Opu Hasnat

আজ ৪ এপ্রিল শনিবার ২০২০,

দেশের বাজারে গ্যালাক্সি জি ফ্লিপ নিয়ে এলো স্যামসাং, প্রি-অর্ডার শুরু তথ্য ও প্রযুক্তি

দেশের বাজারে গ্যালাক্সি জি ফ্লিপ নিয়ে এলো স্যামসাং, প্রি-অর্ডার শুরু

ক্রেতাদের সুবিধাজনকভাবে ভাঁজযোগ্য (ফোল্ডেবল) স্মার্টফোনের বহুমুখী ব্যবহার নিশ্চিত করতে নতুন স্মার্ট ডিভাইস গ্যালাক্সি জি ফ্লিপ উন্মোচনের মধ্য দিয়ে বিশ্বকে চমকে দেয় স্যামসাং। ইতিমধ্যে, নতুন এই ভাঁজযোগ্য ফোনটি পুরো বিশ্বের নজর কেড়েছে। অবশেষে, বাংলাদেশের বাজারে আসছে গ্যালাক্সি জি ফ্লিপ। ইতিমধ্যে বাংলাদেশে স্মার্ট ডিভাইসটির প্রি-অর্ডার নেয়া শুরু করেছে স্যামসাং। 

গ্যালাক্সি জি ফ্লিপ ডিভাইসটিতে ভাঁজ করা যায় এমন কাঁচ ব্যবহার করা হয়েছে। ফোনটিতে ৬.৭ ইঞ্চির ডিসপ্লে রয়েছে, যা ভাঁজযোগ্য অবস্থায় যে কোন ব্যবহারকারীর হাতের তালুতে সুন্দরভাবে মানিয়ে যাবে। গ্যালাক্সি জি ফ্লিপে ইনফিনিটি ফ্লেক্স ডিসপ্লেসহ স্যামসাংয়ের নিজস্ব নমনীয় আল্ট্রা থিন গ্লাস (ইউটিজি) ব্যবহার করা হয়েছে। যা ডিভাইসটিকে পাতলা ও উজ্জ্বল করছে, এনেছে প্রিমিয়াম লুক অ্যান্ড ফিল। এই বিষয়গুলো, এর আগে বাজারে আসা কোন ভাঁজযোগ্য ফোনেই দেখা যায় নি। ফোনটির কেন্দ্রীয় ইন-ডিসপ্লে ক্যামেরা কাটআউটটি একদম উঁচুতে রয়েছে। অর্থাৎ, ডিভাইসটির স্ক্রিন ডিপ্লেতে কোন নচ নেই। তাই, ব্যবহারকারীর পছন্দের কন্টেন্ট উপভোগের ক্ষেত্রে কোনো ব্যাঘাত ঘটবে না। 

গ্যালাক্সি জি ফ্লিপের হাইডওয়ে হিঞ্জ ফোনটিতে নতুন মাত্রা যোগ করেছে। এই সিস্টেমটি ডুয়াল সিএএম মেকানিজমের সাহায্যে পরিচালিত হয়। এটি ছোট কিন্তু অত্যাধুনিকভাবে  নকশা করা হয়েছে। যা ডিভাইসটির প্রতিটি ফ্লিপ ও ফোল্ড স্থিরভাবে সম্পন্ন করবে। এছাড়াও, বিভিন্ন অ্যাঙ্গেলে ডিভাইসটিকে রাখলে, এটিকে ল্যাপটপের স্ক্রিনের মতো মনে হবে।  

এই ফোন দিয়ে ব্যবহারকারীরা তাদের সোশ্যাল মিডিয়ার জন্য কনটেন্ট তৈরি করতে পারবেন ও ১৬:৯ অ্যাসপেক্ট রেশিওতে ভিডিও রেকর্ডিং করতে পারবেন, যা সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলোতে আপলোডের জন্য উপযোগী। এক্ষেত্রে, ট্রাইপডের প্রয়োজন পড়বে না। নাইট মোডে  চমৎকার নাইট ল্যাপস ভিডিও কিংবা ভিভিড লো লাইট শটের ক্ষেত্রে কোন ফ্ল্যাশের প্রয়োজন পড়বে না। দৃশ্যবস্তুর কাছ থেকে  ভাজযোগ্য অবস্থায় পেছনের ক্যামেরা ব্যবহার করে এক হাত দিয়ে খুব দ্রুত মানসম্পন্ন সেলফি তোলা যাবে। জি ফ্লিপ ডিভাইসের পেছনে ১২ মেগাপিক্সেলের আল্ট্রাওয়াইড ও  ১২ মেগাপিক্সেল  ওয়াইড অ্যাঙ্গেল ক্যামেরা আছে, যা এলইডি ফ্ল্যাশের সাথে যুক্ত।  ডিভাইসটিতে ১০ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা আছে।

এ নিয়ে স্যামসাং বাংলাদেশের হেড অব মোবাইল মো. মূয়ীদুর রহমান বলেন, ‘গ্যালাক্সি জি ফ্লিপের ব্যতিক্রমী আকার, অত্যাধুনিক ডিসপ্লে এবং ক্রেতাদের স্মার্টফোন ব্যবহারের ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ নতুন অভিজ্ঞতা ভাঁজযোগ্য স্মার্টফোনের ক্যাটাগরিতে নতুন মাত্রা যোগ করেছে। গ্যালাক্সি জি ফ্লিপের অতুলনীয় ভাঁজযোগ্য নকশা ও ব্যবহারকারীদের অভিজ্ঞতার আলোকে বলা যায় আমরা নতুন করে অভিজ্ঞতা লাভ করছি যে মোবাইল ডিভাইস কেমন হতে পারে। ডিভাইসটি ব্যবহারকারীদের চাহিদানুযায়ী সব ধরনের সেবা প্রদান করে।'

গ্যালাক্সি জি ফ্লিপ ডিভাইসে গ্যালাক্সি ইকোসিস্টেমের সব সুবিধা রয়েছে। নতুন এই ভাঁজযোগ্য ফোনে ফ্ল্যাগশিপ লেভেল পারফরম্যান্স ও সিকিউরিটি, ব্যাটারি, ডিসপ্লে ও ক্যামেরার মতো ফিচার আছে। এছাড়াও, স্যামসাং হেলথ, স্যামসাং নক্সসহ আরও অনেক সেবা সংক্রান্ত বিষয় আছে। ব্যবহারকারীরা ফোরকে ভিডিও ক্যাপচার, লাইভ ফোকাস ও সুপার স্টেডি রেকর্ডিং-এর মতো বহুমুখী ক্যামেরা অভিজ্ঞতা উপভোগ করতে পারবেন। স্যামসাং গ্যালাক্সি জেড ফ্লিপ ডিভাইসে ৩,৩০০ এমএএইচ অপটিমাইজড ডুয়াল ব্যাটারি সুবিধা রয়েছে, যা অধিক জায়গা না ব্যবহার করে ব্যাটারির সক্ষমতা ধরে রাখে।

বাংলাদেশের ক্রেতারা এই এক্সক্লুসিভ ডিভাইসটি ১ লাখ ৪৯ হাজার ৯৯৯ টাকা দিয়ে প্রি-অর্ডার করতে পারবেন। এমনিতে ডিভাইসটির বাজারমূল্য ১ লাখ ৮৯ হাজার ৯৯৯ টাকা। প্রি-অর্ডারের ক্ষেত্রে ক্রেতারা ৪০ হাজার টাকা ক্যাশব্যাক পাবেন। ডিভাইসটি ক্রয়ের সময় ১০ হাজার ৫০০ টাকা দিয়ে ক্রেতারা চাইলে ওয়ান-টাইম স্ক্রিন রিপ্লেসমেন্ট সুবিধা নিতে পারেন। স্ক্রিন রিপ্লেসমেন্টের বাজারমূল্য ৮০ হাজার ৫০০ টাকা। এই অফারের আওতায়, ক্রেতারা ৭০ হাজার টাকা সাশ্রয় করতে পারবেন।  স্ক্রিন রিপ্লেসমেন্ট অফারটি ক্রেতারা স্মার্ট ডিভাইসটি ক্রয়ের ১ বছরের মধ্যে নিতে পারবেন। ক্রয়ের ক্ষেত্রে, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ও ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেডের মাধ্যম ক্রেতারা ২৪ মাস পর্যন্ত ০% ইএমআই সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন।  

প্রি-অর্ডারের জন্য যোগাযোগ করুন: www.preorderzflip.com