Opu Hasnat

আজ ৪ জুন বৃহস্পতিবার ২০২০,

দোয়ারাবাজারে জমি নিয়ে বিরোধে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৩৬ সুনামগঞ্জ

দোয়ারাবাজারে জমি নিয়ে বিরোধে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৩৬

সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার উপজেলায় জমি নিয়ে পূর্ববিরোধের জেরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে ৩৬ জন আহত হয়েছে। এসময় আব্দুল খালেকের পক্ষের লোকজনের একটি ঘরও ভাঙচুর করা হয়। 

বুধবার বিকেলে উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের কদমতলী গ্রামে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটে। আহতদের দোয়ারাবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতরা হলেন- আব্দুল খালিকের গ্রুপের রহিমা বেগম (৪৫), সৈয়দুন নেছা (৩৫), সোনারা বেগম(২৭), ইউসুফ আলী(৬৫), ফরিদ মিয়া(২৬),আব্দুল হান্নান(৪০), সমসু মিয়া (২৭), মামুনা বেগম(৭), জাহাঙ্গীর(২০), অযুত মিয়া(৪০), সহিদ মিয়া(৩২), সিরাজ মিয়া(৩৮), আমিরুন নেছা(২৫), মিনার (১৮), মতিন(২৮), কামাল(২২) সুজন (২১)। মাওলানা সফিক উদ্দিন গ্রুপের আহতরা হলেন, নুরুল ইসলাম (৬৫), আশরাফ আলী(৫৫), মাহমদ আলী (৫০), হুছন আলী(৪৫), কেরামত আলী (৫০), আছমত আলী(৬৫), আনছর আলী (৩৫), সামছুল(২৩), সফিকুল ইসলাম (৪৩)। আইনুদ্দিন(৩৫), জরিনা(৩০), আজিয়া(৩০), জিকরা আক্তার(১৫), সুহেনা(১২), জাহানারা(৪০), রাবিয়া(৪৫), মনোয়ারা বেগম(২৮)।

ঘটনা সুত্রে জানা যায়, আব্দুল খালিক গ্রুপের সাথে মাওলানা সফিক উদ্দিন গ্রুপের মধ্যে জমি জমা নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত মারামারি ও মামলা মোকদ্দমা চলে আসছিল। গত ডিসেম্বর মাসে জমিতে ধান কাটা ও জমিতে ঘর উঠানো ও মাটি কাটাকে কেন্দ্র করে বুধবার বিকেলে দুই পক্ষের সংঘর্ষে ৩৬ জন আহত হন। খবর পেয়ে দোয়ারাবাজার থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। 

এ ব্যপারে আব্দুল খালিক বলেন, আমার রেকডীয় জমিতে ঘর বেধে বসবাস করছে আমার ভাতিজার পরিবারের লোকজন। সেই ঘরটি মাওলানা সফিক উদ্দিনের লোকজন ও মান্নারগাও ইউনিয়নের জালালপুর গ্রামের কলমদর আলীর ছেলে রেজাসহ তার ৩ তিন ভাই ও তাদের আত্মীয়-স্বজন সবাই মিলে বাড়িতে এসে লুঠপাঠ করে আমাদের ঘরের বাঁশপালা সহ ঘরের সকল মালামাল ও নগদ টাকা সহ প্রায় লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। আমরা বাঁধা দিলে আমাদের মহিলা সহ ১৮ জনকে মেরে আহত করে। 

মাওলানা সফিকুল ইসলাম বলেন, আব্দুল খালেকের বাবা আলখাছ আলী আমাদের কাছে ১ কেদার জমি বিক্রি করলেও দীর্ঘদিন যাবত আমাদের রেকডীয় ভুমিতে দখল না দিয়ে খাস জমি সমজাইয়া দেয় তারা। আমরা রেকর্ডের জমিতে দখল নিতে গেলে আব্দুল খালেক তার বাবার বিক্রি করা বিষয়টি অস্বীকার করছে। আমাদের জায়গা থেকে জোর পুর্বক মাটি কাটছিল আমরা বাঁধা দিলে খালিকের লোকজন অতর্কিত হামলা চালায় এবং বাড়িঘর লুঠপাঠ করে। 

এ ব্যাপারে দোয়ারা থানায় ওসি মো. আবুল হাসেম বলেন, জমি জমা নিয়া দুই পক্ষের সংর্ষ বাঁধে। সংঘর্ষের খবর পেয়ে আমারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনি। আহতদের চিকিৎসার জন্য পাটানো হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত অভিযোগ করা হয়নি, অভিযোগ পেলে আইনানোগ ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

এই বিভাগের অন্যান্য খবর