Opu Hasnat

আজ ২০ অক্টোবর মঙ্গলবার ২০২০,

মুকসুদপুরে বাস-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ৩ গোপালগঞ্জ

মুকসুদপুরে বাস-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ৩

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে যাত্রীবাহী বাস ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে তিন মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। দূর্ঘটনার পরপরই বাসটিতে আগুন ধরে যায়।

শুক্রবার রাত ১০টার দিকে  ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের মুকসুদপুর কলেজ মোড়ে এ দূর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- মুকসুদপুর উপজেলার চন্ডীবর্দী গ্রামের আনু সরদারের ছেলে ফয়সাল সরদার (৩০), একই গ্রামের সফি শেখের ছেলে লিয়াকত শেখ (২৭) ও গোপীনাথপুর গ্রামের বিল্লাল ঠাকুরের ছেলে আল আমিন (২৫)।

মুকসুদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের জানান, একটি মোটরসাইকেলে করে তিন আরোহী (বন্ধু) মুকসুদপুর থেকে গোপালগঞ্জের দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় মোটরসাইকেলটি ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে উঠতে গেলে খুলনা থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী গোল্ডেন পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাসের (ঢাকা-মেট্রো-ব-১৪৭৬৯৪) সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। এতে মোটর সাইকেল থেকে তিন আরোহী মহাসড়কের ছিটকে পড়লে ঘটনাস্থলে আল আমিন নিহত হন। এসময় বাসটি মোটর সাইকেলটিকে নিয়ে দুই কিলোমিটার দূরে ফরিদপুরের সালথা উত্তর চন্ডিবরদী এলাকায় গিয়ে চালক নিয়ন্ত্রন হারিয়ে ফেলে মহাসড়কে। বাসের নিচে থাকা মটরসাইকেলের ঘর্ষনের ফলে আগুন ধরে যায় বাসটিতে।

পরে পুলিশ ও মুকসুদপুর ফায়ার সার্ভিস খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে হতা-হতদের উদ্ধার করে মুকসুদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রেরণ করলে কর্তব্যরত ডাক্তার ফয়সালকে মৃত ঘোষনা করেন। মারাত্মক আহত লিয়াকতকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে লিয়াকত মারা যান। ঘটনার পর বাসের চালক ও হেলপার পালিয়ে গেছে।

পরে মুকসুদপুর ফায়ার সার্ভিসের অপর একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে বাসের আগুন নেভাতে সক্ষম হয়। তবে বাসের কোন যাত্রী আহত হননি। দূর্ঘটনার পরপরই ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক দিয়ে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতে মহাসড়কের দুই পাশে শতাধিক যানবাহন আটকা পড়ে যায়।

মুকসুদপুর ফায়ার সর্ভিসের স্টেশন অফিসার রাজীব হোসেন জানান, মুকসুদপুর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আগুন নিভিয়ে দূর্ঘটনা কবলিত বাসটি উদ্ধার করে। এক ঘন্টার পর ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক দিয়ে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।