Opu Hasnat

আজ ১৩ জুলাই সোমবার ২০২০,

যা করেছি ভালোবেসেই করেছি বিনোদন

যা করেছি ভালোবেসেই করেছি

সেই প্রথম যেদিন খেলাচ্ছলে খেলনা ছবিতে গেলাম সেদিন বুঝতেই পারিনি আমি কাজ করছি। সাদ ভাই বলল ছবি আকতে আমিও একে দিলাম। পরে জানলাম যা করলাম সেটাকে স্টোরি বোর্ডিং বলে। এভাবেই শুরু। এরপর অনেক গুলো বছর কেটে গেছে। নিজে একটা শর্ট ফিল্ম পরিচালনা করলাম। একটা বই লিখলাম। অভিনয়টাও করলাম। এতদিন বাদে এসে খেয়াল করছি অর্থ উপার্জন মুখ্য ছিলোনা যা করেছি ভালোবেসেই করেছি। 

আমার ‘দ্য রেইন ইজ ফোরকাস্ট’ ছবিটা যেদিন প্রথমবার বড় স্ক্রিনে দেখলাম সেদিন একটা অসাধারণ অনুভূতি হয়েছিল। ভাবছিলাম সারাজীবন বড় স্ক্রিনের জন্যই কাজ করবো। পরে অবশ্য অনেক কিছুই করতে হয়েছে। 

একটা ফিচার ফিল্ম বানাতে গিয়ে পরে সেটা না করে বই লিখতে শুরু করি।  জনপ্রিয় মডেল অভিনেত্রী ও ডেন্টিস্ট নায়লা নাঈমের জীবনী। ‘নায়লা নাঈম দ্য কুইন অব কোন্ট্রোভার্সি পার্ট ওয়ান’ শিরোনামে আসছে বইটি। 

বই এর প্রথম খন্ড শেষ করতেই  দেশের চলচ্চিত্র ইতিহাসের সাক্ষি হবার সুযোগ মেলে আমার। অংশগ্রহণ করি দেশের তথা বাংলা ভাষার প্রথম ত্রিমাত্রিক চলচ্চিত্র "অলাতচক্র" নির্মাণের কাজে। 

নিজেকে সত্যিই ভাগ্যবান মনে হয় যখন দেখি আমি প্রকৃতপক্ষেই চলচ্চিত্রের সেই সব মেধাবী মানুষদের সাথে কাজ করছি এবং প্রিতিনিয়ত নতুন নতুন বিষয়ে জানতে পারছি। আমার এই  পরিসর এই কর্ম ও বিচরণ ক্ষেত্র নিয়ে সত্যিই আমি আনন্দিত, গর্বিত। এখানে সব থেকে যে জিনিসটা আমাকে বেশী প্রেরণা দেয় তা হলো অংসখ্য মানুষের ভালোবাসা, তাদের কথা, তাদের সান্নিধ্য। 

চলমান পরিস্থিতিতে সবার সাথে দেখা হয় না। আগের মত কাজও হয়না। সমাগমের মধ্যে সদা উজ্জীবিত মন তাই বেশ অনেকটাই বিষন্ন একা একা বসবাস করা এই সময়ে।

অনলাইনে কিংবা ফোনে অনেকের সাথে কথা হয় তবে জটলা ধরে বসে চায়ের কাপে ঝড় তোলার মত সুখ কি আর অনলাইন দিতে পারে? 

কিছুদিনের মধ্যে (সামনের ঈদে অথবা তার আগেই) আমার অভিনীত  ‘ঢাকা ১২০৯’ ওয়েব সিরিজটি মুক্তি পাচ্ছে অনলাইনে। শুটিং এর দিনগুলো খুব মিস করি। ওয়েব সিরিজটির নির্মাতা তৌহিদ আশরাফ খুবই সংবেদনশীল একজন মানুষ।

আশা করি খুব শীগ্রই দেশ দুর্যোগ মুক্ত হবে আর  আমরা শুটিং এ ফিরবো পরের সিজন নিয়ে। 

আমাদের জনসমাগমের সেই দিনগুলো আবার ফিরে আসবে। প্রচুর কাজ করবো, অনেক আনন্দ হবে। যা করেছি ভালোবেসেই করেছি, যা করতে চাই তাও ভালোবেসেই।