Opu Hasnat

আজ ৩১ অক্টোবর শনিবার ২০২০,

সিংগাইরে খেয়াঘাটের মাঝিকে মারধর ও টাকা লুটের অভিযোগে মামলা মানিকগঞ্জ

সিংগাইরে খেয়াঘাটের মাঝিকে মারধর ও টাকা লুটের অভিযোগে মামলা

মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার জামশা ইউনিয়নের কালিগঙ্গা নদীর দক্ষিণ মাটিকাটা খেয়াঘাটের মাঝি মোঃ মোজাম আলী (৬৫) ও তার স্ত্রী পুত্রকে মারধর করে টাকা লুটে নেয়ার অভিযোগে মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় ওই মাঝি বাদী হয়ে ৪ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা ৫/৬ জনকে আসামী করে মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) আদালতে মামলা দায়ের করেছেন। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

মামলার আসামীরা হচ্ছেন- জামশা ইউনিয়ন পরিষদের ১নং ওয়ার্ড মেম্বার দক্ষিণ মাটিকাটা গ্রামের রজ্জব আলীর পুত্র মোঃ জাফর আলী (৩২), মৃত আছু সরদারের পুত্র সামেজুদ্দিন (৫০), উত্তর মাটিকাটা গ্রামের চানবর আলীর পুত্র আব্দুল মজিদ (৩৬) ও সদর উপজেলার কুমুল্লী গ্রামের মাহমুদ আলীর পুত্র মোঃ তাজুল মিয়া (৪০)। 

 মামলায় অভিযোগ করা হয়, মামলার বাদী কালিগঙ্গা নদীর দক্ষিণ মাটিকাটা খেয়াঘাটে ইঞ্জিন চালিত নৌকা দিয়ে লোকজন পারাপার করে জীবিকা নির্বাহ করে।  আসামীরা বিভিন্ন সময় হুমকি দিয়ে তার কাছ থেকে প্রতিবছর ৩০ হাজার টাকা দাবী করে। ইতিপূর্বে মামলার ৩নং আসামী সামেজুদ্দিন বাদীর কাছ থেকে ২২ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। শনিবার (১২ সেপ্টেম্বর) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে আসামীরা পরস্পর যোগসাজসে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ওই খেয়াঘাটের দক্ষিণ পাড়ে বাদীর ওপর হামলা চালায়। এ সময় স্ত্রী মনোয়ারা ও পুত্র হানিফ এগিয়ে এলে তাদেরকেও আসামীরা মারধর করে। সেই সঙ্গে ক্যাশ বক্স ও পকেটে থাকা ১৯ হাজার ২০০ টাকা ছিনিয়ে নেয়। স্থানীয় লোকজনের মধ্যস্থতায় ছিনিয়ে নেয়া ওই টাকার মধ্যে ৭ হাজার টাকা আসামীরা ফেরত দেয় বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়।

এ ব্যাপারে জামশা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড মেম্বার অভিযুক্ত মোঃ জাফর আলী তর্ক-বিতর্কের কথা স্বীকার করলেও মারধর ও টাকা ছিনিয়ে নেয়ার কথা অস্বীকার করে তিনি বলেন, চক্রান্ত করে আমাকে মানুষের কাছে হেয় করতে মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।