Opu Hasnat

আজ ১৩ আগস্ট শনিবার ২০২২,

ব্রেকিং নিউজ

কার্যকর পারিবারিক পরিবেশ ব্যক্তির সবল মানসিক স্বাস্থ্যের সহায়ক স্বাস্থ্যসেবা

কার্যকর পারিবারিক পরিবেশ ব্যক্তির সবল মানসিক স্বাস্থ্যের সহায়ক

পরিবার প্রতিটি মানুষের সবচেয়ে নিরাপদ আশ্রয়স্থল। আর তাই স্বাস্থ্যকর পারিবারিক পরিবেশ একজন ব্যক্তিকে সবল মানসিক স্বাস্থ্যের অধিকারী হতে সহায়তা করে। স্বাস্থ্যকর পারিবারিক পরিবেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ন উপাদান সঠিক পারিবারিক কাঠামো যেখানে সকলের মাঝে প্রয়োজন কার্যকর যোগাযোগের দক্ষতা। মাদকনির্ভরশীলশতা ও মানসিক রোগ কে পারিবারিক রোগও বলা হয়। কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এ সকল সমস্যাগ্রস্থ ব্যক্তির সমস্যার কারণ পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, মাদকনির্ভরশীলতা ও মানসিক সমস্যা হওয়ার পেছনে যে সকল কারণগুলো সহায়ক ভূমিকা রাখে তার মাঝে অন্যতম কারণ হলো অকার্যকর পারিবারিক পরিবেশ। এই বিষয়গুলোকে গুরুত্ব দিয়ে আহ্ছানিয়া মিশন নারী মাদকাসক্তি চিকিৎসা কেন্দ্রে চিকিৎসারত রোগীদের পরিবারের সদস্যদের মানসিক স্বাস্থ্য সহায়তা প্রদান ও  মনোসামাজিক শিক্ষামূলক কর্মসূচি নিয়মিত আয়োজন করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় রবিবার (৩১ জুলাই ২০২২) উক্ত কেন্দ্রে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের পরিবারের সদস্যদের অংশগ্রহনে পারিবারিক মনোসামাজিক শিক্ষামূলক গ্রুপ সেশন আয়োজন  করা  হয়। এবারের গ্রুপ সেশনের আলোচ্য বিষয় ছিলো “পারিবারিক যোগাযোগ ও পারিবারিক কাঠামো’’। 

সেশনের শুরুতে “মাইন্ডফুলনেস এক্সসারইজ” পরিচালনা করেন সাইকোসোশ্যাল কাউন্সেলর  মমতাজ  খাতুন। এরপরে  মূল আলোচ্য বিষয়ে আলোচনা করেন কাউন্সেলর জান্নাতুল ফেরদৌস । এরপরে পারিবারিক যোগাযোগ উন্নয়নে অভিভাবক কিভাবে ভূমিকা রাখতে পারে এই বিষয়ে নিয়ে রোল প্লেলে করা হয়। রোল প্লেতে কাউন্সেলর জান্নাতুল ফেরদৌস, কেন্দ্র ব্যবস্থাপক ফারজানা ফেরদৌস ও কেস ম্যানেজার রোজিনা খাতুন অংশগ্রহন করেন। মুল আলোচনার পরে ডাম স্বাস্থ্য সেক্টরের সিনিয়র সাইকোলজিস্ট রাখি গাঙ্গুলি মুক্ত আলোচনায় অংশগ্রহণকারী পরিবারের বিভিন্ন  প্রশ্নের উত্তর দেন। গ্রুপ সেশন প্রোগ্রামটি পরিচালনা  করেন  সাইকোসোশ্যাল কাউন্সেলর  মমতাজ  খাতুন ও কাউন্সেলর জান্নাতুল ফেরদৌস। এছাড়াও সহযোগীতায়  ছিলেন  কেস ম্যানেজার রোজিনা খাতুন। উক্ত প্রোগ্রামে ১৬ জন রোগীর পরিবার থেকে ২২ জন  সদস্য  অংশগ্রহন করেন। 

উল্লেখ্য,  আহ্ছানিয়া  মিশন নারী মাদকাসক্তি চিকিৎসা কেন্দ্রে  বিজ্ঞানসম্মত ও সমন্বিত চিকিৎসা ব্যবস্থার অধীনে একজন রোগীকে চিকিৎসা প্রদান করা হয় এবং উক্ত কেন্দ্রে রোগীদের চিকিৎসায় অন্যান্য সকল কার্যক্রমের সাথে কাউন্সেলিং ও পারিবারিক মনোসামাজিক শিক্ষামূলক কার্যক্রমকে বিশেষভাবে গুরুত্ব প্রদান করা হয়।