Opu Hasnat

আজ ১ জুন সোমবার ২০২০,

সনৎ বসু’র দু’টি ভূতের ছড়া শিল্প ও সাহিত্য

সনৎ বসু’র দু’টি ভূতের ছড়া

অদ্ভূতুড়ে

রাত দুপুরে দাঁড়িয়ে ও কে আমার ছাদের কার্নিশে
শুটকো ঠেঙা, খোঁদল চোখো, রঙটি ঢাকা বার্নিশে
হাঁটছে জোরে ঠকাস ঠকাস
ল্যাকপ্যাকানো হাড়গিলে
উর্দি পরা,  মাথায় টুপি, যাচ্ছে যেন কারগিলে ৷

ডাকবো নাকি, ধমক দেবো, কানদুটো কি মুচড়াবো?
কিংবা গিয়ে দু-হাত দিয়ে চুল দাড়ি সব উপড়াবো?
এই যে ভায়া,  হচ্ছে কী সব?  এখন বাজে রাত দু-টো
হাঁটছো,  নাকি লাফাচ্ছো ভাই
করবে আমার ছাদ ফুটো?

যেই না বলা, চোখদু-টো তার 
জ্বললো যেন লাল গোলা
নাকের ফুটোয় ছুটলো আগুন
সে দৃশ্য কী যায় ভোলা,
হাত বাড়িয়ে ধরলো আমায় 
যেন খেলার পুতুলটা,
দাঁত খিঁচিয়ে ভয় দেখালো
করেছি হায় কী ভূলটা,
‘খবরদার,  আমার কাজে ব্যাঘাত যদি হয় আবার,
লঙ্কা দিয়ে চিবিয়ে খাবো
খাসাই হবে জলখাবার’,
বলেই ব্যাটা হাত সরালো
যেই খেয়েছি আছাড় ভাই
স্বপ্ন ছুটে তাকিয়ে দেখি
ওমা,  কোথাও কিছুই নাই ৷৷

***************

বুঁচকি ভূতের পুঁচকি ছেলে

রান্নাঘরে রাতদুপুরে
শব্দ ওঠে ঝাপুসঝুপুস
বুঁচকি ভূতের পুঁচকি ছেলে
খাচ্ছে যে ভাত হাপুসহুপুস
জানলা কপাট বন্ধ সবই
কেমন করো ঢুকলো ওটা
ভূত কি তবে হতেই পারে
ইচ্ছেমতন শুঁটকো মোটা!

যেই ভেবেছি আটকে ওকে
খবর দেবো কাছ -থানাতে
পুলিশ এসে সবক শেখাক
নইলে হবে হাড় হাভাতে
অমনি বেটা মারলো যে লাফ
উলটে দিয়ে ইটের দেয়াল
ভূত যে বোঝ মনের কথা
ভাবার সময় হয়নি খেয়াল

দৌড়ে গিয়ে হাত বাড়িয়ে
বাগিয়ে ধরি চুলের মুঠি
ওমা,  দেখি উধাও সে ভূত
হাত ছুঁয়েছে মাচার খুঁটি
হঠাৎ শুনি বাড়ির ছাদে
হাসির লহর হাহা হিহি
নাকি সুরে ডাকছে কে ও
আয় না সবাই জংলাডিহি !!