Opu Hasnat

আজ ৪ জুন বৃহস্পতিবার ২০২০,

দৌলতদিয়ায় হাজারো যাত্রীর ফেরি ভীরতে দিলো না রাজবাড়ী জেলা পুলিশ রাজবাড়ী

দৌলতদিয়ায় হাজারো যাত্রীর ফেরি ভীরতে দিলো না রাজবাড়ী জেলা পুলিশ

করোনা ভাইরাস থেকে দক্ষিনাঞ্চলের ২১ জেলার মানুষকে বাচাতে এবার কঠোর অবস্থান নিয়েছে রাজবাড়ী জেলা পুলিশ। বুধবার দুপুরে রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার মিজানুর রহমানের নির্দেশনায় অন্তত তিন হাজার যাত্রী নিয়ে মানিগঞ্জের পাটুরিয়া থেকে ছেড়ে আসা “ফেরি ঢাকা” কে আবার মানিকগঞ্জের পাটুরিয়ায় ফেরত পাঠিয়েছে পুলিশ সদস্যরা।

এ সময় ফেরিতে থাকা যাত্রীরা উত্তেজিত হয়ে পরলে জেলা পুলিশের সদস্যরা তাদের বোঝাতে থাকে। এক পর্যায়ে ফেরি কর্তৃপক্ষকে অবগত করে ফেরিটিকে আবার ফেরত পাঠানো হয়।

এদিকে অবৈধভাবে কেউ যাতে ইঞ্জিন চালিত ট্রলারে নদী পার হতে না পারে সেজন্য পদ্মা নদীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান অব্যহত রেখেছে গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশ। 

বুধবার দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত তারা ট্রলার নিয়ে পদ্মা নদীর দৌলতদিয়া, বাহির চর, আন্ধার মানিক ও কলা বাগান এলাকাসহ বেশ কয়েকটি এলাকায় অভিযান চালিয়ে ট্রলার থেকে যাত্রীদের নামিয়ে দেয় এবং পরবর্তীতে কেউ ট্রলারে যাত্রী পরিবহন করলে আইনের আওতায় আনার কথা বলেন।

এদিকে করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় ফেরি চলাচল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হলেও দুটি ফেরি দিয়ে জরুরী এ্যাম্বুলেন্স পার করার কথা বলে ওই ফেরি দুটিতে রহস্যজনক ভাবে হাজার হাজার যাত্রী পার করছে বিআইডব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষ। যাত্রী পারাপার দেখা হতাশা প্রকাশ করেছে স্থানীয়রা।

যাত্রীরা অভিযোগ করে জানিয়েছেন, ফেরি চলাচল বন্ধ ? তাহলে টিকিট বিক্রি হচ্ছে কিভাবে ? ফেরি কর্তৃপক্ষ কঠোর অবস্থানে থাকলে এভাবে সামাজিক দুরত্ব না মেনে কেউ পার হতে পারতো না।  

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাটের ব্যবস্থাপক আবু আব্দুল্লাহ রনি টেলিফোনে জানান, কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে একান্ত জরুরী এ্যাম্বুলেন্স ও মন্ত্রনালয়ের জরুরী যানবাহন পারাপারের জন্য দুটি ফেরি রাখা হয়েছে। সেক্ষেত্রে যাত্রীরা জোড় করেই ফেরিতে উঠে পরলে আমাদের কিছু করার থাকে না।

রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান পিপিএম বলেন, নদীর এপারের জেলাগুলোর মানুষকে করোনার হাত থেকে বাঁচাতে আমরা আর কঠোর না হয়ে পারলাম না। দুপুরে যখন খবর পেলাম একটি ফেরিতে হাজার হাজার যাত্রী আসছে তখন গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি আশিকুর রহমানকে নির্দেশ দিলাম ফেরিটি যাতে কোনক্রমেই দৌলতদিয়ায় ভীরতে না পারে। আমাদের পুলিশ সদস্যরা এখনও নদীতে কাজ করছে। যাত্রী নিয়ে কোন ফেরি যাতে এপারে না আসতে পারে সেজন্য জেলা পুলিশ ঘাটে অবস্থান করছে। পাশাপাশি ওইপার থেকে কেউ যাতে ফেরিতে না উঠতে পারে সেব্যপারে পদক্ষেপ নিতে বিআইডব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করা হয়েছে।