Opu Hasnat

আজ ৩০ অক্টোবর শুক্রবার ২০২০,

সিংগাইরে আবারো চেতনানাশক ওষুধ খাইয়ে এক পরিবারের ৪ জনকে অচেতন মানিকগঞ্জ

সিংগাইরে আবারো চেতনানাশক ওষুধ খাইয়ে এক পরিবারের ৪ জনকে অচেতন

মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার সায়েস্তা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান  ইঞ্জি. মোজাম্মেল হোসেন খানের খাবারের সাথে পবিরারে চেতনানাশক ওষুধ খাইয়ে তার ছোট বোনের মৃত্যু ও জামির্ত্তা ইউনিয়নের আলীনগর গ্রামের প্রতিবেশী  দু‘পরিবারের ১৩ সদস্যকে অজ্ঞান করে নগদ ২ লাখ টাকা লুটে নেয়ার রেশ না কাটতেই আবারো এক পরিবারকে অজ্ঞান করা হয়েছে।  শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) উপজেলার চান্দহর ইউনিয়নের ওয়াইজনগর গ্রামে দুপুরের খাবার খেয়ে একই পরিবারের ৪ সদস্য অচেতন হয়ে পড়েন।

অজ্ঞান হওয়া সদস্যরা হচ্ছেন-ওই গ্রামের মৃত মোঃ ইসমাইল হোসেনের পুত্র মোঃ মামুনুর রশিদ (৫৫), তার স্ত্রী মাসুমা আক্তার (৪০), কন্যা মনিরা (১৫) ও পুত্র আব্দুল্লাহ (৭)। এরা সকলেই সিংগাইর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

জানা গেছে, ওই পরিবারের সকল সদস্য এক সাথে দুপুরের খাবার খান। গৃহকর্তার ছেলে আব্দুল্লাহ খাবারের পর সহপাঠিদের সাথে বাড়ির অদূরে খেলার এক পর্যায়ে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। প্রতিবেশিরা তাকে বাড়িতে নিয়ে গেলে ওই বাড়ির অন্যদেরকেও অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখতে পান। এ সময় স্থানীয় বাসিন্দারা সবাইকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তাদের সকলেরই জ্ঞান ফিরেছে। তবে ভুক্তভোগী পরিবারের  পক্ষ থেকে এখানো পর্যন্ত থানায় কোন অভিযোগ করা হয়নি। 

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন গৃহকর্তার মেয়ে মনিরা বলেন, রান্না ঘরের মসলাগুলো এলোমেলো ছিল। হয়তো  ওই মসলাতে কিছু মেশানো হয়ে থাকতে পারে ।

সিংগাইর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত ডা. অমিত কুমার তরফদার বলেন, ভর্তির সময় তারা সকলেই ঘুমাছন্ন ছিলেন। এখন সম্পূর্ন সুস্থ আছেন। তবে পরিক্ষা ছাড়া কিছুই বলা যাচ্ছে না। 

এ ব্যাপারে সিংগাইর থানার অন্তর্গত শান্তিপুর-বাঘুলী তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মোঃ লুৎফর রহমান বলেন, কেউ এ ধরণের অভিযোগ নিয়ে আসেনি। আপনার কাছে থেকেই শুনলাম।