Opu Hasnat

আজ ১ জুন সোমবার ২০২০,

মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়র ফার্মাসিষ্ট মো: শহিদুল ইসলাম করোনায় আক্রান্ত মুন্সিগঞ্জ

মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়র ফার্মাসিষ্ট মো: শহিদুল ইসলাম করোনায় আক্রান্ত

মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়র ফার্মাসিষ্ট মো: শহিদুল ইসলাম করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। গত ১৭ মে তার নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠানো হলে ১৯ মে তার করোনা সনাক্ত হয়। বর্তমানে তিনি শহরের খালইষ্ট এলাকায় নিজ বাসভবনে আলাদা রোমে থেকে হোম কোয়ারেন্টিনে বিশেষ চিকিৎসায় আছেন। 

এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন মুন্সীগঞ্জ জেলার সিভিল সার্জন ডা: আবুল কালাম আজাদ। 

সিভিল সার্জন আরো জানান, মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের একমাত্র সিনিয়র ফার্মাসিষ্ট মো: শহিদুল ইসলাম ৩০ বছরের চাকরি জিবনে গত ১০ বছর যাবত এখানে রোগীদের নিবেদিত-আন্তরিকতার সাথে ওষুধ বিতরন করে আসছেন। করোনা ঝুকির মধ্যেও তিনি নিজের জিবনের কথা চিন্তা না করে প্রতিদিন স্ব-শরিরে উপস্থিত থেকে আগত রুগীদের ওষুধ বিতরনের সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। আমি তার দ্রুত সুস্থতা কামনা করছি।

এ প্রসঙ্গে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়র ফার্মাসিষ্ট মো: শহিদুল ইসলাম জানান, বর্তমানে করোনা ঝুকির মধ্যেও হাসপাতালে আগত শত শত রুগীদেরকে ওষুধ প্রদানের মাধ্যমে সেবা দিয়ে আসছি। সেবা নিতে আসা কোন রুগীর মধ্যে করোনা ভাইরাস ছিল যে মরন ভাইরাস আমাকেও আক্রমন করতে পারে সে তোয়াক্কা না করেই মানুষের সেবা করে গেছি এবং আগামীতেও করবো। আল্লাহ যদি সুস্থ করে বাঁচিয়ে রাখেন তাহলে আবারো বর্তমান করোনা যুদ্ধে সম্মুখ যোদ্ধা হয়ে মুন্সীগঞ্জের অসহায়-রুগীদের পাশে থেকে সেবা করে প্রয়োজনে নিজেকে উৎস্বর্গ করে দিবো। সিনিয়র ফার্মাসিষ্ট মো: শহিদুল ইসলাম তার সুস্থতার জন্য সবার কাছে দোয়া প্রার্থনা করেছেন।

প্রসঙ্গত, মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়র ফার্মাসিষ্ট মো: শহিদুল ইসলামের পৈত্রিক বাড়ি জেলার লোহজং উপজেলার কনকসার ইউনিয়নের মসতগাও গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের মো: আব্দুর রফিক ঢালীর ছেলে। তিনি ২০১০ সাল থেকে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে সিনিয়র ফার্মাসিষ্ট হিসেবে কর্মরত আছেন।