Opu Hasnat

আজ ৯ জুলাই বৃহস্পতিবার ২০২০,

স্কাউট ও রোভারদের কলকাকলীতে ভরে উঠছে ২য় জাতীয় কমিউনিটি বেইজড স্কাউট ক্যাম্প সংগঠন

স্কাউট ও রোভারদের কলকাকলীতে ভরে উঠছে ২য় জাতীয় কমিউনিটি বেইজড স্কাউট ক্যাম্প

‘উন্নয়নে এগিয়ে’ এই থিমকে সামনে রেখে বাংলাদেশ স্কাউটস এর আয়োজনে ১৭-২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ কক্সবাজার টেকনাফ উপজেলার ৪ নং সাবরাং ইউনিয়নের সাবরাং ট্যুরিজম পার্কে সামুদ্রিক পরিবেশে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ২য় জাতীয় কমিউনিটি বেইজড স্কাউট ক্যাম্প।

জাতীয় কমিউনিটি বেইজড স্কাউট ক্যাম্প হচ্ছে মুক্ত দলের স্কাউট ও রোভার স্কাউটদের বৃহত্তম মিলনমেলা। সময়ে সময়ে বাংলাদেশ স্কাউটস এই মিলনমেলার আয়োজন করে থাকে। গত ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখ সন্ধ্যায় ক্যাম্পের উদ্বোধন করেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী ডা. দীপু মনি। এই ক্যাম্পের ক্যাম্প চীফ হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন ড. মোঃ মোজাম্মেল হক খান, প্রধান জাতীয় কমিশনার, বাংলাদেশ স্কাউটস ও মাননীয় কমিশনার, দুর্নীতি দমন কমিশন। 

সমুদ্র তীরের নৈসর্গিক সৌন্দর্যের মাঝে অজানা পরিবেশে সারা বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল, যুক্তরাজ্য থেকে অগত স্কাউট ও রোভার স্কাউটদের জন্য এবারের ২য় জাতীয় কমিউনিটি বেইজড ক্যাম্পকে আকর্ষণীয়, উপভোগ্য, আনন্দদায়ক ও স্মরণীয় করে তোলার লক্ষ্যে শিক্ষণীয়, আনন্দদায়ক, বৈচিত্র্যময় ও উদ্দীপনামূলক প্রোগ্রাম রাখা হয়েছে। এছাড়াও ক্যাম্পের আনন্দদায়ক ও অ্যাডভেঞ্চরমূলক বিভিন্ন ইভেন্টে অংশগ্রহণের মাধ্যমে প্রকৃতির সান্নিধ্যে এসে হাতে-কলমে শেখার ও উপভোগ করার সুযোগ লাভ করছে স্কাউট ও রোভার স্কাউটরা। প্রোগ্রাম গুলোর নাম দেয়া হয়েছে মিশন।

১৯ ফেব্রুয়ারির মিশন ছিল মিশন-১১ অপারেশন সেন্টমার্টিন ও মিশন-৫ হাইকিং ও স্কাউট স্কিল। ২য় জাতীয় কমিউনিটি বেইজড ক্যাম্পের অন্যতম প্রধান আকর্ষণ অপারেশন সেইন্ট মার্টিনস, মিশন-৬ সেইভ দ্যা কোরাল । এই মিশনে অংশগ্রহণের মাধ্যমে স্কাউট ও রোভার স্কাউটরা নাফ নদীর মাঝে যাত্রার মাধ্যমে দেশের বিশ্বের বৃহত্তম প্রবাল দ্বীপ সেইন্টমার্টিন পরিদর্শনের সুযোগ পায়। রোভার স্কাউটরা বুধবার এই মিশনে অংশগ্রহণ করেছে। যাত্রাকালীন রোভার স্কাউটরা প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগের পাশাপাশি ২য় জাতীয় কমিউনিটি বেইজড ক্যাম্পের অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজ এ ইউনিট ভিত্তিক ছবি আপলোডের সুযোগ পেয়েছে। 

হাইকিং স্কাউটিংয়ের একটি অন্যতম রোমাঞ্চকর চ্যালেঞ্জ।  উপস্থিত বুদ্ধি, কৌশল ও সাহসের সাথে অজানার আজ এই মিশন অতিক্রম করেছে স্কাউটরা। দিনের অন্যতম কার্যক্রম দুপুর ২.৩০ মিনিটে ছিল বিচ ফান, এতে অংশগ্রহণ করে স্কাউটরা আনন্দ-উল্লাসে মেতে উঠে, অধিকাংশ স্কাউটের জন্যই এটি ছিলো সমুদ্রের কাছে যাওয়া, প্রাণভরে সমুদ্রের বিশালতায় জীবনকে উপভোগ করা, যা শিক্ষণীয় বটে। শরীর ও মন কে সুস্থ রাখার অন্যতম মাধ্যম খেলাধুলা এটি। শারীরিক মানসিক উন্নতি এবং মনকে প্রফুল্ল রাখার জন্য খেলাধুলার বিকল্প নেই। এই মিশনে স্কাউটরা ইউনিট ভিত্তিক খেলাধূলার মাধ্যমে বন্ধুত্বপূর্ণ প্রতিযোগিতা গড়ে তোলে। সেন্টমার্টিনে অন্যতম আরেকটি কার্যক্রম ছিল সেভ দ্যা কোরাল। বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলে কক্সবাজার, সেন্টমার্টিন সহ আরও বেশ কিছু জায়গা পর্যটকদের জন্য জনসমাগম সবচেয়ে বেশি।  প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমির এই জায়গাগুলো বিশেষ করে বিরল প্রজাতির কোরাল, প্রাচীর, গাছ, শামুক, সামুদ্রিক মাছ ও প্রাণীরা প্রায়শ ক্ষতির শিকার হয়ে থাকে শুধুমাত্র পর্যটকদের অসচেতনতার অভাবে। তাই পানির নীচে বসবাসকারী মাছ ও জীব বৈচিত্র রক্ষায় কমিউনিটি বেইজড ক্যাম্পে রোভার স্কাউট ও স্কাউটরা জনসচেতনতা তৈরীতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে। 

উল্লেখ্য, এই ক্যাম্পে সারাদেশ থেকে ২২০টি মুক্ত দলের সদস্য, ভারত স্কাউটস আ্যন্ড গাইডস’র ২৪ জন, নেপাল স্কাউটস’র ২৬ জন এবং দ্যা স্কাউট এসোসিয়েশন (যুক্তরাজ্য) থেকে ১ জনসহ মোট ৫১ জন বিদেশী অংশগ্রহণকারী, ৩৬৮ জন কর্মকর্তা, ২৮১ জন স্বেচ্ছাসেবক রোভার স্কাউট এবং সহায়তাকারীসহ ২৮০০ জন অংশগ্রহণ করছেন। 

এই বিভাগের অন্যান্য খবর