Opu Hasnat

আজ ১৪ আগস্ট শুক্রবার ২০২০,

সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদা দাবি, কাঠালিয়ায় তিন প্রতারকের নামে মামলা ঝালকাঠি

সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদা দাবি, কাঠালিয়ায় তিন প্রতারকের নামে মামলা

ঝালকাঠির কাঠালিয়ায় নারী ইউপি সদস্যর কাছে সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদা দাবি ও অশ্লীল ভিডিও তৈরি করে ফেইজবুকে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেয়ার অভিযোগে কথিত সাংবাদিক রাজিব তালুকদারকে প্রধান আসামী করে তিন জনের নামে মামলা রেকর্ড হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে (১০ জুলাই) এ মামলাটি (নং-২, তারিখ ১০/৭/২০২০) করেন কাঠালিয়া সদর ইউনিয়নের (সংরক্ষিত ৪,৫,৬ নং ওয়ার্ডের) মহিলা ইউপি সদস্য মোসা. সাবিনা ইয়াসমীন।  

মামলার বিবরণ ও নারী ইউপি সদস্য সাবিনা ইয়াসমিনের সাথে কথা বলে জানা যায়, উপজেলার বানাই গ্রামের মজিদ ওরফে মধু তালুকদারের পুত্র রাজিব তালুকদার অত্যন্ত  প্রতারক, লম্পট ও দুশ্চরিত্র প্রকৃতির লোক। রাজিব তালুকদারের নেতৃত্বে সঙ্গবদ্ধ চক্রটি সাংবাদিকতার নাম বিক্রি ও সাংবাদিক পরিচয়ে সাধারণ মানুষকে ব্ল্যাকমেইলের মাধ্যমে টাকা আদায়  ও নানা ধরনের প্রতারণা করে থাকে। এরই ধারাবাহিকতায় রাজিব তালুকদার গত দু’মাস পূর্বে ইউপি সদস্য সাবিনা ইয়াসমিনের এলাকায় একটি বাল্যবিবাহ চেষ্টার ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজিব তালুকদার সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে সাবিনার কাছে প্রথমে ২০ হাজার এবং পরে ৩০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে এবং  বিভিন্ন অশালীন প্রস্তাব দেয়।  দাবিকৃত টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে রাজিব তালুকদারসহ অপর আসামিরা একত্রিত হয়ে পথে-ঘাটেসহ বিভিন্নভাবে ইউপি সদস্যকে ভয়ভীতি দেখান এবং অশ্লীল ভিডিও তৈরি করে ফেইজবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকী  দেয় রাজিব তালুকদার ও তার লোকজন। এমনকি ইউপি সদস্যর স্বামী  শামীম মৃধার হাত-পা কেটে চির তরে পঙ্গু করে দেবে বলে হুমকী প্রদান করে। 

কাঠালিয়া থানা অফিসার ইনচার্জ পুলক চন্দ্র রায় বলেন, ইউপি সদস্য সাবিনা ইয়াসমীনের ঘটনায় রাজিব তালুকদারসহ তিন জনকে আসামী করে একটি মামলা  রেকর্ড করা হয়েছে। শনিবার বিকেলে রাজিবকে  গ্রেফতারের জন্য বানাই গ্রামে পুলিশ অভিযান চালালে সে একটি খালে লাফিয়ে পড়ে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।  

আমুয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান  মো. ফোরকান সিকদার বলেন, কালা বাদল, রাজিব এবং শাওন নামে তিন প্রতারক কখনও সাংবাদিক কখন তালাশ টিমের সদস্য আবার কখনও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সোর্স পরিচয় দিয়ে সাধারণ মানুষের সাথে প্রতারণা করে থাকে। এদের কারণে কাঠালিয়ায় সাংবাদিকতা পেশা প্রশ্নের সম্মুখিন। তাই এ সকল প্রতারকের বিরুদ্ধে পুলিশের এ্যাকশন নেওয়া উচিত ।