Opu Hasnat

আজ ২৭ জুলাই মঙ্গলবার ২০২১,

সুনামগঞ্জে মন্দির ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম শীর্ষক জাতীয় সম্মেলন সুনামগঞ্জ

সুনামগঞ্জে মন্দির ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম শীর্ষক জাতীয় সম্মেলন

শিক্ষা, ধর্ম সম্প্রীতি মন্দিরভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা প্রকল্পের মূলনীতি এই প্রতিপাদ্য নিয়ে সারাদেশের ন্যায় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির উন্নত বাংলাদেশ বির্নিমাণে মন্দির ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম র্শীর্ষক জাতীয় সম্মেলন ২০২১ সুনামগঞ্জে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে অনলাইন ভার্চ্যুয়ালে মন্দির ভিত্তিক ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম ৫-পর্যায়ে ধর্ম মন্ত্রনায়লের প্রকল্প পরিচালক(অতিরিক্ত সচিব) শ্রী রজ্ঞিত কুমার দাসের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে যুক্ত হন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মোঃ ফরিদুল হক খান এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান খুলনা -৫ আসনের সংসদ সদস্য শ্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ, সংসদ সদস্য শ্রী মনোরজ্ঞন শীল গোপাল, ধর্ম মন্ত্রনালয়ের সচিব নুরুল ইসলাম পিএইচডি, হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ভাইস চেয়ারম্যান শ্রী সুব্রত পাল, হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টেরসচিব ডা. শ্রী দিলীপ কুমার ঘোষ।

এছাড়াও সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে ডিভাইসে সম্মেলনে যুক্ত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) বিজন কুমার সিংহ, পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান (বিপিএম), সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইমরান শাহারিয়ার, পৌরসভার মেয়র নাদের বখত, ডিপিও আব্দুর রহমান, সুনামগঞ্জ সরকারী কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ পরিমল কান্তি দে, উপজেলা মনিটরিং কমিটির সদস্য শিক্ষাবিদ যোগেশ্বর দাস, মশিপশি প্রকল্পের পরিচালক রবীন আচার্য্য (এপিডি), সুনামগঞ্জ জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারন সম্পাদক এড. বিমান কান্তি রায়, শ্রী শ্রী দূর্গাবাড়ি মন্দির কমিটির সাধারন সম্পাদক সুবিমল চক্রবর্তী চন্দন, সুনামগঞ্জ সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি ও মোহনা টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি কুলেন্দু শেখর দাস তালুকদার, মশিগশি সিও যীশু কুমার দাস, মশিগশির এফ এস পুল্লাদ কুমার, অভিভাবক রিনি বিশ্বাস কেন্দ্র শিক্ষক জবা ঘোষ প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের আমলে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এই বাংলদেশে প্রিিতটি ধর্মের মানুষ তাদের সমান অধিকার ভোগ করে ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান নির্বিঘ্নে পালন করে যাচ্ছেন। এই ধারা সমুন্নত রাখতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার প্রতিটি মানুষ এক হয়ে একসাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করে দেশকে বিশ্বে একটি উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশে পরিণত করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। নেতৃবৃন্দরা আরো বলেন এই মন্দির ভিত্তিক হিন্দু ধর্মীয় শিক্ষা কার্যক্রমের প্রকল্পটা চলতি মাসের ৩০ তারিখে শেষ হয়ে যাচ্ছে তাই সরকার প্রধান হিসেবে শেখ হাসিনা হিন্দুদের ধর্মীয় শিক্ষা কার্যক্রমটি পূর্নরায় চালুর উদ্যোগ নিবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।  

 

এই বিভাগের অন্যান্য খবর