Opu Hasnat

আজ ১৭ অক্টোবর বৃহস্পতিবার ২০১৯,

টাঙ্গাইলে আ’লীগ নেতা ফারুক হত্যা মামলার অভিযোগপত্র দাখিল টাঙ্গাইল

টাঙ্গাইলে আ’লীগ নেতা ফারুক হত্যা মামলার অভিযোগপত্র দাখিল

টাঙ্গাইলে আওয়ামী লীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ হত্যা মামলায় সাংসদ আমানুর রহমান খান রানা ও তার তিন ভাই ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সহ-সভাপতি সানিয়াত খান বাপ্পা, টাঙ্গাইল পৌর সভার মেয়র সহিদুর রহমান খান মুক্তি ও ব্যবসায়ী ঐক্যজোটের সভাপতি জাহিদুর রহমান খান কাকনসহ ১৪ জনের নামে অভিযোগপত্র দাখিল করেছে টাঙ্গাইল গোয়েন্দা পুলিশ।

বুধবার রাত সাড়ে নয়টায় টাঙ্গাইল চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে এ অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

টাঙ্গাইল গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা গোলাম মাহফীজুর রহমান জানান, এই হত্যা মামলায় ঘাটাইল-৩ আসনের সাংসদ আমানুর খান রানা ও তার তিন ভাই ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সহ-সভাপতি সানিয়াত খান বাপ্পা, টাঙ্গাইল পৌরসভার মেয়র সহিদুর রহমান খান মুক্তি ও ব্যবসায়ী ঐক্যজোটের সভাপতি জাহিদুর রহমান খান কাকন, তাদের দেহরক্ষী আনিসুর রহমান রাজা, মোহাম্মদ আলী, সাংসদের ঘনিষ্ঠ সহযোগী কবির হোসেন, সমীর, ফরিদ আহমেদ, দারোয়ান বাবু, যুবলীগের তৎকালীন নেতা আলমগীর হোসেন চাঁনে, নাসির উদ্দিন নুরু, ছানোয়ার হোসেন ও সাবেক পৌর কমিশনার মাছুদুর রহমান এর নামে অভিযোগ পত্র দাখিল করা হয়েছে। এর মধ্যে তিন জনকে জনকে স¤প্রতি গ্রেফতার করে জেলহাজতে প্রেরন করা হয়েছে। এরা হচ্ছে আনিসুর রহমান রাজা, মোহাম্মদ আলী ও সমীর ওরফে রগকাটা সমীর।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ১৮ জানুয়ারী টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামীলীগের প্রভাবশালী নেতা মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ দূর্বৃত্তদের হাতে নৃশংস ভাবে খুন হন। ২০১৪ সালের মার্চে ওই মামলায় রাজা নামের এক সন্ত্রাসী পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে রাজা টাঙ্গাইলের প্রভাবশালী খান পরিবারের ৪ ভাইয়ের এ হত্যা মামলায় সংশ্লিষ্টতা থাকার কথা স্বীকার করে। এরপর থেকে আলোচিত খান পরিবারের ৪ ভাই আমানুর রহমান খান রানা এমপি, টাঙ্গাইল পৌর সভার সাবেক মেয়র সহিদুর রহমান খান মুক্তি, টাঙ্গাইল চেম্বার্স এন্ড কমার্স সভাপতি জাহিদুর রহমান খান কাকন ও ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি সানিয়াত খান বাপ্পা পলাতক রয়েছেন।