Opu Hasnat

আজ ২৮ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার ২০২১,

ঈদুল আযহা, ত্যাগের মহিমায় পালিত হয় যেখানে নেত্রকোনা

ঈদুল আযহা, ত্যাগের মহিমায় পালিত হয় যেখানে

‘‘কালো আর ধলো বাহিরে কেবল - ভিতরে সবার সমান রাঙ্গা’’ এই প্রতিপাদ্যে নেত্রকোনার দুর্গাপুরে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে নিম্নআয়ের মানুষদের কোরবানীর গোশত সমহারে বন্টনের মাধ্যমে পালিত হয় ঈদুল আযহা। এবারো তার ব্যতিক্রম হয়নি। প্রতিবছরের ন্যায় এবারো পবিত্র ঈদুল আযহা উৎযাপন করেছেন প্রায় ২শত জন নিম্নআয়ের মানুষের মাঝে কোরবানীর গোশত বন্টনের মাধ্যমে।

দুর্গাপুর পৌরসভার সাধুপাড়া বাইতুল মামুর জামে মসজিদ এর অধীনে স্থানীয়ভাবে যারা কোরবানী করেন, তাদের মধ্য থেকে নিম্নআয়ের মানুষদের জন্য কোরবানির গোশত সংগ্রহ করা হয়। এ থেকে স্থানীয় সেচ্ছাসেবকদের মাধ্যমে ওই সকল নিম্নআয়ের পরিবারের প্রতিটি ঘরে ঘরে গোশত পৌচে দেয়া হয়। শুধু তাই নয়, লোক লজ্জায় কস্ট পাবেন জেনে, কোনো বাড়িতে রাতের আঁধারে গিয়েও গোশত পৌছে দেয়া হয়।
 
এ নিয়ে বৃহস্পতিবার সকালে ওই এলাকার গোশত প্রাপ্তদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ঈদের দিন বিকেল থেকেই সাধুপাড়া এলাকার বাইতুল মামুর জামে মসজিদের আয়োজনে অত্র এলাকায় যারা কোরবানী দিতে পারেন নাই, তাদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে পৌছে দেয়া হয় এই গোশত গুলো। কারো কারো বাড়িতে রাতের আঁধরে এবং পরদিন সকালে পৌছে দেয়া হয় ওই গোশত। সামর্থবান ব্যক্তিগন নিজ নিজ কোরবানী শেষে নিজ দায়িত্বে ওই মসদিদের সামনে গোশত পৌছে দেন। পরে নিম্ন আয়ের মানুষদের তালিকা করে সেচ্ছাসেবকদের মাধ্যমে বাড়ি বাড়ি পৌচ্ছে দেয়া হয়।  

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন নিম্ন আয়ের মানুষ জানান, আগে অনেকেই কোরবানীর গোশত কোরবানী শেষে ৩ ভাগ করে সামর্থহীনদের মাঝে বিলিয়ে দিতো। এখন আর কেউ তা করে না। নামেই কোরবানী দেয়। পরে আর আমাদের কেউ খোজ নেয় না। আমাদের কথা ভেবেই প্রায় ৬ বছর ধরে ওই এলাকার বাইতুল মামুর জামে মসজিদের উদ্দ্যেগে আমরা কোরবানী না দিলেও গোশত পাই বাড়ীতে বসে। ঈদুল আযহা, যেন আমাদের ত্যাগ আর মহিমা শিখিয়ে গেলো।

এ ব্যাপারে উদ্দ্যেগতা ডাঃ মোঃ আমিনুল হক জানান, গরীবদের প্রতি ধনীদের বিশেষ করে কোরবানির ঈদের সময় গোশত বিতরণে মানবিক উদারতার সৃষ্টি করতে হবে। তবেই নিম্নআয়ের মানুষগুলো ঈদের দিন ধনিদের পাশাপাশি ঈদের আনন্দ ভোগ করতে পারবে আর ইসলাম আমাদের সেটাই শিক্ষা দেয়।

প্রতি বছর এ কার্যক্রম বাস্তাবায়ন করতে যারা অংশ নেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদ, ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আকরাম খান, মো. সাইদুল ইসলাম, প্রভাষক মাহবুবুল আলম, মো. আমজাদ হোসেন, আবুল কাশেম, আব্দুল লতিফ তালুকদার প্রমুখ।