Opu Hasnat

আজ ১১ আগস্ট মঙ্গলবার ২০২০,

ব্রেকিং নিউজ

সুন্দরগঞ্জে স্ত্রী হত্যায় স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা গাইবান্ধা

সুন্দরগঞ্জে স্ত্রী হত্যায় স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

এল.এন.শাহী, গাইবান্ধা থেকে : গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নের পাড়াসাদুয়া গ্রামে ছবিরন বেগম (৩০) নামে স্ত্রীকে হত্যার পর মরদেহ পাটক্ষেতে রেখে পালিয়ে যাবার ঘটনায় স্বামী মধু মিয়ার (৪০) বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেছেন শ্যালক জাহাঙ্গীর আলম। 

থানা সূত্রে জানা যায়, বুধবার বিকেলে ময়না তদন্ত শেষে স্বজনদের নিকট ছবিরন বেগমের মরদেহ হস্তান্তর করা হয়। এরআগে মঙ্গলবার বিকেলে বাড়ির পাশের একটি পাট ক্ষেতে পানিতে ভাসমান অবস্থায় ছবিরনের মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেন স্থানীয়রা। পরে সেখান থেকে ছবিরনের মরদেহ উদ্ধার পূর্বক সরুতহাল রিপোর্ট প্রস্তুত শেষে ময়না তদন্তের জন্য গাইবান্ধা সদর আধুনিক হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। ২ সন্তানের জননী ছবিরন বেগম পাড়াসাদুয়া গ্রামের শুকুর আলী-জাহেদা বেগম দম্পতির মেয়ে। সে ঢাকায় গার্মেন্টেসে চাকরি করাকালে ২০১৮ সালের ২০ ডিসেম্বর মধু মিয়ার সঙ্গে ২য় বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হয়। মধু মিয়া জেলার ফুলছড়ি উপজেলার উদাখালী ইউনিয়নের হরিপুর গ্রামের ফুল মিয়া-মনোয়ারা বেগম দম্পতির ছেলে। মধু মিয়ার পূর্বের স্ত্রী ও সন্তান আছে। তিনি ছবিরনকে ২য় বিয়ে করার পর থেকে পাড়াসাদুয়া গ্রামে শ্বশুর বাড়িতে থাকতেন। পেশায় তিনি রাজমিস্ত্রী।

ইউপি সদস্য আবুল কালাম আজাদ জানান, বন্যার পানিতে বসতভিটা ডুবে যাওয়ায় ছবিরনের বাবা-মাসহ পাড়ার সকলেই পাড়াসাদুয়া নামক স্থানে তিস্তা নদীর বামতীর বাঁধের রাস্তায় আশ্রয় নিলেও স্ত্রীকে নিয়ে মধু মিয়া নিজ ঘরেই থাকতেন। তাদের শয়ন ঘরের ভিতরে কোমড় পানি হলেও তারা শয়ন ঘরেই থাকতেন। এরই এক পর্যায়ে মঙ্গলবার বিকেলে তাদের খোঁজ-খবর নিতে গেলে বাড়ির পাশের পাট ক্ষেতে ভাসমান অবস্থায় ছবিরনের মৃতদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়া হয়। ছবিরনের বাবা-মাসহ পরিবারবর্গের অভিযোগ তাকে হত্যা করে মরদেহ গুম করার চেষ্টা চালিয়ে স্বামী মধু মিয়া পালিয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই রাজেন্দ্র মোহন চাকী জানান, পারিবারিক কলহের জের ধরে স্ত্রী ছবিরনকে হত্যার পর গুম করার চেষ্টা চালিয়ে মরদেহটি পাট ক্ষেতের পানিতে ডুবে রেখে স্বামী মধু মিয়া পালিয়েছে। এঘটনায় ছবিরন বেগমের ভাই জাহাঙ্গীর আলম বাদী হয়ে তার দুলাভাই মধু মিয়াকে একমাত্র আসামী করে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। মামলার আসামীকে গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। 

থানা অফিসার ইনচার্জ আব্দুল্লাহিল জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।