Opu Hasnat

আজ ১৮ জানুয়ারী সোমবার ২০২১,

পাইকগাছায় আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ৬ সদস্য আটক খুলনা

পাইকগাছায় আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ৬ সদস্য আটক

পাইকগাছায় আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ৬ সদস্যকে পুলিশ বিভিন্ন জেলা থেকে আটক করেছে। এ ব্যাপারে মঙ্গলবার দুপুরে ওসি এজাজ শফী, তার কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলনে আটক ডাকাতদের ব্যাপারে লিখিত বক্তব্য প্রদান করেন। 

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ১৪/১২/২০২০ তারিখ রাত দেড়টায় উপজেলার গদাইপুর ইউনিয়নের কার্তিকের মোড় নামক স্থানে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা কিংফিশার পরিবহন থামিয়ে যাত্রীদের জিম্মি করে। এ সময় ডাকাতরা অস্ত্রের মুখে যাত্রীদের কাছ থেকে নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার সহ সাত লক্ষ টাকার মালামাল লুট করে। 

এ ব্যাপারে পরিবহনের সুপারভাইজার আছাফুর রহমান বাদী হয় পাইকগাছা থানায় ১৫ ডিসেম্বর  ৪জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করে থানায় মামলা করে, যার নং- ১১, তারিখ- ১৫/১২/২০২০ইং। ধারা- ৩৯৪, প্যানেল কোড- ১৮৬০। তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা অনিষ মন্ডল অন্যান্য অফিসারদের সাথে নিয়ে সোমবার উপজেলা গোপালপুর গ্রামের মিজানুর গাজীর ছেলে সাইদুল গাজী (২১), রাড়ুলী গ্রামের মৃত হাকিম গাজীর ছেলে ইমরান গাজী (২১) কে মাদারীপুর সদর থানার একটি ইট ভাটা থেকে আটক করে। তাদের দেয়া তথ্যানুযায়ী থানা পুলিশের বিশেষ টিম একই দিন বিকেলে বিভিন্ন সময় রাড়ুলীর মকবুল গাজীর ছেলে বাপ্পি গাজী (২১) কে ষষ্ঠি তলা বাজার, গোপালপুর গ্রামের মৃত আকছেদ গাজীর ছেলে মেহেদী হাসান (২১) কে পিচের মাথা ও গদাইপুর গ্রামের মৃত তাছের মোড়লের ছেলে আল-আমিন (৩৫) কে পাইকগাছা বাজার থেকে আটক করে এবং ফতেপুর গ্রামের খলিল গাজীর ছেলে তাকবির হোসেন (২৩) কে থানার পার্শে ওয়াপদার রাস্তা থেকে আটক করে। ধৃত আসামী আল-আমিনের দেয়া তথ্য অনুযায়ী গদাইপুর ইউপি চেয়ারম্যান গাজী জুনায়েদুর রহমান, ইউপি সদস্য শেখ জাকির হোসেন লিটন ও জবেদ আলী গাজীকে নিয়ে অস্ত্র উদ্ধারে গেলেও তার আগেই অস্ত্রগুলো সরিয়ে ফেলা হয়েছে বলে ওসি এজাজ শফী জানান। 

তিনি সাংবাদিক সম্মেলনে আরো বলেন, ধৃত ডাকাত দলের বিরুদ্ধে পাইকগাছা থানাসহ বিভিন্ন থানায় হত্যা, বিস্ফোরক, অস্ত্র, চুরি ও দস্যুতার মামলা রয়েছে। এ ব্যাপারে ধৃত আসামী আল-আমিনের কাছে এ প্রতিনিধি ওসি এজাজ শফী’র সামনে জানতে চাইলে সে জানায়, বাস, ট্রাক ডাকাতি, চুরি করেছি। তার একান্ত সহযোগী সাইদুল ইসলাম অন্যান্য আসামীদের একত্রিত করে এ সব ডাকাতি সংগঠিত করত বলে জানায়। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা অনিষ মন্ডল জানায়, আসামীদের ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।