Opu Hasnat

আজ ২৮ অক্টোবর বুধবার ২০২০,

তরুণ প্রজন্মই পারে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে : খাদ্যমন্ত্রী জাতীয়

তরুণ প্রজন্মই পারে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে : খাদ্যমন্ত্রী

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, নিরাপদ খাদ্যের অধিকার জনগণের সাংবিধানিক অধিকার। পুষ্টিসম্মত নিরাপদ খাদ্যের নিশ্চয়তা জনগণকে দিতে হবে, আর এই কাজটিকে বাস্তবে রূপ দেবার জন্যই আপনারা নিয়োগ লাভ করেছেন। তিনি বলেন, খাবার ছাড়া কারো এক দিনও চলে না। কোন জাতি যদি নিরাপদ খাদ্য না পায় তবে সে জাতি উন্নতি লাভ করতে পারে না। 

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১ টায় বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের নবীন কর্মকর্তাদের বিভাগীয় বুনিয়াদি প্রশিক্ষণের সমাপনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।
 
নবীন কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, আপনারা মেধাবী ছাত্র বলেই বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ লাভ করেছেন। আপনারা তরুণ প্রজন্মই পারেন দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে। দেশকে সেবা দেবার আপনাদের অনেক সময় এবং সুযোগ আছে। এই প্রশিক্ষণের মাধ্যমে লব্ধ জ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে আপনাদের যে জেলায় পদায়িত করা হবে সে জেলাকে খাদ্যে ভেজাল মুক্ত করে নিরাপদ খাদ্যের জেলা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে। সেই লক্ষ্যে নিজ পদায়িত জেলায় শুরু থেকেই কাজ করে একটা দৃষ্টান্ত স্থাপন করার সুযোগ আপনাদের সামনে রয়েছে। এভাবে দেশের প্রতিটি জেলায় নিরাপদ খাদ্যের নিশ্চয়তা বিধান আপনারা করতে পারেন এবং এটা আপনাদের দায়িত্ব।

আপনাদের কাজের সুবিধার্থে ইতোমধ্যেই দেশের আটটি বিভাগে আটটি আধুনিক ল্যাবরেটরী তৈরীর কাজ শুরু হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী। তিনি আরো বলেন, একজন ডাক্তারের ভুলে একজন রোগী মারা যেতে পারে কিন্তু আপনারা যারা বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ কর্মকর্তা আপনারা যদি ভুল করেন তাহলে আপনাদের একটি ভুলে খাদ্য অনিরাপদ থাকলে জেলার লক্ষ লক্ষ মানুষের জীবন মৃত্যু ঝুঁকিতে পড়তে পারে। তাই কোন লোভের বশবর্তী না হয়ে দেশ এবং দেশের মানুষকে ভালোবেসে মানবতার সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করার আহ্বান জানান তিনি। মন্ত্রী  আরো বলেন, যদি দেশকে ভালোবাসেন, দেশকে কিছু দিতে চান তাহলে আপনারা আপনাদের কাঙ্খিত লক্ষ্য অর্জন করতে পারবেন।

বিয়ামের মহাপরিচালক মো: মিজানুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খাদ্য সচিব ডক্টর মোছাম্মৎ নাজমানারা খানুম। অনুষ্ঠান শেষে খাদ্যমন্ত্রী প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে সনদপত্র বিতরণ করেন।