Opu Hasnat

আজ ৮ জুলাই বুধবার ২০২০,

সিংগাইরে গলায় রশি বেঁধে শ্যালিকাকে ধর্ষণ! নারী ও শিশুমানিকগঞ্জ

সিংগাইরে গলায় রশি বেঁধে শ্যালিকাকে ধর্ষণ!

মো. সোহরাব হোসেন, সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) : মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার ধল্লা ইউনিয়নের খাসেরচর লাঙ্গুলিয়া গ্রামে দুলা ভাইয়ের বিরুদ্ধে শ্যালিকাকে গলায় রশি বেঁধে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার (৩০ মে) ভিকটিম (১৫) বাদী হয়ে অভিযুক্ত দুলা ভাই হাফিজ উদ্দিনের (৩০) বিরুদ্ধে থানায় লিখিত ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযুক্ত হাফিজ ওই গ্রামের ফেলুর পুত্র ও এক কন্যা সন্তানের জনক।

ভিকটিম ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, হাফিজ উদ্দিন তার স্ত্রীর ছোট বোনকে (শ্যালিকা) বিভিন্ন সময় উত্যক্ত করতো। শ্যালিকার বিয়ের প্রস্তাব আসলেও তার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক আছে বলে প্রচার করে বিয়ে ভেঙ্গেঁ দিত। এ নিয়ে স্থানীয়ভাবে একাধিকবার গ্রাম্য সালিশ হয়। সর্বশেষ মাস ছয়েক পূর্বে সালিশ বৈঠকে স্থানীয় আজিম উদ্দিন, নুরুল হক মাতাব্বর, বোরহান উদ্দিন, আব্দুল কাদের, আব্দুল আজিজ, আউয়াল, তাছের মোল্লা ও নাজিম উদ্দিনসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যাক্তিদের উপস্থিতিতে হাফিজকে চড়-থাপ্পর দিয়ে ভবিষ্যতের জন্য সতর্ক করে শাসিয়ে দেয়া হয়। তারপরও সে শ্যালিকাকে সুযোগ পেলেই কুপ্রস্তাব দিতে থাকে। গত শুক্রবার (২৯ মে) দুপুরের দিকে ভিকটিম নিজ বাড়িতে ঘুমিয়ে থাকে। এ সুযোগে হাফিজ ঘরে ঢুকে রশি দিয়ে শ্যালিকার গলা বেঁধে শ্বাসরোধ  করে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এ সময় ভিকটিমের বড় বোন স্বামী হাফিজকে খুঁজতে পার্শ্ববর্তী বাবার বাড়িতে গিয়ে বোনকে এ অবস্থা থেকে উদ্ধার করে। 

লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ শনিবার দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। অভিযুক্ত হাফিজ উদ্দিনকে বাড়িতে পাওয়া যায়নি। তবে তার মা হাবেজা বেগম বলেন, বিষয়টি নিয়ে এলাকার লোকজন সালিশ বৈঠক বসে মিমাংসার কথা হয়েছে।

এ ব্যাপারে অভিযোগের তদন্ত কর্মকর্তা এসআই হাসান আলী বলেন, ধর্ষনের লিখিত অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। ওসি স্যারের সঙ্গে কথা বলে আইনগত ব্যাবস্থা নেয়া হবে।