিপুটি শাহ মুহম্মদ বদিউল আলম (রহ:) তিনি ১৮৫৬ সালে তৎকালীন একমাত্র মুসলিম সাবজজ ও সদর আমিন খানবাহাদুর মাওলানা আনওয়ার আলী খান সাহেবের ঔরসে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতামহ ছিলেন তৎকালীন সরকারী উকিল ও স্বনামধন্য জমিদার জাফর আলী খান। তিনি ১৮৯২ খ্রিস্টাব্দে বহত্তর ভারত উপমহাদেশে দ্যা মোহামেডান অবজারভার নামে ইংরেজি পত্রিকার প্রথম মুসলমান সম্পাদক ও প্রকাশক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে মুসলিম ইতিহাসে এক গৌরবোজ্জ্বল অধ্যায়ের সৃষ্টি করেন। এ কৃতিত্ব গৌরবের প্রদীপ জ্বালিয়েই থেমে থাকেননি। ১৯০৫খ্রিস্টাব্দে ইজ্জত নগরে হাই স্কুল প্রতিষ্ঠা করেন। বহুগ্রন্থ লিখেছেন। তাঁর লেখা গ্রন্থ এখনো আমেরিকা ও ইংল্যান্ডে পড়ানো হয়। তাঁর প্রকাশিত গ্রন্থের মধ্যে উল্লেখযোগ্য কিছু গ্রন্থ সমূহ হলো: 

* The Universal religion of man in the light of Islam and what is man Vol 1 & 2.
* ফতহুল গায়েব
* আদাবে মুরিদ, আদাবে তরিকত ও জাহাঙ্গীরি দর্শন
* আইনায়ে জাহাঙ্গীর
* আজকার ও আশগাল
* আমার পীর
* ওয়াহাবি বিভ্রাট ইত্যাদিসহ আরো অনেক গ্রন্থ সমূহ রয়েছে তাঁর।

বহুভাষাবিদ ইতিহাস-ঐতিহ্য সাহিত্য-সংস্কৃতির বরপুত্র চট্টলার গৌরব দ্যা মোহামেডান অবজারভার পত্রিকা প্রকাশের মাধ্যমে বাঙালি জাগরণ ও ভারতীয় স্বাধীনতা সংগ্রামে নিজের জীবনকে জাতির জন্য উৎসর্গ করে হযরত ডিপুটি শাহ মুহম্মদ বদিউল আলম (রহ:) ১৯৩১ খ্রিস্টাব্দে ১৪ মহররম মাসে ইন্তেকাল করেন।

ইতিহাসের কালজয়ী এ মহাপুরুষের স্মরণে গত ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ খ্রিস্টাব্দে লিটিল ম্যাগাজিন চট্টলানামা’র আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয় আন্তর্জাতিকভাবে তাঁর জীবনকর্ম আলোচনা ও গুণীজন সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠান। দিনব্যাপী চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী বাঁশখালী উপজেলার সাহেব বাড়ি কালীপুর ইজ্জতনগরে সাহিত্য সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের উপদেষ্টা মো. শাহ আলম মৌলুদ, দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক এ সম্মেলনের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশের বিশিষ্ট নারী সাংবাদিক, গবেষক ও রাইটার্স ইন্টারন্যাশনাল সংস্থার গ্লোবাল সেক্রেটারি জেনারেল কবি সৈয়দা রুখসানা জামান শানু। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য প্রদান করেন বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী, প্রাবন্ধিক, বাংলাদেশ ভারত নেপাল ইতিহাস মঞ্চের চেয়ারম্যান লায়ন দুলাল কান্তি বড়ুয়া। আলোচনায় অংশ নেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গ থেকে আগত ডায়মন্ডহারবার নেতড়ার কৃতীসন্তান, শিক্ষাবিদ, ইতিহাসবিদ, বাংলার রেনেসাঁ সম্পাদক আজিজুল হক, শিউরি বিদ্যাসাগর কলেজের আরবি সাহিত্যের অধ্যাপক সৈয়দ বাসির আল-হিলাল, ভারতের শিক্ষারত্ন পুরস্কারপ্রাপ্ত কবি নুরনবী জমাদার, পশ্চিমবঙ্গের আব্বাজানখ্যাত সমাজকর্মী রাধেশ্যাম ঘোষ। বিশেষ অতিথি চট্টগ্রাম ইতিহাস চর্চা কেন্দ্রের সভাপতি সোহেল মো. ফখরুদ-দীন, পশ্চিমবঙ্গ ভারতের বিশিষ্ট কবি শ্রী তারকনাথ দত্ত, মুসলমান ইতিহাস সমিতির মহাসচিব মাস্টার মুহাম্মদ আবুল হোসাইন, মুহাম্মদ মুরিদুল আলম নজর, মুহাম্মদ মনসুর আলম, মুহাম্মদ তরিকুল আলম, মুহাম্মদ শহিদুল আলম, ইনতিসার সাদেকীন অভি, তাসিফুল আলম, প্রবীণ শিক্ষাবিদ অনাথবন্ধু রুদ্র, সঙ্গীতশিল্পী সুকুমার জলদাস, সঙ্গীতশিল্পী শামসুল হায়দার তুষার, তানজিন আহম্মদ, মোহাম্মদ সাব্বির, দেলোয়ার হোসেন মানিক, সাফাত বিন সানাউল্লাহ, কবি সম্মেলনের প্রধান উদ্যোক্তা ও চট্টলানামার সম্পাদক এবং কালজয়ী এ মহাপুরুষের ৫ম প্রজন্ম মোহাম্মদ নাজমুল হক শামীম, কবি ও শিক্ষাবিদ মতিয়ার রহমান, শিক্ষাবিদ ড. প্রনব রঞ্জন চৌধুরী, সমাজসেবি রমজান আলী মোল্লা, কবি পালন দেব রায়, কবি সাংবাদিক নারায়ণ
মজুমদার প্রমুখ ।

পুরো অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় প্রানবন্ত করে তুলেন বহুগ্রন্থ প্রণেতা ও সারা বিশ্বে নন্দিত বাঙালির ইতিহাস ঐতিহ্য ও মানুষ মনীষীর কর্ম নিয়ে গ্রন্থ বাঙালির সমাজ সংস্কৃতি ও মানুষ মনীষীর ইতিহাস রচনাকারী ও সম্পাদনাকারী সোহেল মো. ফখরুদ-দীন প্রতিষ্ঠাতা ও সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ ভারত নেপাল ইতিহাস মঞ্চ।

দেশ বিদেশের শতাধিক কবি সাহিত্যিক, লেখক গবেষকের অংশগ্রহণে মূখরিত হয়ে ওঠে ইজ্জতনগর। তাঁর পবিত্র সমাধির সম্মুখে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশ-ভারতবর্ষের কবি-সাহিত্যিকরা তাঁর জীবনকর্ম আলোচনা সত্যই স্মরণীয় ঘটনা।