Opu Hasnat

আজ ২৩ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার ২০২১,

স্কাউট কনফারেন্স ফর সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট এর সফল সমাপ্তি সংগঠন

স্কাউট কনফারেন্স ফর সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট এর সফল সমাপ্তি

সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্ম শতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে ঢাকা ইয়ুথ ক্যাপিটাল ২০২০ এর কর্মসূচি হিসেবে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়, শিক্ষা মন্ত্রণালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং ইসলামিক কোঅপারেশন ইয়ুথ ফোরাম সহযোগিতায় বাংলাদেশ স্কাউটস এর ব্যবস্থাপনায় ওআইসি সদস্যভুক্ত এবং মুসলিম কমিউনিটির ইয়ুথদের (রোভার স্কাউট) নিয়ে ‘স্কাউটিং ফর বেটার এনভায়রনমেন্ট’  এই থিম নিয়ে  ২৭-৩১ মে ২০২১ পর্যন্ত ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে অনুষ্ঠিত হয়েছে ‘স্কাউট কনফারেন্স ফর সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট’ । কনফারেন্সে ৩৭ টি বিদেশী রাষ্ট্র থেকে ১৫০ জন এবং বাংলাদেশ থেকে নির্বাচিত ১০০ জন  ইয়ুথ (রোভার স্কাউট) অংশগ্রহণ করেছেন।
  
৩১ মে বিকেল সাড়ে ৪ টায় উক্ত কনফারেন্সের সমাপনী অনুষ্ঠান অনলাইন প্লাটফর্মে অনুষ্ঠিত হয়। সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন, এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাকির হোসেন, এমপি, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, এমপি ও বিশ্ব স্কাউট সংস্থার মহাসচিব, Mr. Ahmad Alhendawi. 

অনুষ্ঠানে গেষ্ট অব অনার হিসেবে বক্তব্য রাখেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ আখতার হোসেন, মাদ্রাসা ও কারিগরি বিভাগের সচিব মোঃ আমিনুল ইসলাম খান, এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব গোলাম মোঃ হাসিবুল আলম এবং ইসলামিক কোঅপারেশন ইয়ুথ ফোরাম এর ডিরেক্টর জেনারেল অব ক্যাবিনেট  Mr. Yunus Sonmez.  

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ স্কাউটস এর সভাপতি ও বিশেষ দূত, ক্লাইমেট ভলনারেবল ফোরাম (সিভিএফ) প্রেসিডেন্সী মোঃ আবুল কালাম আজাদ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, জাতীয় কমিশনার (স্পেশাল ইভেন্টস) ও কনফারেন্স সাংগঠনিক কমিটির চেয়ারম্যান মোঃ ফসিউল্লাহ, ভাইস চেয়ারম্যান, মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরী অথরিটি। 

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেন, যুবসমাজ কেবল আজকের স্বপ্নই নয়, আগামী দিনের আকাঙ্খাকেও মূর্ত করে তুলেছে। এটি প্রকৃতপক্ষে একটি আনন্দময় উপলক্ষ এবং সময়োপযোগী  বলতে পারি।  আমাদের পৃথিবীতে কেবল একটি গ্রহ রয়েছে।  আমাদের ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য এই গ্রহটি সংরক্ষণ করা আমাদের দায়িত্ব।  আপনি যুবক, আপনার আঙ্গুলের টিপসে  পুরো বিশ্ব  রয়েছে। তিনি এই গ্রহকে দূষিত না করার জন্য বিশ্বব্যাপী প্রচারনা শুরু করার  এবং ঈশ্বরের প্রদত্ত সম্পদকে  অপব্যবহার না করার আহবান জানান। তিনি আরো বলেন  গ্লোবাল ওয়ার্মিং বন্ধ করতে এবং এই গ্রহ ও এই পৃথিবীকে বাঁচানোর জন্য এখন আমাদের উচ্চস্বরে  স্পষ্ট করে  কথা বলার সময় এসেছে। 

বিশেষ অতিথি প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী বলেন - ‘আমরা বিশ্বাস করি যে পরিবেশ ও টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যে  অন্যান্য দেশের সামনে বাংলাদেশের স্কাউটস সামগ্রিক চিত্র তুলে ধরার চেষ্টা করছে এবং ২.১ মিলিয়ন স্কাউট বাংলাদেশ সরকারকে এসডিজির লক্ষ্য অর্জনে সহায়তা করছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, এমপি বলেন,  ‘যুব সমাজ মানবতার জন্য  পরিবর্তনের সম্ভাবনা রাখে। বিশেষত এসডিজি  যেটি ইউনাইটেড নেশন সমগ্র মানবতার জন্য নির্ধারণ করেছে । যুবসমাজ এই লক্ষ্যগুলি অর্জন  নিশ্চিত করার ক্ষমতা রাখে  । তিনি বিশ্বব্যাপী উষ্ণায়নের শিকারে থাকা দেশগুলিকে সহায়তা করার আহবান জানান।’ 

বিশ্ব স্কাউট সংস্থার মহাসচিব Mr. Ahmad Alhendawi বলেন,  বাংলাদেশ  সরকার এবং আমাদের স্কাউট অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ স্কাউটস  উদার অবস্থানের জন্য এবং সর্বদা মানবতার জন্য চ্যাম্পিয়ন এবং সহানুভূতি এবং সহমর্মিতার জন্যও চ্যাম্পিয়ন। এসডিজিগুলি  এই বিশ্বকে উন্নত করার জন্য আমাদের শেষ সেরা সুযোগ। যদি আমরা এখনই পদক্ষেপ না নিই এটি আরও ১০ বছর পরে খুব দেরী হতে পারে।  আমাদের গ্রহের জন্য টেকসই সম্পর্কের বিকাশ এবং একই সাথে চিন্তাভাবনার সামগ্রিক পদ্ধতি প্রয়োজন।

সভাপতির ভাষণে মোঃ আবুল কালাম আজাদ বলেন, টেকসই উন্নয়ন হ'ল সেই উন্নয়ন যা ভবিষ্যতকে গ্রাস না করে বর্তমানের প্রয়োজনে করা হয়। তিনি আরো বলেন এসডিজি এর সকল কার্যক্রম স্কাউটিং এর সাথে সম্পর্কিত। স্কাউটিং করলে এসডিজি বাস্তবায়ন হবে। এসডিজি ফ্যাশন নয় । এটি উন্নয়নের জন্য একটি কান্না। 

সমাপনী অনুষ্ঠানে কনফারেন্সে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে অভিব্যক্তি জ্ঞাপন করেন, কানাডা থেকে জেশন গ্রীন রিচ । কনফারেন্সে প্রজেক্ট দাখিলকারীদের মধ্যে গেøাবাল উইনার হিসেবে প্রথম স্থান অর্জন করেন মিশরের আহমেদ মাহমুদ আবদেল, লেবাননের ফারেস সামসানি এবং তৃতীয় স্থান অর্জন করেন, বাংলাদেশ থেকে সাবিকুন মুবাশ্বিরা জামান। এছাড়াও প্রজেক্ট মূল্যায়নে আরব অঞ্চল, এশিয়া প্যাসিফিক রিজিওন ও বাংলাদেশ থেকে মোট ০৯ জন অংশগ্রহণকারী  রিজিওনাল অ্যাওয়ার্ড গ্রহণের জন্য মনোনীত হন। 

সমাপনী অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারীবৃন্দের তৈরী কনফারেন্স সুপারিশমালা ঘোষণা পত্র পাঠ করা হয়। এসডিজি বাস্তবায়ন ও জলবায়ুর পরিবর্তন মোকাবেলায় অংশগ্রহণকারীবৃন্দ নিজ নিজ অভিজ্ঞতা শেয়ার করেন। অনুষ্ঠানে  বাংলাদেশের স্কাউট সদস্যদের অংশগ্রহণে ভার্চুয়াল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও পরিবেশন করা হয়। সমাপনীর মাধ্যমে পর্দা নামে ওআইসি রাষ্ট্র ও মুসলিম কমিউনিটির  ইয়ুথদের অংশগ্রহণে  অনুষ্ঠিত স্কাউট কনফারেন্স ফর সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট।  

এই বিভাগের অন্যান্য খবর