Opu Hasnat

আজ ৩০ সেপ্টেম্বর বুধবার ২০২০,

ফরিদপুরের খলিলপুর বাজারের অবৈধ ভবন মালিকদের বিরুদ্ধে নোটিশ জারী ফরিদপুর

ফরিদপুরের খলিলপুর বাজারের অবৈধ ভবন মালিকদের বিরুদ্ধে নোটিশ জারী

ফরিদপুরের সদর উপজেলার খলিলপুর বাজারের সরকারি জমিতে অবৈধ প্রক্রিয়ায় দখল করে ভবন নির্মাণ করেছে সরোয়ার হোসেন সন্টুসহ তার কয়েক সহযোগিরা। তিনি বাজারের মধ্যে মাছ বাজাররের ভিতর থাকা দুটি সেড ভেঙ্গে মূল্যবান তিন শতাংশ জমি দখল করে এই ভবন নির্মাণ করেন। আর এ নিয়ে দেশের জাতীয় ও স্থানীয় দৈনিক গুলোতে দেড় কোটি টাকা আত্মসাৎ এর ঘটনা নিয়ে নিউজ প্রচারের পর জেলা প্রশাসন নড়েচড়ে বসে। এরই মধ্যে ২৪টি দোকানের মালিকদের কে ৭দিনের নোটিশ দেয়া হয়েছে। এই সময়ের মধ্যে তারা হাজির হয়ে সরকারী জমিতে কিভাবে ভবন নির্মাণ করলেন তার ব্যাখা দেবেন। বিধি বহিভূতভাবে হলে ভবনটির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করবে বলে জানাগেছে উপজেলা প্রশাসন।  

এ বিষয়ে ভূমি অফিসের এক কর্মকর্তা জানান, খলিলপুর বাজারের মধ্যে ৩ শতাংশ জমিতে এক বছরের জন্য লীজ দেয়া হয়েছিলো। স্থায়ীভাবে কোন ভবন তারা নির্মাণ করতে পারেনা এই শর্তে। কিন্তু তারা সেই নিয়ম না মেনে বাজারের সরকারী জমিতে ভবন নির্মাণ করেছেন। যদি তারা ৭দিনের মধ্যে উপযুক্ত কাগজ না দেখাতে পারে তাহলে সরকারী নিয়ম অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে তিনি জানান।  

বাজারের ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করে বলেন ২০১৭ সালের দিকে সরোয়ার হোসেন সন্টু অবৈধ ভাবে প্রভাব খাটিয়ে মাছ বাজারের মধ্যে জায়গা দখল করেন। এরপর স্থানীয় প্রভাবশালী ওমর মোল্যাকে সাথে নিয়ে তিনি সেখানে একটি ভবন নির্মাণ করেন। সেই ভবনের একতলা কাজ শেষ করে ২০১৭/১৮ সালে ২৪টি দোকান প্রতি আট থেকে দশ লাখ টাকা মুল্য বিক্রি করেন। আর এ কাজ থেকে সন্টু ও তার আরেক সহযোগি ওমর মোল্যা সহ বাজারের কয়েক সদস্য নিয়ে তিনি এই অপকর্ম করেছেন। ভবনের দোকান বিক্রি করে সন্টু দেড় কোটি টাকার উপরে আত্মসাৎ করে নিয়ে গেছেন বলে জানান তারা। 

এ বিষয়ে সদর উপজেলা নির্বাহী মো: মাসুম রেজা বলেন, বাজারের মাঝে সরকারী বিধি বর্হিভূত ভাবে একটি পাকা ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। আমরা ঘটনাটি জানার সাথে সাথে এর সাথে জরিত ব্যক্তিদের নোটিশ জারী করেছি। তিনি বলেন, হাট-বাজারের সরকারী জমিতে কোন ব্যক্তি স্থায়ী পাকা ভবন নির্মাণ করতে পারবে না। এখন এ বিষয়ে উপজেলা প্রশাসন যথাযথ আইনী ব্যবস্থা গ্রহন করবে বলেও জানান তিনি। এর আগে তার নেতৃত্বে বাজারের অবৈধ কয়েকটি দোকানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা ও ইট ভাটা থেকে সরকারী খাস জমি উদ্ধার করা হয়েছে।  

এদিকে ফরিদপুরে শুদ্ধি অভিযানের পর থেকে গত কয়েক মাস হলো সরোয়ার হোসেন সন্টু পলাতক রয়েছেন বলে জানান বাজারের ব্যবসায়ীরা।

এই বিভাগের অন্যান্য খবর