Opu Hasnat

আজ ২৩ জুন বুধবার ২০২১,

সৈয়দপুরে সাংসদ আদেলের সান্নিধ্যে চনমনে জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা নীলফামারী

সৈয়দপুরে সাংসদ আদেলের সান্নিধ্যে চনমনে জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা

পর্যায়ক্রমে ২২ নেতাকর্মী দলীয় দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়ানোয় ধ্বসের মুখে পড়েছিল নীলফামারীর সৈয়দপুর জাতীয় পার্টি। দলীয় সাংসদসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দকে দোষারোপ করে দলটির উপজেলা ও পৌর শাখার পরিচিত ওইসব মুখ স্বেচ্ছায় দলীয় দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নেওয়ায় আলোচনার ঝড় ওঠে সৈয়দপুরের সর্বত্র। গণমাধ্যমে চলতে থাকে বিবৃতি। এতে দ্বিধাদ্বন্দ্বে পড়েন তৃণমূলের কর্মী-সমর্থকরা। এমন পরিস্থিতিতে দলকে ভাঙ্গনের হাত থেকে বাঁচাতে মাঠে নামেন নীলফামারী-৪ আসনের দলীয় সাংসদ আলহাজ্ব আহসান আদেলুর রহমান আদেল। ত্যাগী নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে শুরু করেন দল গোছানোর কাজ। উপজেলা, পৌর ও ইউনিয়ন পর্যায়ে সভা-সমাবেশ ও অভ্যন্তরীণ যোগাযোগের মাধ্যমে উজ্জীবিত করে তোলেন দলীয় নেতাকর্মীদের। ভাঙ্গনের মুখে পড়া সৈয়দপুরের জাতীয় পার্টি হয়ে ওঠে চনমনে। গতকাল বৃহস্পতিবার এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এমনটিই দাবি করেন উপজেলা শাখার সদস্য সচিব জিএম কবির মিঠু ও পৌর শাখার আহবায়ক আলহাজ্ব জয়নাল আবেদীন ।

ওই দুই নেতার স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, সম্প্রতি জাতীয় পার্টি ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের কয়েকজন দলে থেকে দলীয় দায়িত্ব হতে অব্যাহতি নিয়েছেন, এটা অত্যন্ত দুঃখজনক। তারা দলে থেকেও দলের ভাবমূর্তি নষ্ট করছেন। তারা সাধারণ নেতাকর্মীদের বিভ্রান্ত করছেন। শাক দিয়ে কখনো মাছ ঢাকা যায় না। দলকে যারা ভালবাসেন তারা স্থানীয় সাংসদ ও সিনিয়র নেতৃবৃন্দের নামে কখনোই মিথ্যা বিবৃতি এবং অপবাদ দিতে পারেন না। 

প্রেস বিজ্ঞপ্তির বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা শাখার সদস্য সচিব জিএম কবির মিঠু বলেন, যারা দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন তারাই গত ২৮ ফেব্রুয়ারির পৌর নির্বাচনে স্থানীয় দলীয় নেতৃবৃন্দ এবং হাইকমান্ডের সাথে পরামর্শ ছাড়াই এককভাবে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়েছিলেন। যা সাংগঠনিক নিয়ম-বহির্ভূত ছিল।

দলের পৌর শাখার আহবায়ক আলহাজ্ব জয়নাল আবেদীন বলেন, দলের কতিপয় অসাংগঠনিক নেতাকর্মী গত দুই বছরে স্থানীয় সাংসদের কাছে সুযোগ-সুবিধা গ্রহণ করেও আজ তারা মাননীয় সাংসদের বিরুদ্ধে কথা বলছে। এটা কোন ভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। তৃণমূলের নেতাকর্মী-সমর্থকরা আসল সত্য জেনে গেছেন। তাই তারা আগের চেয়ে স্বতঃস্ফূর্তভাবে দলীয় কর্মকান্ডে অংশ নিচ্ছেন। আমাদের সাংসদ আহসান আদেলুর রহমান আদেল দলের প্রতিটি কর্মসূচিতে সরাসরি অংশ নেওয়ায় সবার মধ্যে আশার আলো জ্বলে উঠেছে। উপজেলা থেকে শুরু করে তৃণমূল সবাই উৎফুল্ল ও উজ্জীবিত। হাতেগোনা কয়েকজন ব্যক্তি দলীয় দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘটনায় জাতীয় পার্টির কোন ক্ষতি হয়নি বরং সৈয়দপুরে জাতীয় পার্টি এখন সরব ও চনমনে।