Opu Hasnat

আজ ১৬ জুলাই বৃহস্পতিবার ২০২০,

সিংগাইরে দু’গ্রুপের দফায়-দফায় সংঘর্ষ, যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম মানিকগঞ্জ

সিংগাইরে  দু’গ্রুপের দফায়-দফায় সংঘর্ষ, যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম

সোহরাব হোসেন, সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) : মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার জয়মন্টপ ইউনিয়নে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে উপজেলা প্রশাসন থেকে ঘোষিত লকডাউনকে অমান্য করে  সোমবার (১ জুন) দু’গ্রুপের মধ্যে দফায়-দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে জয়মন্টপ নতুন বাসষ্ট্যান্ডের স্কুল মার্কেটে সকাল ১১ টার দিকে উপজেলা যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেনকে (৩২) কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। প্রতিবাদে ভাঙচুর করা হয়েছে ইউপি অফিসের দরজা-জানালা ও দু’টি মোটর সাইকেল।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, যুবলীগ নেতা আলমগীর হোসেনের ফুফাত ভাই রনির সাথে পার্শ্ববর্তী কিটিংচর গ্রামের জুয়েলের তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত শনিবার মারধরের ঘটনা ঘটে। এরই জের ধরে পরদিন রোববার জুয়েল গ্রুপের লোকজনের সাথে বাগ-বিতন্ডার এক পর্যায়ে প্রতিপক্ষ গ্রুপের দুলাল ড্রাইভারকে মারধর করে। রুপ নেয় আধিপত্য বিস্তারে। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা চলছিল। সোমবার (১ জুন) সকাল ১১ টার দিকে জুয়েল গ্রুপের লোকজন যুবলীগ নেতা আলমগীর হোসেনকে কুপিয়ে জখম করে। এ খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে প্রতিবাদে আলমগীর গ্রুপের লোকজন ইউপি অফিসের দরজা-জানালা ভাঙচুর করে। সেই সঙ্গে জয়মন্টপ উচ্চ বিদ্যালয়ের গেইটের সামনে রাখা শিক্ষক শামীম কাজীর ১ টি পালচার ও বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য মহিদুর রহমানের ১টি এফজেড মোটর সাইকেল ভাঙচুর করে। এ সময় চারদিকে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

আলমগীর অভিযোগ করে বলেন, চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে মিটিং শেষে ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি মনজরুল করিম ও নূর মোহাম্মদের নেতৃত্বে আমার ওপর হামলা করা হয়। এ সময় আমাকে দা দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে তারা। বর্তমানে তিনি সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলেও  জানান।

জয়মন্টপ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইঞ্জিঃ শাহাদৎ হোসেন বলেন, আমি জয়মন্টপ উচ্চ বিদ্যালয়ে মিটিংয়ে থাকাবস্থায় জুনিয়র দু’গ্রুপের মধ্যে মারধরের জেরে আমার অনুপস্থিতিতে ইউপি অফিসে হামলা করে দরজা জানালা ভাঙচুর করা হয়েছে। এ ঘটনায় মন্জরুল করিম ও নূর মোহাম্মদের কোনো সম্পৃক্ততা ছিল না দাবী করে চেয়ারম্যান আরো বলেন, নির্দোষ নূর মোহাম্মদ আলমগীরের বাবার মারধরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এ ব্যাপারে সিংগাইর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুস সাত্তার মিয়া বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন।

উল্লেখ্য, গত ২৭ মে জয়মন্টপ বাজারের মুদি ব্যবসায়ী বাদল সাহার করোনা সংক্রমণে মৃত্যু হওয়ায় ওই ইউনিয়নকে উপজেলা প্রশাসন লকডাউন ঘোষনা করেন।