Opu Hasnat

আজ ৩০ সেপ্টেম্বর বুধবার ২০২০,

মাইসছড়িতে পলাতক আসামী গ্রেফতার খাগড়াছড়ি

মাইসছড়িতে পলাতক আসামী গ্রেফতার

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা মহালছড়ি উপজেলার মাইসছড়ি এক এজহার নামীয় পলাতক আসামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার মহালছড়ির পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ থানাধীন বিন্দুচর গ্রাম থেকে পলাতক আসামীকে গ্রেফতার করে। পলাতক আসামী জেলার মহালছড়ি মাইসছড়ি ইউনিয়নে কালোপাহাড় এলাকার মো: আব্দুর রশিদ ছেলে মো: মোশারফ হোসেন ওরফে মানিক(২৫)। যার মামলা নং-০১, তাং ০২-০৯-২০২০খ্রি:। আসামীবে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে পর মংগলবার বিজ্ঞ জুডিশিয়াল আদালতে মাধ্যমে জেলা কারাগারে প্রেরন করা হয়। মো: ছিদ্দিক ও সোহেলসহ আরো ৫’জন পলাতক আসামী এখনও পলাতক রয়েছে।

ঘটনার বিবরনে জানা য়ায়, মাহলছড়িতে সন্ত্রাসী হামলায় গুরুতর আহত বিএনপির নেতা নুরুল ইসলাম ওরফে লাল মিয়া টানা ১২দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে অবশেষে না ফেরার দেশে চলে গেলেন। গত মঙ্গলবার সকাল ৭টায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। নুরুল ইসলাম মহালছড়ি উপজেলার মাইচছড়ি ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি ছিলেন।

নুরুল ইসলামের ছোট ভাই সুরুজ্জামানের অভিযোগ, গত ১৯শে আগস্ট সন্ধ্যা ৭টার দিকে মো: ছিদ্দিক, সোহেল ও মো: মানিকের নেতৃত্বে বিএনপির নুরুল ইসলামের উপর হামলা চালায়। সন্ত্রাসীরা তার মাথায় এলোপাথারি আঘাত করে। গুরুতর আহত নুরুল ইসলামকে ওই দিন রাতে খাগড়াছড়ি জেলা সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্তু তার অবস্থা অবনতি হলে চিকিৎসকরা ২৪শে আগস্ট তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেলে রেফার করে। অবশেষে মঙ্গলবার সকাল ৭টায় নুরুল ইসলাম মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। গত মঙ্গলবার (১ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৯টায় জানাযা শেষে নুরুল ইসলামের লাশ নিজ এলাকায় দাফন করা হয়। 

জানা যায়, দলীয় নেতাকর্মী ছাড়াও মহালছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: জাহাঙ্গীরও অংশ নিয়েছেন বলে জানা যায়।

সুরুজ্জামানের আরো অভিযোগ, তিনি এ ঘটনায় মহালছড়ি থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা না নেওয়ায় তিনি ২৫শে আগস্ট বিজ্ঞ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেড আদালতে ৬জনকে আসামি করে মামলা করেছেন। তবে মহালছড়ি থানার ওসি এমন অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, মামলা করতে আসলে অবশ্যই মামলা নেওয়া হয়ে থাকে।

এ দিকে মহালছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো: জসিম উদ্দিনের দাবি এ ঘটনার সাথে আওয়ামীলীগের কোন সম্পৃক্ততা নেই। পারিবারিক বিরোধের জেরে এ হত্যাকান্ড ঘটেছে।

অপরদিকে খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য ওয়াদুদ ভূইয়া, সাধারণ সম্পাদক এমএন আবছার, মহালছড়ি উপজেলা বিএনপির সভাপতি আনোয়ার হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম বিএনপির নেতা নুরুল ইসলামের হত্যাকারীদের গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টাস্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছিল।

মহালছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: জাহাংগীর ঘটনা সত্যতা স্বীকার করে জানান, মহালছড়ি থানার মামলা নং-০১ তারিখ-০২/০৯/২০২০ ধারা-৩২৩/৩৭৯/১০৯/৩০২/৩৪ দ:বি: এর এজাহার নামীয় পলাতক আসামী মো: মোশারফ হোসেন ওরফে মানিক(২৫) পিতা-আব্দুর রশিদ, সাং-কালোপাহাড়, ৪নং মাইসছড়ি ইউপি, থানা-মহালছড়ি, জেলা-খাগড়াছড়িকে জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ থানাধীন বিন্দুরচর গ্রামের উক্ত আসামীর আআত্মীয়ের বাড়ী থেকে গ্রেফতার করে। সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) পুলিশ স্কটের মাধ্যমে বিজ্ঞ আদালতে কারগারে প্রেরন করা হয়। 

এই বিভাগের অন্যান্য খবর