Opu Hasnat

আজ ১৩ আগস্ট বৃহস্পতিবার ২০২০,

দিরাইয়ে বিকাশ নম্বর হ্যাক করে ৮৬,৭০০ টাকা হাতিয়ে নিল প্রতারক চক্র সুনামগঞ্জ

দিরাইয়ে বিকাশ নম্বর হ্যাক করে ৮৬,৭০০ টাকা হাতিয়ে নিল প্রতারক চক্র

সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলায় মুঠো ফোনে একাউন্ট খুলে সহজেই টাকা আদান-প্রদান করা ব্যাংকের সম্পূরক হয়ে ওঠা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের শীর্ষে ব্র্যাক ব্যাংকের সহ-প্রতিষ্ঠান বিকাশ। আর এই বিকাশ একাউন্ট ব্যবহারকারীদের টার্গেট করে গড়ে উঠেছে একটি বিশাল প্রতারক চক্র। প্রতিদিন তাদের প্রতারণার শিকার হয়ে সর্বস্ব খুইয়ে নিঃস্ব হচ্ছেন ব্যক্তিগত মোবাইলে বিকাশ একাউন্ট ব্যবহারকারী বিভিন্ন জন থেকে শুরু করে বিকাশ এজেন্ট ব্যবসায়ীরা পর্যন্ত। 

শুক্রবার প্রতারণার শিকার হয়ে ৮৬,৭০০/- (ছিয়াশি হাজার সাতশত টাকা) হারিয়েছেন বিকাশ এজেন্ট ব্যবসায়ী সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার করিমপুর ইউনিয়নের টুক দিরাই গ্রামের মোঃ শাহ জাহান। টুক দিরাই খেয়াঘাটে উনার বিকাশ ব্যবসা। 

প্রতারক চক্র অভিনব কৌশলে ব্যবসায়ী শাহজাহান এর গ্রীস প্রবাসী আপন মামা মোঃ ইমদাদুল হক এর ব্যবহৃত মোবাইল (ইমো) নম্বর +৩০ ৬৯৪ ৪০৭ ৯৯২১ হ্যাক করে মামা সেজে ৩ টি বিকাশ পারসোনাল নাম্বারে হাতিয়ে নেয় বিশাল অংকের টাকা। যোগাযোগ করতে ০১৭৯৭৮৫৭২৪৩ নাম্বার থেকে কল দিয়েছে টাকা নিতে। এখন প্রতারক চক্রের সকল মোবাইল নাম্বারই বন্ধ রয়েছে। আরও ৩ টি (০১৮৯৩৩২৯০৬৯, ০১৮১৯১৮৬১৪, ০১৮১৭৮৫১৮৯৬) পার্সোনাল নাম্বার দিয়ে ৯৪ হাজার টাকা দিতে বললে সন্দেহের বসে শাহজাহান সরাসরি গ্রীসে কল করলে বেরিয়ে আসে প্রতারণার বিষয়টি। সেখান থেকে ইমদাদুল হক জানান উনি ইমোতে টাকার জন্য কোনো টেক্স ম্যাসেজ দেননি! 

প্রতারক চক্রের ০১৬৪৬৬৯৩৭ নাম্বারটির ইমো প্রোফাইলে ইংরেজিতে বিডি পুলিশ লেখা রয়েছে। ঈদকে সামনে রেখে পুঁজি হারিয়ে চোখে অন্ধকার দেখছেন লেখাপড়ার পাশাপাশি ব্যবসা করা শাহজাহান। 

প্রতারণার শিকার ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী শাহজাহান টাকা উদ্ধারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তা কামনা করেছেন। 

এই বিভাগের অন্যান্য খবর