Opu Hasnat

আজ ৭ এপ্রিল মঙ্গলবার ২০২০,

মাটিরাঙ্গার ঘটনায় বিজিবির মামলা, নিহত ৪ জনও আসামি খাগড়াছড়ি

মাটিরাঙ্গার ঘটনায় বিজিবির মামলা, নিহত ৪ জনও আসামি

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা মাটিরাঙ্গার ঘটনায় বিজিবি-গ্রামবাসী সংঘর্ষের ঘটনায় নিহত চারজনসহ ১৯ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেছে বিজিবি। বৃহস্পতিবার (৫ মার্চ) সকালে ৪০ বিজিবির হাবিলদার ইসহাক আলী মাটিরাঙ্গা থানায় মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় অজ্ঞাত আরও ৬০/৭০ জনকে আসামি করা হয়েছে। এ ঘটনায় এখনো এলাকার পরিস্থিতি থমথমে। অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

মাটিরাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: শামছূদ্দিন ভূঁইয়া বলেন, মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তবে এ ঘটনায় গ্রাম বাসীর পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ দায়ের করা হয়নি বলেও জানান তিনি। বিজিবির দায়েরকৃত মামলায় সরকারি কাজে বাধা, অস্ত্র ছিনতাই, গুলি, হত্যা ও হত্যাচেষ্টার অপরাধের অভিযোগ আনা হয়েছে। মামলায় নিহত চার গ্রামবাসীকেও আসামি করা হয়েছে। মাটিরাঙ্গা থানার মামলা নং-২, তারিখ- ০৫/০৩/২০২০ খ্রি.। ধারা ১৪৩/১৪৭/১৪৮/ ১৪৯ /৩৫২/৩৫৩/১৮৬/৩৩২/৩৩৩/৩০২ /৩০৭। মামলার এজাহারে ঘটনার দিন, মঙলবার(৩রা মার্চ) বেলা পৌনে ১২ টার দিকে বেআইনী জনতা সংঘবদ্ধ হয়ে অস্ত্রস্বস্ত্রে সজ্জিত হয়ে পরিকল্পিত বাবে সরকারি কর্তব্য কাজে বাঁধা প্রদান, আঘাত, গুরতর জখম, হত্যা ও হত্যা চেষ্ঠার অভিযোগ আনা হয়।

এদিকে শুরু থেকেই পাঁচজন হত্যার ঘটনায় হাবিলদার ইসহাককে দায়ী করে আসছে স্থানীয়রা। তারা বলছেন, ইসহাক নিজেই বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যসহ স্থানীয়দের গুলি করেছে। এখন বিজিবির মামলার কারণে নিহতদের পরিবার ও স্থানীয় বাসিন্দারা মামলায় হয়রানির আশঙ্কা করছেন। তারা ঘটনায় জড়িতদের শাস্তির দাবি জানান।

খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, যেকোনো পক্ষ মামলা করতে পারে। আমরা তদন্ত কমিটি করেছি। কমিটি কীভাবে এ ঘটনা ঘটেছে, নিহতরা কোন ধরনের অস্ত্রের গুলিতে মারা গেছেন, কারা জড়িত সব তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করে তদন্ত প্রতিবেদন দেবে। তার ওপর ভিত্তি করে আমরা পরবর্তী ব্যবস্থা নেবো।

এদিকে খাগড়াছড়িতে সফররত পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেছেন, মাটিরাঙ্গায় সংঘঠিত ঘটনায় যে পক্ষই মামলা করুক না কেন সঠিক তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের গ্রেফতার ও দায়ীদের বিচার করা হবে। এছাড়া ক্ষতিগ্রস্ত পক্ষও চাইলে মামলা করতে পারেন। খাগড়াছড়িতে পুলিশ অফিসার্স মেসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আইজিপি এসব কথা বলেন।

ঘটনার বিবরনে জানা যায়, খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গায় নিজের বাগানের গাছ কাটার মতো তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিজিবি সদস্য ও গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষে বিজিবির অস্ত্র ছিনতাই ও বিজিবির সদস্য শাওন খান নিহতের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ঘটনার দুই দিন পর বৃহস্পিতবার (৫ মার্চ) দুপুরের দিকে ৪০ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন- বিজিবির হাবিলদার ইসহাক বাদি হয়ে ১৯ জনের নামোল্লেখ করে ৬০/৭০ জন অজ্ঞাত ব্যাক্তির নামে মামলা দায়ের করেছেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মাটিরাঙা থানার ওসি (তদন্ত) মো: শাহনুর আলম জানান, বিজিবির গুলিতে নিহত শাহেদ মিয়া প্রকাশ মুছা মিয়া, আকবর আলী, আহাম্মদ আলী, মো: মফিজ মিয়া ছাড়াও স্থানীয় মৃত মফিজ মিয়ার ছেলে হানিফ মিয়া এবং মৃত শহীদ উল্লাহর ছেলে মো: রফিকুল ইসলামকে অন্যান্যের মধ্যে আসামি করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার (৩ মার্চ) নিজের বাগানের গাছ কাটাকে কেন্দ্র করে মাটিরাঙার গাজিনগরে বিজিবি ও গ্রামবাসীর মধ্যকার সংঘর্ষে বিজিবি সদস্যরা গুলি করলে ঘটনাস্থলেই মারা যায় সাহাব মিয়া ও তার ছেলে মো: আকবর আলী। মাটিরাঙ্গা উপজেলার গাজীনগর এলাকায় গাছ পরিবহনে বাধা দেওয়াকে কেন্দ্র করে বিজিবি-গ্রামবাসী সংঘর্ষ ঘটে। এতে এক বিজিবি সদস্য (সিপাহী শাওন) ও চার গ্রামবাসী নিহত হন। এরমধ্যে তিনজন একই পরিবারের সদস্য।