Opu Hasnat

আজ ৯ জুলাই বৃহস্পতিবার ২০২০,

সেই জামিলা এখন বৃদ্ধাশ্রমে! গাইবান্ধা

সেই জামিলা এখন বৃদ্ধাশ্রমে!

এল.এন.শাহী, গাইবান্ধা থেকে : গাইবান্ধা পৌরসভার জুম্মাপাড়ার কুটিপাড়ার একটি মাজারে দীর্ঘ ২৫ বছর খেয়ে না খেয়ে জীবন অতিবাহিত করা বৃদ্ধা জামিলা বেগমকে করোনা কারণে উচ্ছেদ করে এলাকাবাসী। এরপর গত রমজান মাসে কখনো ব্রীজরোডের নতুন বাধ এলাকার গাছতলায়, কখনো মর্ডান উচ্চ বিদ্যায়লমাঠে কষ্টে জীবন যাপন করছিলেন বয়সের ভারে নুয়ে পড়া অসুস্থ বৃদ্ধা জামিলা বেগম। ব্রীজরোডের আকাশ, আপেল, রবিনসহ কয়েজন যুবক বৃদ্ধার প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা দেওয়ার পর থাকা এবং খাওয়ার ব্যবস্থা করে। পরে বিষয়টি গাইবান্ধা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রসুণ কুমার চক্রবর্তীকে জানানো হলে তিনি বৃদ্ধার পুনর্বাসনের আশ্বাস প্রদান করেন। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খান মো. শাহরিয়ার এসে ওই বৃদ্ধাকে উদ্ধারের পর গাইবান্ধা জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রসুণ কুমার চক্রবর্তীর দিক নির্দেশনায় সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খান মো. শাহরিয়ার এর মানবিক পদক্ষেপে ৪০ বছর আগে ভিটেমাটি ও স্বামী সন্তান হারিয়ে নিঃস্ব  সেই অসুস্থ বৃদ্ধা মায়ের ঠাঁই হয়েছে বৃদ্ধাশ্রমে। গত ৩০ মে শনিবার দুপুরে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডের বোয়ালিয়া সীভাবাড়িতে অবস্থিত বৃদ্ধ সেবা বৃদ্ধাশ্রম সংস্থা নামে একটি বেসরকারি বৃদ্ধাশ্রমের প্রতিনিধিদের কাছে তাকে হস্তান্তর করা হয়। এর আগে গাইবান্ধা জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বৃদ্ধা জামিলা বেগমকে এ্যাম্বুলেন্সযোগে বৃদ্ধাশ্রমে নিয়ে যাওয়া হয়। 

গাইবান্ধা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রসুণ কুমার চক্রবর্তী বলেন, মানুষ মানুষের জন্য। সমাজে ভাসমান অনেক অসহায়, দুস্থ ও নিঃস্ব বৃদ্ধ-বৃদ্ধা রয়েছেন। তাদেরকেও যদি খাদ্য, আবাসন ও চিকিৎসা দেওয়া যেত তবে আরও বেশি সন্তুষ্ট হতে পারতাম। 

এই বিভাগের অন্যান্য খবর