Opu Hasnat

আজ ৩ জুন বুধবার ২০২০,

ব্রেকিং নিউজ

আম্পানের তান্ডবে ১১ জনের প্রাণহানী জাতীয়

আম্পানের তান্ডবে ১১ জনের প্রাণহানী

সুপার সাইক্লোন ‘আম্পান’ এর তাণ্ডবলীলা চলছে। বুধবার সন্ধ্যার দিকে সুন্দরবনে আঘাত হানে। এ সময় ঝড়ের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১৬০ থেকে ১৮০ কিলোমিটার। প্রবল বেগের এই ঝড় সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাটসহ উপকূলীয় এলাকা লণ্ডভণ্ড করে দিয়েছে।

এদিকে রাত দুইটায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত গাছ ও দেয়ালচাপায় এবং নৌকাডুবিতে বিভিন্ন স্থানে ১১ জনের প্রাণহানীর খবর পাওয়া গেছে। 

ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে কারণে দেশের সাত জেলায় ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২১ মে) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে এক বার্তায় এ তথ্য জানানো হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম সহকারী পরিচালক আয়েশা আক্তার জানান, নিহতদের মধ্যে পটুয়াখালীতে  ২ জন, ভোলায় ১, পিরোজপুরে ৩, সাতক্ষীরায় ১, যশোরে ২, ঝিনাইদহে ১ এবং চট্টগ্রামে একজন মারা গেছেন।

তিনি বলেন, চারজন গাছ চাপা পড়ে, একজন নৌকাডুবিতে, একজন ট্রলারডুবিতে, একজন দেয়াল চাপা পড়ে এবং দুইজন পানিতে ডুবে মারা গেছেন। অপর একজন কিভাবে মারা গেছে তা নিশ্চিত করে জানা যায়নি।

এদিকে অতি মারাত্মক ঘূর্ণিঝড় 'আম্ফান' ক্রমশ দুর্বল হয়ে গভীর স্থল নিম্নচাপে পরিণত হয়ে বাংলাদেশ উপকূল থেকে উত্তর-উত্তর-পূর্ব দিকে সরে গেছে। এজন্য দেশের চারটি সমূদ্রবন্দরকে আগের মহাবিপদ সংকেত নামিয়ে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়ছে।

এবারো দেবদূত সুন্দরবন। ঢাল হয়ে দাঁড়ানোয় উপকূলীয় জনপদে জীবন ও সম্পদের বড় ধরনের ক্ষতি হয়নি। তবে সরাসরি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দেশের ১৪ টি জেলা।

ঘরবাড়ি ভেঙে যাওয়া, গাছপালা উপড়ে যাওয়াসহ বিভিন্ন এলাকায় বিদ্যুতের খুঁটি উপড়ে সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়েছে। উপকূলের ৫১ লাখের বেশি গ্রাহক বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।