Opu Hasnat

আজ ১ মার্চ শুক্রবার ২০২৪,

কামাল বারি’র হেমন্তের কবিতা শিল্প ও সাহিত্য

কামাল বারি’র হেমন্তের কবিতা

একদিন তার চোখে

হেমন্ত-শিশির জমে আছে- তার চোখের বিস্ময়!
চোখে ঠান্ডা রোদ মেখে দূর থেকে শুধু দেখে গেছে-
কথা হয়নি কোনও- ওই বয়ে যায় অন্য নদী;-
নবান্ন শস্যের ঘ্রাণ তার কাছেই শিখেছি আমি...

তার ওই অপরূপ হাসিমুখ মগ্ন করে যায়...
অদ্ভুত নিবিষ্টতার অশেষ রেখে যায়- ঋতুতে
অপার মোহময়তা- সুরেলা রোদ কপালে তার-
অনিবার মুগ্ধতার অবকাশ দিয়েছে আমার...

মত্ত পৃথিবীর এই আলো- এই গুচ্ছ চারুলতা-
নীলে, অয়ি নক্ষত্রেরা যত আনন্দবিভায় জ্বলে 
তারচে’ অধিক লীলা এই গ্রহের বিস্ময়কর
আয়োজন!- জেগে থাকে রক্তে মাংসে সামুদ্র লাবণ্য;

উপকূলে শতরূপা আলোর খেলায় মাতোয়ারা-
প্রাণীর শরীর শস্যে শিষে উপচে থাকে মাটিতে-
জীবনের ঘ্রাণে বুঁদ- চোখ মুদে থাকে কেউ কেউ;
সুগভীর প্রেরণার সুধারস শস্যে ঘাসে জমে;
রং নিয়ে মাটিতে জমে উদ্গত জীবনের সংগীত-
একদিন তার চোখে হেমন্তশস্য রং ছড়িয়েছে...।
....................................

হেমন্তের চোখ

জলে জলে সাঁতরায় বৃক্ষছায়া- আয়নার ছবি;
শুভ্র বালিকার মুখ ভাসে দূরে- রঙিন রোদ্দুরে;
মেঘের শরীরে ফিনফিনে জরিন গরদ শোভা;
খ’সে খ’সে পড়ে কানফুল- কাঁচাঘ্রাণ ভুরভুর;
ঢুলুঢুলু হেমন্তের চোখ- ধানে ধানে ভারাতুর;
চোখের পল্লবে জল- শিশির কণা জ্বলছে সুখে;
ঝিলের জলে শ্যাওলা ভাসান- মৎস্যগন্ধা প্রাণ-
শাপলার বিলে জলখেলা- বিহঙ্গ ডানায় ঢেউ...

আহা, এই মৃদু শীতে- গীতে সংগীতে- উঠুক ভরে
অন্তর! -এই যে আয়ু- নিরন্তর পললভূমির...;
নবান্নের ঘ্রাণে ঘ্রাণে প্রাণ এখানে দারুণ ফোটে...!
................................