Opu Hasnat

আজ ২০ অক্টোবর মঙ্গলবার ২০২০,

দুর্গাপুরে সরকারি পুকুর ভরাটের অভিযোগ নেত্রকোনা

দুর্গাপুরে সরকারি পুকুর ভরাটের অভিযোগ

নেত্রকোনার দুর্গাপুরে প্রভাবশালীদের সহায়তায় পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের সাধুপাড়া এলাকায় বাইতুল মামুর জামে মসজিদ সংলগ্ন সরকারী খাল ভরাট করার অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয়দের অভিযোগের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার পুকুর ভরাট বন্ধের নির্দেশ দেন।

এ নিয়ে শনিবার বিকেলে সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, ওই এলাকায় বসবাসরত মোঃ মঞ্জু মিয়া ২০০৩ সালে এস.এ খতিয়ানের ১৬৭১ দাগে বসবাসরত ভুমিহীন আঃ কদ্দুস’কে রাতের আধারে জোরপুর্বক উচ্ছেদ করে ওই জায়গা দখল নেয়। আর তখন থেকেই জায়গার পাশের সরকারি পুকুরটি দখল করার পায়তারাতে লিপ্ত থাকে। বিভিন্ন কাগজপত্র তৈরী ও স্থানীয় প্রভাবশালীদের সহায়তায় ইতোমধ্যে পুকুরটির অনেকাংশ ভরাট করে ফেলেছেন ভুমি খেকো মঞ্জু মিয়া।  

স্থানীয় ব্যবসায়ি আব্দুল মতিন জানান, ইতিপূর্বে এলাকাবাসীকে নিয়ে বেশ কয়েকবার পুুকুর ভরাট না করার জন্য বলা হলে কিছুদিন বিরত থাকার পর আবারও পুকুর ভরাট কাজ শুরু করেন। এ নিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের সাথে বেশ কয়েকবার বিবাদের সৃষ্টি হয়ে থানা পুলিশ পর্যন্তও গড়িয়েছে বিষয়টি। এ ব্যাপারে সরকারী সম্পত্তি রক্ষায় প্রশাসন কোন জোড়ালো ভুমিকা গ্রহন না করায় পুকুরটি এখন অনেকটাই মঞ্জু মিয়ার দখলে। অত্র এলাকার এই পুকুর ভরাটের ফলে সাধুপাড়া ওয়ার্ডের পানি নিষ্কাশনের একমাত্র পথ বন্ধ হয়ে সামান্য বৃষ্টিতেই আশপাশের পরিবার গুলোকে জলাবদ্ধতার মধ্যে পড়তে হয়। সরকারী সম্পত্তি রক্ষা ও জন দূর্ভোগের হাত থেকে রক্ষা পেতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন স্থানীয়রা।

এ নিয়ে মঞ্জু মিয়া মুঠোফোনে বলেন, পুকুরের কাগজপত্রের একটু সমস্যা থাকলেও দীর্ঘদিন যাবৎ পুকুরটি আমার দখলে রয়েছে তাই পুকুর ভরাট করছি। প্রশাসন চাইলে বন্ধ করে দিবো।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফারজানা খানম বলেন, পুকুর ভরাটের খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক ঘনাস্থলে যাই এবং মাটি ভড়াট করতে নিষেধ করি এর পরও যদি কেউ আদেশ অমান্য করে তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।