Opu Hasnat

আজ ১৪ এপ্রিল রবিবার ২০২৪,

ছাতকে শিক্ষকের শারীরিক আঘাতে ছাত্র হাসপাতালে! সুনামগঞ্জ

ছাতকে শিক্ষকের শারীরিক আঘাতে ছাত্র হাসপাতালে!

সুনামগঞ্জের ছাতকে শিক্ষকের শারীরিক আঘাতে এক স্কুল ছাত্র হাসপাতালে। স্থানীয় সুত্রে জানাযায়, উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের গোয়াল গাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মঙ্গলবার দুপুরে শিক্ষার্থীদের মধ্যে ভেকসিন কার্যক্রম চলছিল। এ সময় চতুর্থ শ্রেনীর ছাত্র মারওয়ান আহমদ (১২) কার্যক্রম স্থলে উঁকিঝুঁকি দেয়। এতে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) শামীমুল আলম উত্তেজিত হয়ে প্রথমে হাতের আঙ্গুল দিয়ে তার মাথায় আঘাত করেন পরে তাকে টেনে হিচড়ে ফ্লরে ফেলে দিলে সে অজ্ঞান হয়েপড়ে। খবর পেয়ে তার অভিভাবক ঘটনাস্থল হতে উদ্ধার করে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে চিকিৎসা দিলে তার জ্ঞান ফিরে আসে।

চিকিৎসকরা জানান, জ্ঞান ফিরলেও তার মাথায় আঘাতের ফলে শরীর দুর্বল হয়ে পড়েছে।মারওয়ানের মা চম্পা আক্তার জানান, আমি বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য হয়ে সম্প্রতি ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম দুর্নীতির অভিযোগ দেয়ায় প্রতিশোধ নিতে আমার ছেলের উপর তিনি এরকম নির্দয়ভাবে আঘাত করেছেন। আমি এর সমুচিত জবাব চাই।

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির অভিভাবক সদস্য সমুজ আলী জানান, ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক শামীমুল আলম ও তার স্ত্রী সহকারী শিক্ষক কানিজ ফাতেমা বিদ্যালয়ে দীর্ঘদিন ধরে অনিয়ম দুর্নীতির সাথে জড়িত থাকলেও উর্দ্বতন কতৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় তারা বিদ্যালয়ে আধিপত্য বিস্তার করে যাচ্ছে। যার ফলে একটার পর একটা অঘটন ঘটিয়ে যাচ্ছে। 

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত শিক্ষক শামীমুল আলম ঘটনা অস্বীকার করে বলেন, ঘটনাটি মিথ্যা বানোয়াট আমাকে বেকায়দায় ফেলতে একটি মহল এসব সাজিয়েছে। মূলত ছাত্রটি ভেকসিন দেয়ায় ও কৃমিনাশক ট্যাবলেট খাওয়ায় দুর্বল হয়ে পড়েছে। মারওয়ান আহমদ স্থানীয় গোয়াল গাও গ্রামের দিনমজুর পাথর শ্রমিক সায়েদ মিয়ার ছেলে।

এই বিভাগের অন্যান্য খবর