Opu Hasnat

আজ ৭ এপ্রিল মঙ্গলবার ২০২০,

মহান পিতার শুভ জন্মদিনে শ্রদ্ধাঞ্জলি // কামাল বারি শিল্প ও সাহিত্য

মহান পিতার শুভ জন্মদিনে শ্রদ্ধাঞ্জলি // কামাল বারি

মুজিব একটি জাতির পতাকা  

মুজিব একটি জাতির পতাকা
ব-দ্বীপ সমৃদ্ধ মানচিত্রের ব্যাকুলতা 
মুজিব মানে জয়বাংলা পুষ্ট স্লোগান 
রক্ত-ঋণে অর্জিত স্বাধীনতা 
.
মুক্তিযুদ্ধ স্বাধীন বাংলা
বীর বাঙালির আত্মার সুর
বাংলাদেশের প্রাণে প্রান্তরে 
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর
.
বাংলাদেশের শাশ্বত সবুজ 
চুমে যায় যেই মুখ 
বাঙালি-পুত্র গর্বিত মুজিব 
চিরস্পন্দিত বুক। 
*********

বাংলাদেশ তুমি

তুমি স্বাধীন ভাষা—; 
তুমি স্বাধীন কবিতা—; 
তুমি স্বাধীন সঙ্গীত—; 
তুমি স্বাধীন চিত্রাবলী—; 
তুমি স্বাধীন পতাকা—;
তুমি স্বাধীন বাঙালি—;
পিতা তুমি।  
তুমিই স্বাধীন স্বদেশভূমি; 
বাংলাদেশ তুমি। 
রক্তে রঙিন—
সবুজ জন্মভূমি।
********

তুমিই স্বাধীন স্বদেশ বাংলাদেশ 

তোমার হৃদয় সুফলা মাটির বাংলাদেশ;
তোমার স্বাপ্নিক ভুবন জোড়া মানুষের মুখ;
তোমার দুচোখ জুড়ে মুক্তির দ্যুতি;
কিংবদন্তি নেতা তুমি এই বাংলার;—বীর বাঙালি তুমি; 
তুমি বাঙালি জাতির পিতা;
এভারেস্ট ছাড়িয়ে উঠে গেছে তোমার অনন্য তর্জনী;
তুমি বাংলার বেদনাত্মক মহাকাব্যের মহানায়ক;
অমরতা তোমার শিরেই যথার্থ শোভাময়;
পিতা, তুমিই স্বাধীন স্বদেশ বাংলাদেশ।
*******************

মহত্তম পিতা 

আজ বসন্তের আকাশে নীলের ভাঁজে ভাঁজে 
আমি হাজার রঙের কারুকার্য দেখেছি;—
দেখেছি বিকেলের মৃদু বাতাসে আলোর বর্ষণ...
আমি জাগ্রত বাংলাদেশ দেখেছি;
.
আজ রাতে প্রদীপ্ত প্রচ্ছদে 
আমি অনন্য নক্ষত্রে খচিত মহাকাশ দেখেছি;—
দেখেছি, মহত্তম পিতার শতবর্ষের প্রতিকৃতি থেকে—
চিরকালের পলিশোভিত হৃদয় থেকে— 
দিকে দিকে জেগে আছে বীর বাঙালি—
বুকটান— উচ্চশির...।
***********

অষ্টপ্রহর অর্ঘ্য ঢালি

আমি অষ্টপ্রহর অর্ঘ্য ঢালি তোমার পায়ে; 
কেউ দেখে না আড়াল থেকে কুহু ডাকা; 
দেখলে পরে ব্যাঘাত ঘটে— 
সেই ভয়েতে শব্দবিহীন ডাকাডাকি; 
আমি তো অষ্টপ্রহর তোমার সাথেই মেতে থাকি;
তোমার সাথে স্বপ্ন গড়ি—
তোমার মতো স্বপ্নে উড়ি— স্বপ্নে উড়ি;
তোমার মতোই দারুণ মিশি গণমানুষের হৃদয়ভূমে;
.
আমি অষ্টপ্রহর শুনি তোমার বজ্র কণ্ঠের হাঁক;
আমি তো অষ্টপ্রহর শুনি তোমার ডাক।  
******************

তোমার ফল্গুধারার হৃদয়খানি 

পিতা হারানোর চোখের জল মিশে আছে
বাংলার হাজার নদীর জলে;
প্রতিটি শোকার্ত প্রাণের বিলাপধ্বনি
এখনো ভেসে আসে কানে;
সতেজ ফুলগুলো সব সেই-যে মৌন হয়ে আছে!
নীল আকাশে গোধূলির লালে মিশে আছে
পিতার পবিত্র রক্তের ধারা!
সেই-যে অগণিত শিশুমনে ছড়িয়ে গেছে
তাজা রক্তের রেখায় বিভীষিকা!
.
হায়! আজও থামেনি নির্মমতার রক্তের নেশা!
আজও রক্তের নকশায় ভেসে ওঠে 
সেই হায়েনার হাসিমুখ!
হেসে ওঠে নপুংসক কুলাঙ্গার!
আজও দুর্বৃত্তের নষ্ট চাহনি চোখ রাঙায়!
.
হায়! কোথাও কোনোদিন নষ্ট মুখ ভ্রষ্ট পোশাক
চাইনি তো আমরা কেউ!
তবে কেন ভাগাড় পথের ফাটল ফুঁড়ে
ভেলকি দেখায় কিম্ভুত প্রেত!
.
পিতা, তুমি দিয়েছো স্বাধীন পতাকা
তুমি দিয়েছো স্বাধীন ভূমি
দিয়েছো তোমার ফল্গুধারার হৃদয়খানি
তোমার বীর বাঙালি জেগে আছে, পিতা
জেগে আছে অতন্দ্র প্রেমী।
***************

অশেষ স্বজন তুমি এই বাংলার 

...বন্ধু, তোমার প্রয়োজন ফুরায় না;
তোমার মৃত্যু দেখিনি কখনও আমি;
তোমার মৃত্যু হয় না;
তোমার মৃত্যু হবে না;
অমর তুমি, বন্ধু। 
.
...বন্ধু, এই যে স্বাধীন স্বদেশ—  
এই যে স্বাধীন পতাকা—
এই যে স্বাধীন মানচিত্র—
এই যে স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ—
তোমার জাগ্রত সত্তার সাথে মিশে আছে;
তোমার মুক্তির গান অমর হ'য়ে আছে স্বদেশ বিদেশ বিশ্বে...
.
বন্ধু তুমি— পিতা তুমি— অশেষ স্বজন তুমি এই বাংলার।
****************

এ কলম শতমুখ  

আমি জীবন্ত বীরগাথা রচনা করতে চাই...
চতুর নপুংসক মুখগুলো এসে পণ্ড করে দেয়
আমার এ অনন্য ঘোর;
প্রকৃত বীরের হৃৎপিণ্ডে বহমান রক্তরসের ঊর্মিমালা
স্রোতের উন্মাদনা আমি লিখতে চাই...
পাপবিদ্ধ পাষণ্ডেরা এগিয়ে আসে কর্কশ রোলে!
মহামতি মুজিবের বীরত্ব-শাণিত আমার কলম
কীটদষ্ট কোনও ফুল কিংবা নির্বীর্যের প্রশংসায়
হবে না মুখর;
সময়ের সবুজ সন্তানের প্রতীক্ষায় জাগরুক
আমার এ কলম শতমুখ।