Opu Hasnat

আজ ৪ আগস্ট মঙ্গলবার ২০২০,

অনিয়মের সত্যতা মেলায় সুন্দরগঞ্জের জাহিদুল ইসলামের ডিলারশীপ বাতিল গাইবান্ধা

অনিয়মের সত্যতা মেলায় সুন্দরগঞ্জের জাহিদুল ইসলামের ডিলারশীপ বাতিল

এল.এন.শাহী, গাইবান্ধা থেকে : অবশেষে একই পরিবারের ৩০ জনের নাম অন্তর্ভুক্তসহ অন্তত ১০০ জনের চাল আত্মসাতের অভিযোগ ওঠা গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার কাপাসিয়া ইউনিয়নের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ডিলার জাহিদুল ইসলামের ডিলারশীপ বাতিল করা হয়েছে। শুধু তাই নয়, এই ডিলারের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছে উপজেলা প্রশাসন।

গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর থেকে বছরের ৫ মাস ৩০ টাকা কেজি দরে ভূমিহীন, কৃষি শ্রমিক, দিনমজুর, ভিক্ষুকসহ দুঃস্থ কার্ডধারীদের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ১৬ দফার চাল আত্মসাতের অভিযোগ ওঠে সুন্দরগঞ্জের কাপাসিয়া ইউনিয়নের ডিলার জাহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে।

পরে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও উপজেলা খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির সভাপতি কাজী লুতফুল হাসানকে ১৩ ও ১৯ মে লিখিত অভিযোগ দেন কর্মসূচিটির বঞ্চিত সুবিধাভোগীরা। পরে ১৩ মে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. সেকেন্দার আলীকে ডিলার জাহিদুল ইসলামের বিষয়ে তদন্তের নির্দেশ দেন ইউএনও কাজী লুতফুল হাসান।

পরে নির্বাচন কর্মকর্তা মো. সেকেন্দার আলী সরেজমিনে তদন্ত শেষে ১৯ মে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেন। সেই তদন্তে ডিলার জাহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে অনিয়মের সত্যতার বিষয়টি উঠে আসে। এরপর ১৬ জুন উপজেলা খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির সভা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। এই সভায় ডিলার জাহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় তার ডিলারশীপ বাতিল করা হয়।

সম্প্রতি এ সংক্রান্ত একটি চিঠি পাঠানো হয় জেলা প্রশাসক ও জেলা খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির সভাপতি মো. আবদুল মতিনকে। এতে করে আজ বৃহস্পতিবার ওই ডিলারের ডিলারশীপ বাতিলের বিষয়টি প্রকাশ হয়।

এছাড়া ডিলার জাহিদুল ইসলামের বিষয়ে তদন্ত করে অনিয়মের অভিযোগের সত্যতা পান উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. আলাউদ্দিন বসুনিয়া ও জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়ের কারিগরী খাদ্য পরিদর্শক মো. মোজাম্মেল হোসেনও।

এ বিষয়ে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কাজী লুতফুল হাসান বিকেলে বলেন, আগামী সপ্তাহের প্রথম দিকে ডিলার জাহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হবে। সেই এজাহারে কতজন কার্ডধারীর চাল অনিয়ম করে আত্মসাত করা হয়েছে তা বিস্তারিত তুলে ধরে হবে।