Opu Hasnat

আজ ১১ আগস্ট মঙ্গলবার ২০২০,

ব্রেকিং নিউজ

প্রথমবারের মতো কোরবানির মাংস পেলো দৌলতদিয়ার ২ হাজার যৌনকর্মী রাজবাড়ী

প্রথমবারের মতো কোরবানির মাংস পেলো দৌলতদিয়ার ২ হাজার যৌনকর্মী

জীবনের কোন দিন কারও কাছ থেকে পায়নি এক টুকরো কোরবানির মাংস। বিগত বছরগুলোর কোরবানির দিনে যে যার সামর্থ মতো মাংস কিনে খেয়েছেন। এবার এক সাথে দুই হাজার যৌনকর্মীকে মাংস খাওয়ার ব্যাবস্থা করে দিয়েছেন উত্তোরন ফাইন্ডেশণ। 

তারই ধারা বাহিতকায় শনিবার বিকেলে রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের জলিল ফকিরের বাড়ীতে “উত্তরণ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে” পুলিশের ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হাবিবুর রহমানের ব্যবস্থাপনায় দৌলতদিয়া যৌনকর্মীদের মাঝে দুই হাজার কেজি মাংস বিতরণ করা হয়েছে।

মাংস বিতরণ অনুষ্ঠানে রাজবাড়ী পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান পিপিএম, গোয়ালন্দ ঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আশিকুর রহমানপিপিএম, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আবদুল্লাহ আল তায়াবীর, অসহায় নারী ঐক্যে সংগঠনের সভানেত্রী ঝুমুর বেগম উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় অসহায় নারী ঐক্যে সংগঠনের সভানেত্রী ঝুমুর বেগম বলেন, কোরবানি কি জিনিস এখানকার বাসিন্দারা জানতো না। কোনদিন ফকির মিসকিনের মতো একটুকরো মাংসও তারা পায়নি। করোনাকালীন এ সময় চার মাস যাবৎ যৌনকর্মীরা অভাবে অনটনে থাকলেও সেটি তারা ততটা অনুভব করতে পারেনি। কারন ঢাকা রেঞ্জ ডিআইজি মোঃ হাবিবুর রহমান, রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান ও গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আশিকুর রহমান যৌনকর্মীদের পাশে ঢাল হয়ে দারিয়েছে। দীর্ঘদিনের প্রতিষ্ঠিত দৌলতদিয়া যৌনকর্মীরা কোনদিন কারো থেকে কোরবানীর মাংস পায়নি। মৃত্যুর পর জানাযা নামাজের মধ্য দিয়ে অবহেলিত এসব যৌনকর্মীদের প্রতি পুলিশের ভালাবাসার যে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে সেটা এই পল্লীর বাসিন্দারা সারা জীবন মনে রাখবে। 

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আশিকুর রহমান পিপিএম বলেন, করোনার সময় ঢাকা রেঞ্জ ডিআইজি স্যার তার উত্তোরন ফাউন্ডেশন যৌনকর্মীদের পাশে দারিয়েছে। রাজবাড়ী জেলা পুলিশ তাদের পাশে দারিয়েছে। এ পর্যন্ত পুলিশের পক্ষ থেকেই ওদের সাতবার খাদ্য সহায়তা দেওয়া হয়েছে। প্রয়োজনে আরো দেওয়া হবে। এতদিন ওরা যে নির্যাতীত ছিলো এখন তার কালো মেঘ কেটেছে। যৌনকর্মীরা যাতে ভালো থাকে সেদিকে আমাদের নজর আছে। আর সর্বপরি একজন জনবান্ধব পুলিশ কর্মকর্তা যিনি অসহায়, বেদে ও পিছিয়ে পরা জনগোষ্ঠিদের নিয়ে কাজ করে সেই ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হাবিবুর রহমান সব সময় ওদের খোজ নিচ্ছেন।

রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান (পিপিএম) বলেন, উত্তরণ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ও পুলিশের ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হাবিবুর রহমান দৌলতদিয়া যৌনপল্লীতে বসবাসরত দুই হাজার পরিবারের মাঝে এক কেজি করে মাংস উপহার দিয়েছেন। সমাজে যারা অসহায় তাদের নিয়ে উত্তরণ ফাউন্ডেশন কাজ করে। বিশেষ করে বেঁদে সম্প্রদায়, তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ সহ যৌনকর্মীদের কাজ করছে সংগঠনটি দেশের মধ্যে প্রশংসা কুড়িয়েছে।