Opu Hasnat

আজ ১ ডিসেম্বর মঙ্গলবার ২০২০,

জহির উদ্দিন খসরু কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ায় বিভিন্ন মহলের শুভেচ্ছা রাজনীতি

জহির উদ্দিন খসরু কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ায় বিভিন্ন মহলের শুভেচ্ছা

কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হলেন মুলাদীর কৃতি সন্তান মোঃ জহির উদ্দিন খসরু। গত শনিবার (১৪ নভেম্বর) এ সংবাদ তার জন্মস্থান মুলাদীতে ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের মাঝে আনন্দ উল্লাস দেখা গেছে। শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন বার্তায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ছেঁয়ে গেছে।

বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ২০১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে শনিবার (১৪ নভেম্বর)। গত বছর ২৩ নভেম্বর জমকালো কংগ্রেসের মধ্যে দিয়ে যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি গঠনের প্রায় এক বছর পর শনিবার পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হলো। ধানমন্ডীস্হ আওয়ামীলীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে এদিন বিকেলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের পূর্ণাঙ্গ কমিটির তালিকা যুবলীগের সভাপতি শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিলের কাছে হস্তান্তর করেন।
 
এ কমিটিতে মুলাদীর কৃতি সন্তান মোঃ জহির উদ্দিন খসরু সাংগঠনিক সম্পাদক পদে মনোনিত হন।
 
উল্লেখ্য এর আগে তিনি সহ-সম্পাদক হিসেবে সুনামের সাথে দলীয় দায়িত্ব অত্যন্ত দক্ষতার সাথে পালন করায় বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের একজন দক্ষ নেতা হিসেবে তিনি এ পদে স্থান পান।

মোঃ জহির উদ্দিন খসরু বরিশাল জেলার মুলাদী উপজেলার বাটামারা ইউনিয়নের সেলিমপুর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা মরহুম আব্দুল মালক মাষ্টার এর সন্তান। স্কুল জীবন থেকেই ছাত্র রাজনীতি শুরু করেন জহির উদ্দিন খসরু। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সদস্য ও নির্বাহী কমিটির সহ-সম্পাদক ছিলেন।

বহুমূখী প্রতিভার অধিকারী জহির উদ্দিন খসরু অত্যন্ত বিণয়ী ও পরোপকারী একজন সফল রাজনীতিবীদ। 

মুলাদীর কৃতি সন্তান জহির উদ্দিন খসরু রাজনীতির পাশাপাশি অসহায়দের সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে এবং অসহায় মানুষের কল্যাণে কাজ করার জন্য তিনি একাধিক সামাজিক সংগঠন প্রতিষ্ঠা করেছেন

এক প্রশ্নের জবাবে জহির উদ্দিন খসরু জানান, কোন কিছু পাওয়ার জন্য রাজনীতি করিনা, আমার পরিবারের সবাই আওয়ামী রাজনীতির সাথে যুক্ত থেকে জনসেবা করে যাচ্ছেন। আমরা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক আদর্শে বিশ্বাসী।

দেশের মানুষের কল্যানে তথা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে রাজনীতি করছি। ইতিপূর্বেও দলের জন্য নিবেদিত ছিলাম, আগামীতেও থাকবো। যুবলীগের যে মহান দায়িত্ব আমাকে দিয়েছেন সে দায়িত্ব পালনের পাহাড়াদার হিসেবে সততা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করবো। 

তিনি কেন্দ্রীয় যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারন সম্পাদক সহ সকল নেতাকর্মীদের এবং মুলাদী উপজেলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ছাত্রলীগ সহ সকল অঙ্গ-সংগঠনের নেতাকর্মীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

তার আওয়ামী যুবলীগের সাংগঠনিক নির্বাচিত হওয়ায় তাকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন- মুলাদী উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সভাপতি আব্দুল বারী, সাধারণ সম্পাদক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব তরিকুল হাসান খান মিঠু, মুলাদীর পৌর মেয়র শফিকুজ্জামান রুবেল, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান কাজী মাইনুল হাসান সবুজ, মুলাদী উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের আহব্বায়ক মনির মাস্টার, উপজেলা আওয়ামী সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি অহিদ খান, সাধারণ সম্পাদক তরিকুল ইসলাম হিরন, নাজিরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু হাসানাত জাপান, চরকালেখান ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা মহসিন খান, সফিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আবু মুসা হিমু মুন্সী, বাটামারা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাজাহান মাষ্ঠার, সাধারন সম্পাদক সালাউদ্দিন অশ্রু, বাটামারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম সিকদার, বাটামারা ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক কামাল হোসেন, যুগ্ম আহবায়ক হালিম হাওলাদার, সহ উপজেলার আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মীরা।

অ্যালামনাই এসোসিয়েশন অব ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার যুগ্ম সম্পাদক মো. সিরাজুল ইসলাম তার অভিনন্দন বার্তায় বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ লালন করে অতিতের মতো আগামীতেও নিজের ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে জনসেবায় স্বতন্ত্র স্বাক্ষর রাখবেন বলে আমার বিশ্বাস।