Opu Hasnat

আজ ২০ সেপ্টেম্বর রবিবার ২০২০,

রামগড়ে করোনায় এক মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ১৭ মুক্তিবার্তাখাগড়াছড়ি

রামগড়ে করোনায় এক মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ১৭

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার রামগড় উপজেলায় বীর মুক্তিযোদ্ধা (সাবেক কমান্ডার) মো: মনছুর আহম্মেদ (৭২) করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন। করোনা ভাইরাসসহ বার্ধক্যজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে সাবেক এই মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বৃহস্পতিবার (২৫ জুন) সকাল পৌনে নয়টার দিকে ঢাকার পপুলার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন। তিনি স্ত্রী, দুই ছেলে ও তিন মেয়েসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। রাষ্ট্রিয় মর্যাদায় মরহুমকে রামগড় কেন্দ্র কবরস্থানে দাপন করা হবে বলে পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে।

তার ছোট ভাই সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান এই সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, তার ভাই রামগড় উপজেলার সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মনসুর আহম্মদ বেশ কিছু দিন ধরে জ্বর, সর্দি, শ্বাসকষ্টসহ করোনাভাইরাসের উপসর্গে ভুগছিলেন। গত বৃহস্পতিবার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাঁকে ঢাকা পপুলার হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে তার নমুনা সংগ্রহ করলে তার ফলাফল করোনা পজিটিভ আসে।

চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার (২৫ জুন) আনুমানিক সকাল পৌনে নয়টার দিকে তিনি মারা যান। করোনা শনাক্ত হওয়ার পূর্বেও তার ডায়াবেটিকস এবং উচ্চরক্তচাপ ছিলো। স্বাস্থ্যবিধি মেনে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাকে রামগড় কেন্দ্রীয় কবরস্থানে দাফন করা হয়। তাঁর মৃত্যুতে বিভিন্ন স্তরের ব্যাক্তিবর্গ শোক জানিয়েছেন। 

এদিকে, গত ২৪ঘণ্টায় খাগড়াছড়িতে ১১পুলিশ সদস্য‘সহ আরো ১৭জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। জেলাতে গত ২৪ ঘণ্টায়  ১১ পুলিশ ও এক স্বাস্থ্যকর্মী‘সহ আরো ১৭ জন করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১ শত ৮৮জন। এর মধ্যে পুলিশ সদস্য ৯০ জন ও স্বাস্থ্য কর্মী ১৭জন। তবে এর মধ্যে ৩৯জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। বৃহস্পতিবার(২৫ জুন) বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন খাগড়াছড়ি সিভিল সার্জন ডা: নুপুর কান্তি দাশ। তিনি জানান, এখন পর্যন্ত এক হাজার ৭শত ৫৯জনের নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হয়েছে। তার মধ্যে ফলাফল এসেছে ১৫শ ৮৮জনের। এর মধ্যে ৬৯পুলিশ সদস্য ও ১২স্বাস্থ্যকর্মী রয়েছেন। 

মানিকছড়ি উপজেলা : মানিকছড়িতে আরো একজনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে মানিকছড়িতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২৩জন। বুধবার (২৪ জুন) বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন স্বাস্থ্য ও পপবিবার পরিকল্পনা কমকর্তা ডা: রতন খীসা। তিনি আরো জানান, নতুন আক্রান্ত ব্যক্তি গাইনি চিকিৎসক। তিনি আইসোলেশনে আছেন। তার শরীরে করোনার লক্ষণ আছে। তিনি সকলের নিকট দোয়া প্রাথী। জেলার মানিকছড়িতে গত ২৪ঘন্টায় তিন পুলিশ সদস্যসহ আরও ৬জনের দেহে ‘করোনা’ শনাক্ত হয়েছে। 

উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ২২ জুন সোমবার সকালে প্রাপ্ত রির্পোট অনুযায়ী মানিকছড়িতে নতুন করে ৬জনের দেহে ‘করোনা’ সনাক্ত হয়। এদের মধ্যে ৩জন পুলিশ সদস্য, ২জন মুসলিমপাড়া ও ১জন বড়ডলু’র পল্লী চিকিৎসক। এ নিয়ে উপজেলায় মোট করোনা আক্রান্ত হলো ২৩জন। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: রতন খীসা বলেন, নতুন করে আক্রান্ত ৬জনের মধ্যে ৩পুলিশ সদস্যকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে ও অপর ৩জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। উপজেলায় এ পর্যন্ত ২৩জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে, পরিস্থিতি মোকাবেলায় সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহব্বান জানিয়ে তিনি আরো বলেন, অনেকে ‘করোনা’ পরীক্ষার নমুনা দিয়ে হাঁট-বাজার ও জনসমাগমে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করে চলাফেরা করায় জনপদে ‘করোনা’ বৃদ্ধির আশংকা বাড়ছে। এ ব্যাপারে প্রত্যেকে নিজ উদ্যোগে সচেতন হতে হবে।

দীঘিনালা উপজেলা : জেলার দীঘিনালা উপজেলায় করোনা উপসর্গ নিয়ে আব্দুল সাত্তার নামে এক আনসার সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। গত রোববার (২১ জুন) দিনগত রাতে আইসোলেশনে থাকা অবস্থায় মারা যান তিনি। মঙ্গলবার (২৩ জুন) উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: তন্ময় তালুকদার এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে দীঘিনালা ২৩আনসার ব্যাটালিয়নের নায়েক আব্দুল সাত্তার আইসোলেশনে ছিলেন। সেখানেই রোববার রাতে মারা যান তিনি। গত ১৭জুন তার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। তবে এখনও ফলাফল আসেনি।

এদিকে জেলার দীঘিনালায় পিতার কুলখানীর অর্থে করোনা ভাইরাসের কারনে কর্মহীন পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৫ জুন) উপজেলার উত্তর হাচিনসনপুর গ্রামে ত্রাণ বিতরণ কর্মসূচী উদ্ধোধন করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোহাম্মদ কাশেম।

জানা যায়, গত ২৩ জুন মঙ্গলবার উপজেলার উত্তর হাচিনসনপুর গ্রামের বিশিষ্ট ঠিকাদার আম্বিয়া ট্রেডার্সের স্বতাধিকারী মো: ইসমাইল হোসেনের পিতা মহর আলী (৮০) মৃত্যুবরণ করেন। পরে বৃহস্পতিবার পিতার কুলখানী করার কথা থাকলেও, তা না করে কুলখানীর সমুদয় অর্থে এলাকার অসহায় গরীব দুঃস্থদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, কবাখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো: জাহাঙ্গীর হোসেন এবং স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার নুরুল আবছার মোন্নাফ। ত্রাণ হাতে পেয়ে জহুরা বেগম(৬০) জানান, কুলখানীতে চাল পেলাম। এ অভাবের মধ্যে খুবই উপকার হলো। মো: ইসমাইল হোসেন জানান, করোনা ভাইরাসের কারনে কুলখানীর মেজবান করা হয়নি। তাই ওই অর্থ দিয়ে এলাকার গরিব দুস্থ পরিবারের মাঝে দশ কেজি হারে ২শত ৩০ জনের মাঝে চাল বিতরণ করা হয়েছে।

উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোহাম্মদ কাশেম জানান, করোনা ভাইরাসের কারনে পিতার নামে কুলখানী না করে সেই অর্থে কর্মহীন মানুষের পাশে দাঁড়ানো বর্তমান সময়ের জন্যে খুবই ভালো এবং সময়োপযোগী উদ্যোগ। 

রামগড় উপজেলা : খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের সাবেক সদস্য আবু বকর ছিদ্দিক উক্ত রক্তচাপ ও ডায়াবেটিকসে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তাই সবার দোয়া কামনা চেয়েছেন। পার্বত্য জেলা পরিষদের সাবেক সদস্য ও রামগড় প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি এবং চট্টগ্রাম থেকে প্রকাশিত অনলাইন নিউজ পোর্টাল সিটিজি জার্নালের সম্পাদক মো: আবু বকর ছিদ্দিক উক্ত রক্তচাপ ও ডায়াবেটিকসে আক্রান্ত হয়ে গত ২২ জুন থেকে তিনি চট্টগ্রাম মেট্টোপলিটন হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি হন।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, বর্তমানে তাঁর শারীরিক অবস্থা আগের চাইতে কিছুটা উন্নতি হয়েছে। এছাড়াও রামগড় প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে তাঁর সুস্থতা কামনায় সকলের নিকট দোয়া চেয়েছেন, রামগড় প্রেসক্লাবের সভাপতি শ্যামল রুদ্র ও সাধারণ সম্পাদক বেলাল হোসাইন।

গুইমারা উপজেলা : ৯টি উপজেলার মধ্যে ৮টি উপজেলায় ইতোমধ্যে করোনা পজেটিভ রোগী শনাক্ত হলেও এখনও গুইমারা উপজেলায় কোন পজেটিভ শনাক্ত হয়নি। এর পেছনে রয়েছে প্রশাসনিক জটিলতা। ২০১৪ সালের ৩০ নভেম্বর রামগড়, মহালছড়ি ও মাটিরাঙ্গা উপজেলার অংশে ৩টি ইউনিয়ন নিয়ে গুইমারা নতুন উপজেলা গঠিত হয়। ৫বছর অতিক্রম হলেও এখনও এ উপজেলায় শুরু হয়নি স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের কার্যক্রম। পুরাতন উপজেলার কাঠামোতে চলছে এ উপজেলার স্বাস্থ্যখাতের কার্যক্রম। এতে করোনা পরিস্থিতির এ সময়ে এখনও করোনা মুক্ত উপজেলার তালিকায় রয়ে গেছে গুইমারা উপজেলায়।

খাগড়াছড়ির সিভিল সার্জন ডা: নুপুর কান্তি দাশ এ বিষয়ে বলেন, গুইমারা উপজেলায় স্বাস্থ্য বিভাগের  প্রাতিষ্ঠানিক কার্যক্রম না থাকায় মাটিরাঙ্গার পুরানো উপজেলা থেকে দেখা-শুনা করতে  হয়। করোনা উপসর্গ নিয়ে যারা নমুনা দিচ্ছেন তাদের মাটিরাঙ্গা নয়তো রামগড়ের হিসেবে দেখানো হচ্ছে। এতে করে এ উপজেলায় এখনও করোনা শনাক্ত সঠিকভাবে হয়নি।

উপজেলা ঘোষণার চার বছর পরও খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজেলা পরিষদ নির্মিত হয়নি উপজেলা পর্যায়ের দপ্তরগুলোর নিজস্ব ভবন। উপজেলার প্রশাসনিক কাজ চলছে ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্সের কক্ষে। সোনালী ব্যাংকসহ অন্যান্য বিভাগের কাজ চলছে ভাড়া ভবনে। গুইমারা সেনাবাহিনীর ব্রিগেড রিজিয়ন, বিজিবি দপ্তর ও বিশাল হাসপাতাল এবং গ্রাম প্রতিরক্ষা-আনসার বাহিনী স্থায়ী সদর দপ্তর রয়েছে। এর মধ্যে গুইমারা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, সরকারি কলেজ, থানা ভবন, উপজেলা প্রানী সম্পদ ভবন ইতিমধ্যে অবকাঠামো তৈরী করা হয়েছে। চতুরপার্শ্ববর্তী মাটিরাংগা, মহালছড়ি ও রামগড় উপজেলা থেকে তিনটি ইউনিয়ন পরিষদ নেওয়া হয়। এই নিয়ে ১নং গুইমারা ইউপি, ২নং হাফছড়ি ইউপি, ৩নং সিন্দুকছড়ি ইউপি নিয়ে নতুন গুইমারা উপজেলা পরিষদ গঠিত হয়। 

খাগড়াছড়ির পুলিশ সুপার মো: আব্দুল আজিজ বলেন, জেলায় পুলিশ সদস্যের মধ্যে করোনা আক্রান্তের হার বাড়ার পেছনে একাধিক কারণ রয়েছে। অন্যতম কারণগুলো হচ্ছে কক্সবাজার জেলার রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে দায়িত্বপালন শেষে ফেরা, খাগড়াছড়ির প্রবেশমুখ মানিকছড়ি ও রামগড়ে দায়িত্বপালন এবং জননিরাপত্তা দিতে গিয়ে মাঠপর্যায়ে কাজ করা। পুলিশ সদস্যের মধ্যে আক্রান্ত বাড়লেও উদ্বেগের কোন কারণ নেই বলে জানিয়ে তিনি আরও বলেন, যেসব পুলিশ সদস্য ও কর্মকর্তারা বাহির থেকে আসছেন এবং যারা অসুস্থ তাদের আলাদা ভাবে কোয়ারেন্টিনে রাখা হচ্ছে। নমুনা দেয়ার পর ফলাফল আসা পর্যন্ত তাদের আলাদা করে রাখা হচ্ছে।

লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা : জেলার লক্ষ্মীছড়ি উপজেলায় ২জনের দেহে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হওয়ার পর তাদের সংস্পর্শে আসা আরো ১৯জনের নমুনা সংগ্রহ করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। ২২জুন সোমবার লক্ষ্মীছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বিশেষ ব্যবস্থায় হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা ১০পুলিশ সদস্য এবং লিটনের পরিবার ও প্রতিবেশীদের আরো ৯জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। 

লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: কাজি সাইফুল ইসলাম জানান, আমার অধিকতর সতর্কতা হিসেবে যাদের শরীরে পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে তাদের সংস্পর্ষে আসা ব্যক্তিদের নমুনা সংগ্রহ করেছি। লক্ষ্মীছড়ি থানার পুলিশ সদস্য মো: সাখাওয়াত হোসেনকে লক্ষ্মীছড়ি হাইস্কুলে একটি কক্ষে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে এবং উপজেলা সদরের বেলতলী পাড়ায় লিটনের বাড়িটি পজিটিভ রিপোর্ট আসার পর পরই লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। বাহির থেকে কোনো মানুষ আসা-যাওয়া কিংবা ওই বাড়ির কোনো লোকজন যাতে অন্তত: ১৪দিন ঘর থেকে বের না হয় সেই অনুরোধ জানান তিনি। এই মহামারি করোনা থেকে বাঁচতে সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহবান জানান। ভয় নয়, একটু সাবধানতাই রক্ষা করতে পারে এহেন করোনা ভাইরাসের ভয়াভহতা। গত ১৪ই জুন ক´বাজার উখিয়া ফেরত লক্ষ্মীছড়ি থানার ৪জন পুলিশ সদস্য এবং ৩জন সাধারণ রোগীর পরীক্ষার জন্য নমুনা পাঠানোর পর ২১জুন ২জনের দেহে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে বলে ফলাফল আসে।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশে করোনা শনাক্তের ৫২তম দিনে খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছিল। এরপর থেকে জেলার বিভিন্ন উপজেলায় শনাক্ত হতে থাকে করোনা পজেটিভ। সাধারণ ছুটি, ঈদুল ফিতর ও বৈসাবি’র পরপর উদ্বেগজনক হারে বাড়তে শুরু করেছে করোনা আক্রান্ত হওয়া রোগীর সংখ্যা। সবশেষ (২৫ জুন) পর্যন্ত খাগড়াছড়ি জেলায় ১৮৮জন করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়েছে। যার মধ্যে ৭০জনই পুলিশ সদস্য। আক্রান্ত হওয়ার তালিকা থেকে বাদ পড়েনি চিকিৎসক, নার্সরাও আনসার বাহিনী।

এই বিভাগের অন্যান্য খবর