Opu Hasnat

আজ ৪ জুন বৃহস্পতিবার ২০২০,

ফেসবুকে শিশু মুনতাহার ছবির দাম উঠলো ২০০১ টাকা নারী ও শিশুরংপুর

ফেসবুকে শিশু মুনতাহার ছবির দাম উঠলো ২০০১ টাকা

যখন ত্রাণের চাল চুরি, প্রধানমন্ত্রীর ইদ উপহারের অর্থ প্রদানে অনিয়মের অভিযোগ শুনে মানুষ যখন দিশেহারা। ঠিক তখন ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য ৬ বছরের শিশু মুনতাহা মারসি’রা শেষ ভরসা।  রংপুর আইজিএস স্কুলের কেজি শ্রেণির শিক্ষার্থী মারসির আঁকা ছবি নিলামে দাম উঠলো ২০০১ টাকা।

সম্প্রতি করোনা সংকটে মারসির বাবা কবি ও প্রকাশক সাকিল মাসুদ সুবিধা বঞ্চিত মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে মানবিক উপহার বিতরণ করছিলেন। তা দেখে শিশু মারসির কোমল মন মানুষের পাশে দাাঁড়াবার জন্য অনুপ্রাণিত হয়। পাশাপাশি গণমাধ্যমে খেলোয়াড়দের ব্যাট নিলামের খবর দেখে মারসি খেলার ছলে তার আঁকা ছবি বাবাকে নিলাম করার জন্য ইন্টারনেটে দিতে বলেন। ছবিটি নিলামের জন্য তার বাবা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘প্রকাশক সাকিল মাসুদ’ আইডিতে প্রচার করলে রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান ও সমাজসেবক আব্দুর রাজ্জাক ২০০১ টাকা ছবিটির মূল্য নির্ধারণ করেন,  কথা সাহিত্যিক রানা মাসুদ ১০০১ টাকা, একই সময় ঢাকা থেকে দুরন্ত টেলিভিশনের সিনিয়র ভিডিও এডিটর এম এ রশিদ ১০০১ টাকা দাম প্রকাশ করেন।

সাকিল মাসুদ জানান, শিশুরা যা দেখবে তাই শিখবে। আমার মেয়ে আমার ভালো কাজ দেখে অনুপ্রাণিত হয়েছে। সে আমাকে বলছিলো, “বাবা, আমারতো টাকা নেই, আমার ছবিগুলো ইন্টারনেটে দাও। বিক্রি হলে সব টাকা দিয়ে আমিও গরিব মানুষকে সাহায্য করবো।” এখানে এই ছবিটির শিল্পমূল্য কিংবা আর্থিক মূল্য কী? আমি জানিনা। তবে এর মানবিক মূল্য অনেক বেশি।সেকারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছবিটি নিলামের উদ্দেশ্যেই শেয়ার করেছি। তা দেখে ইতোমধ্যে অনেকে দামও হাঁকিয়েছেন। ছবিটি বিক্রি হলে সমুদয় অর্থ সুবিধাবঞ্চিত মানুষের মাঝে বিতরণ করা হবে।

মানবিক মূল্য হিসেবে ছবির দাম আরো অনেক বেশি আশা করছে অনেকেই। নিলামের ফলাফল ২৫ তারিখে ঘোষণা করা হবে বলে জানান কবি সাকিল মাসুদ।