Opu Hasnat

আজ ২৩ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার ২০২১,

গোটা জেলায় এখনো চলছে লাঙল-গরুর হাল চাষ কৃষি সংবাদনীলফামারী

গোটা জেলায় এখনো চলছে লাঙল-গরুর হাল চাষ

অত্যাধুনিক প্রযুক্তির যুগেও নীলফামারীর গোটা জেলায় এখনো লাঙল গরু দিয়ে জমি চাষ করা হয়। যদিও এ বিষয়টি অতীত হয়েছে চাষের জন্য ট্রাক্টর এসেছে। তারপরেও অনেকে নিজের জমিতে নিজেই লাঙল গরু হাল দিয়েই নিজেই জমি চাষ করেন। আবার অনেক গেরস্তগণ ট্রাক্টর দিয়ে জমি চাষাবাদ করেন। তারপরেও প্রান্তিক চাষীগণ বাংলার এ অতীত ঐতিহ্যের চিত্র এখনো ধরে রেখেছেন। 

নীলফামারীর গোটা জেলা ঘরে দেখা গেছে বেশ কিছু এলাকায় লাঙল-গরু দিয়ে হালচাষ করে বলে জানিয়েছেন অনেক কৃষক এবঙ এসব চিত্রই চোখে পড়েছে হরদম। তাঁরা বলেন, গরুর হাল দিয়ে নিজের জমি চাষ করেন এবং অন্যেরও জমি চাষ করে জীবিকা নির্বাহ করেন। 

কথা হয় বেশ কয়েকজন কৃষকের সাথে তারা বলেন, এক সময় অন্যের জমিতে হাল চাষ করে পরিবারের ভরণ-পোষন করতেন। পূর্বপুরুষের এই পেশা ছাড়েননি তারা। কেউ কেউ ১৫ বছর, ২০ বছর আবার কেউ কেউ ৩০বছর ধরে এ হাল চাষ করে আসছেন। তারা জানালেন প্রতিদিন প্রায় ৩-৪ বিঘা অন্যের জমি হাল চাষ করেন। এতে ভালোয় আয় হয়। আবার অনেকে জানালেন উঁচু-নিচু জমিতে ট্রাক্টর চালানো কষ্টসাধ্য হয়ে দাঁড়ায়। এ জমিগুলো চাষ কখনো পাওয়ার ট্রলি দিয়ে সম্ভব হয় না। তাই এসব জমি চাষে এখনো লাঙলের হাল ব্যবহার করা হয়। প্রতি বিঘা জমি চাষে খরচ হয় ৪০০ টাকা। আবার অনেকে জানালেন কৃষকের সঙ্গী লাঙল, জোয়াল ও মই এসব থেকে চির বিশ্রামে নিতে চাই না। 

তারা আরো বলেন, তাছাড়া বাংলার অতীত ঐতিহ্য ধরে রাখতেই তারা বাপ-দাদার এ পেশা এখনো ছাড়েননি।