Opu Hasnat

আজ ২৭ ফেব্রুয়ারী শনিবার ২০২১,

বালুবাহী ট্রাক চলায় বেহাল অবস্থায় পড়েছে সড়ক ফরিদপুর

বালুবাহী ট্রাক চলায় বেহাল অবস্থায় পড়েছে সড়ক

বালুবাহী ভারী ট্রাক চলাচল করার কারণে ফরিদপুরের সদর উপজেলার আলিয়াবাদ ইউনিয়নের সাইনবোর্ড, খুশির বাজার ও গাদাধর ডাঙ্গী এলাকার সড়ক বেহাল হয়ে পড়েছে। সড়কের কোনো কোনো অংশ উঠে গেছে যে রাস্তাটি খানাখন্দে ভরে গেছে। সামনের বর্ষা মৌসুমে এই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত ব্যবস্থা নাজুক হয়ে পড়বে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। 

রাস্তা বেহাল ও দিনভর ট্রাক চলাচলের কারণে রিকশা, ভ্যান বা অটোরিকশাসহ ছোট কোনো যানই সড়ক দিয়ে চলাচল করতে পারছে না ঠিকমত। এলাকাবাসী ওই সড়ক দিয়ে বালুবাহী ট্রাক চলাচল বন্ধের দাবি জানিয়েছেন। 

পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) ফরিদপুর কার্যালয় থেকে জানা গেছে, ফরিদপুর পদ্মা নদীর নাব্যতা সংকট কাটাতে এমপি ডাঙ্গী এলাকার ১০ কিলোমিটার নদীতে ড্রেজিং করা হচ্ছে। সেই ড্রেজিংকৃত বালু নদী থেকে বালুবাহী জাহাজে করে নিয়ে এসে রাখা হচ্ছে গদাধর ডাংগী এলাকায়। এখান থেকে ইয়াকুব খালাসী, মোঃ চুন্ন বিশ্বাস সহ আরো কয়েক বালু ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন জায়গায় বালু বিক্রি করছেন। তারা নিয়মনীতি না মেনে অগনিত ট্রাক দিয়ে বালু বেচা কেনা শুরু করেছেন। আর এই কারনে রাস্তার বেহাল দশা বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।   

সরেজমিন পরিদর্শন ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বড় ট্রাকে করে বালু সড়ক দিয়ে আশপাশের বিভিন্ন এলাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। এর পর থেকে সড়কটি বেহাল হতে শুরু করে। পাকা রাস্তার বিটুমিন উঠে গেছে। সৃষ্টি হয়েছে খানাখন্দের। গদাধর ডাঙ্গী থেকে খুশির বাজার পর্যন্ত কয়েক কিলোমিটার পাকা রাস্তা এখন ধংসের মুখে পড়েছে। এলাকাবাসী এই সড়ক দিয়ে বালুর ট্রাক চলাচল বন্ধের দাবি জানিয়েছেন। 

ওই এলাকার বাসিন্দা শেখ কামাল বলেন, কদিন আগে এই রাস্তায় আমার ভাতিজাকে ট্রাক চাপা দেয়। এখন সে একটি চোখে দেখতে পারছে না। 

রশিদ বিশ্বাস নামে একজন জানান, কদিন আগে রাতে বালুর ট্রাক চাপা দিলে একজনের মৃত্যু হয়। আজ তার মিলাদ হচ্ছে। 

সোহবান শেখ জানান, প্রতিদিন শত শত ট্রাকের কারনে এই রাস্তা দিয়ে চলাচলে প্রচন্ড সমস্যা হচ্ছে। আমরা বালুর ব্যবসায়ীদের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছি। এ যেন দেখার কেউ নেই। 

খুশির বাজারের রফিক ষ্টোরের মালিক রফিক বলেন, বালুর ট্রাক নিয়ন্ত্রন হারিয়ে আমার দোকানে গিয়ে পড়ে এতে দোকানের অনেক ক্ষতি হয়। আমার কোন কথা সেদিন ট্রাকের লোকজন শুনে নাই। তিনি বলেন এই রাস্তাটি ছোট এলাকার বাসিন্দাদের চলাচলের জন্য করা হয়েছিল। কিন্তু বালু ব্যবসায়ীরা অগনিত ট্রাক পরিবহন করায় রাস্তাটি নষ্ট হয়ে গেছে। পাশাপাশি কয়েকটি গ্রামের মানুষের ঘরবাড়িও হুমকির মুখে পড়েছে। 

ফরিদপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সুলতান মাহমুদ বলেন, ফরিদপুর পদ্মা নদীর নাব্যতা সংকট কাটাতে এমপি ডাঙ্গী এলাকার ১০ কিলোমিটার নদীতে ড্রেজিং করা হচ্ছে। আর এই ডেজ্রিংকৃত বালু উত্তোলন করার পর নিরাপদ দুরত্ব নিয়ে রাখার নিয়ম। সেকারনে বালু প্রশাসনের মাধ্যমে তা ইজারা দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন এতে সরকার বিপুল পরিমান রাজস্ব পাচ্ছে। তবে বালু ব্যবসায়ীদের উচিত হবে নিয়ম মেনে ছোট ছোট ট্রাকে করে বালু পরিবহন করা। একই সাথে সেটা অবশ্যই অল্প পরিমান হওয়া উচিত নইলে সড়ক গুলো নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তিনি বলেন বিষয়টি নিয়ে এর সাথে জরিত সংশ্লিষ্ট কৃর্তপক্ষ এর সাথে আমি কথা বলবো।

এই বিভাগের অন্যান্য খবর