Opu Hasnat

আজ ৩০ অক্টোবর শুক্রবার ২০২০,

ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল খাবে ২৩ হাজার শিশু

মাটিরাঙ্গায় জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন অবহিতকরণ সভা খাগড়াছড়ি

মাটিরাঙ্গায় জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন অবহিতকরণ সভা

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার মাটিরাঙ্গা উপজেলায় জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন ২০২০ অবহিতকরণ ও পরিকল্পনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টার দিকে মাটিরাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সম্মেলন কক্ষে মাটিরাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: মো: খায়রুল আলমের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) মিজ ফারজানা আক্তার ববি। 

আগামী ৪ অক্টোবর থেকে ১৭ অক্টোবর পর্যন্ত মাটিরাঙ্গা উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন ১টি পৌরসভাতে  জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন উদযাপিত হবে। 

সভাপতির বক্তব্যে মাটিরাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: খায়রুল আলম বলেন, মাটিরাঙ্গা উপজেলায় এবারে প্রায় ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী ২৫৫০জন শিশুকে ১টি নীল রঙের ভিটামিন এ ক্যাপসুল এবং ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী শিশুকে ১টি লাল রঙের ভিটামিন এ ক্যাপসুল ২০,২৫৮জনসহ মোট উপজেলায় প্রায় ২৩হাজার শিশুকে ভিটামিন এ খাওয়ানো  হবে। শিশুর বয়স ৬মাস পূর্ণ হলে মায়ের দুধের পাশাপাশি পরিমাণ মত ঘরে তৈরী সুষম খাবার খাওয়ানোর পরামর্শ দেন তিনি।

মাটিরাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: মো: খায়রুল আলম আরো জানান, আগামী ৪-১৭ অক্টোবর পর্যন্ত পক্ষকালব্যাপী জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইনে ২৩ হাজার শিশুকে খাওয়ানো হবে নীল ও লাল রঙ্গের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল। মাটিরাঙ্গার একটি পৌরসভা ও সাতটি ইউনিয়নের একটি স্থায়ী ও ১৯২টি অস্থায়ী কেন্দ্রের মাধ্যমে এ ক্যাম্পেইন বাস্তবায়ন করা হবে। জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন ২০২০উপলক্ষ্যে সাংবাদিকদের অবহিতকরণ সভায় এ সব তথ্য জানান তিনি। 

তিনি আরো বলেন, স্বাস্থ্য ঝুঁকি কমাতে শিশুকে ভিটামিন খাওয়ানোর সময়ে স্বাস্থ্যকর্মীকে অবশ্যই মেডিকেল মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। কেন্দ্রে অবস্থানকালে স্বাস্থ্যকর্মী ও স্বেচ্ছাসেবীগণ ঘন ঘন সাবান ও পানি দিয়ে ২০সেকেন্ড ধরে হাত ধুয়ে নেবে। সংক্রমণের ভয় থাকলে কোন অভিভাবক স্বাস্থ্যকর্মীর নির্দেশনা মেনে নিজ হাতেই কেন্দ্রে বসে তার শিশুকে ভিটামিন খাওয়াতে পারবেন বলেও উল্লেখ করেন তিনি। 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাটিরাঙ্গা উপজেলা সহকারি কমিশনার ভূমি ফারজানা আক্তার ববি বলেন, স্বাস্থ্য বিধি মেনে সামাজিক দূরুত্ব বজায় রেখে ৬ মাস থেকে ৫৯ মাস বয়সের সকল শিশুকে ভিটামিন এ খাওয়াতে হবে। স্বাস্থ্য ঝুঁকি কমাতে শিশুকে ভিটামিন খাওয়ানোর সময়ে স্বাস্থ্যকর্মীকে অবশ্যই মেডিকেল মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। কেন্দ্রে অবস্থানকালে স্বাস্থ্যকর্মী ও স্বেচ্ছাসেবীগণ ঘন সাবান ও পানি দিয়ে  হাত ধুয়ে শিশুদের ভিটামিন এ খাওয়ানোর পরার্মশ দেন।

মাটিরাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা: শরীফুল ইসলাম‘র সঞ্চালনায় এডভোকেসি ও কর্মপরিকল্পনা সভায় মাটিরাঙ্গা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো: শাহনুর আলম, মাটিরাঙ্গা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো: মনিরুজ্জামান. মাটিরাঙ্গা উপজেলা সহকারী পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা রানু চাকমা, মাটিরাঙ্গা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা: আনোয়ার পাশা, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সার্ভিলেন্স ইমোলাইজেসন খাগড়াছড়ি জেলা মেডিকেল অফিসার ডা: উৎপল চাকমা, মাটিরাঙ্গা প্রেস ক্লাবের সহ-সভাপতি মো: জসিম উদ্দিন জয়নাল, সাধারন সম্পাদক মুজিবুর রহমান ভুঁইয়া, মাটিরাঙ্গা উপজেলা নিরাপদ খাদ্য পরির্দশক মো: মিজানুর রহমান ও মাটিরাঙ্গা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের পেশ ইমাম মাও. হাফেজ হাজী হারুনুর রশীদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

উক্ত অনুষ্ঠানে বিভিন্ন ইউনিয়নের স্বাস্থ্য কর্মী,সাংবাদিক, সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দরা  উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য জেলার মাটিরাঙ্গা উপজেলায় আগামী ৪-১৭ অক্টোবর পর্যন্ত পক্ষকালব্যাপী জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইনে ২৩হাজার শিশুকে খাওয়ানো হবে নীল ও লাল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল। মাটিরাঙ্গার একটি পৌরসভা ও সাতটি ইউনিয়নের একটি স্থায়ী ও ১৯২টি অস্থায়ী কেন্দ্রের মাধ্যমে এ ক্যাম্পেইন বাস্তবায়ন করা হবে।

এই বিভাগের অন্যান্য খবর