Opu Hasnat

আজ ৩ জুন বুধবার ২০২০,

ব্রেকিং নিউজ

নড়াইলে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে বৃদ্ধাকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ নড়াইল

নড়াইলে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে বৃদ্ধাকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার লাহুড়িয়া ইউনিয়নের সায়মানারচর গ্রামে নিজ বাড়িতে খুন হয়েছেন রহিমা বেগম (৫৫) । তাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বত্তরা। মঙ্গলবার (১২ মে) রাত সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত রহিমা সায়মানারচর গ্রামের কৃষক আকবর মোল্যার স্ত্রী। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একজনকে আটক করেছে পুলিশ।  

নিহতের পরিবারের দাবি, মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে স্বামী আকবর মোল্যাকে বাড়ির পাশে বেঁধে রেখে তার স্ত্রী রহিমাকে উঠানে হত্যা করে ফেলে যায় প্রতিপক্ষরা। প্রতিপক্ষের লোকজন ছাগল লুট করতে তাদের বাড়িতে গেলে, তারা ঘর থেকে বের হয়। এ সময় প্রতিপক্ষের লোকজন আকবর মোল্যাকে বেঁধে তার স্ত্রীকে হত্যা করে। তবে কারা এ হত্যাকান্ডে অংশ নেয়, তা-পুলিশকে স্পষ্ট করেননি আকবর মোল্যা। এ সময় বাড়িতে আকবর মোল্যা, তার স্ত্রী রহিমা, এক ছেলে (১৫) ও দুই নাতনি ছিলেন। 

 জানা যায়, আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে সায়মানারচর গ্রামের বুলবুল মাস্টার ও মুসা মেম্বারের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলে আসছে। বুলবুল মাস্টারের পক্ষের লোকজন জানান, নিহত রহিমা বেগমের স্বামী আকবর মোল্যা হলেন বুলবুল মাস্টারের লোক। প্রতিপক্ষ মুসা মেম্বারদের লোকজন এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে। তবে এলাকায় গুঞ্জন রয়েছে-প্রতিপক্ষের লোকজনকে ফাঁসাতে বয়োবৃদ্ধ রহিমাকে নিজেরা হত্যা করেছে। গুঞ্জনের বিষয়টি পুলিশও খতিয়ে দেখছে। 

এ গ্রামের খান মনিরুল ইসলাম জানান, বুলবুল মাস্টারের নেতৃত্বে মুসা মেম্বরের বাড়ি সহ এলাকার অন্তত: ১৫টি বাড়ি ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। লুটপাট ও ভাংচুরের ঘটনা ধামাচাপা দিতে এবং মামলা ঠেকাতে বুলবুল মাস্টারের পরিকল্পনায় নিজেরাই এ খুনের ঘটনা ঘটিয়ে প্রতিপক্ষকে ফাঁসানোর অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। 

এ ব্যাপারে লাহুড়িয়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মনিরুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে রাতেই তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে রহিমা বেগমের মৃতদেহ উদ্ধার করেন। নিহতের মুখের বাম পাশে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নড়াইল সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। 

লোহাগড়া থানার ওসি সৈয়দ আশিকুর রহমান বলেন, রহিমা বেগমকে কে বা কারা হত্যা করেছে, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একজনকে আটক করা হয়েছে। পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসীম উদ্দিন পিপিএম জানান, তদন্ত সাপেক্ষে এ খুনের সাথে জড়িত প্রকৃত অপরাধিদের সনাক্ত করে আইনের আওতায় আনা হবে।