Opu Hasnat

আজ ২ এপ্রিল বৃহস্পতিবার ২০২০,

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ঘাটে আটকা সহস্রাধিক যানবাহন রাজবাড়ী

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ঘাটে আটকা সহস্রাধিক যানবাহন

বেশ কিছুদিন স্বাভাবিক থাকার পর আবারো ঘন কুয়াশার কবলে পড়েছে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের প্রবেশদ্বার দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুট। এতে শনিবার দিবাগত মধ্যরাত থেকে রবিবার বেলা ১১ টা পর্যন্ত দীর্ঘ সাড়ে ৮ ঘন্টা বন্ধ থাকার পর এ রুটে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হয়। 

দীর্ঘ সময় ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় দৌলতদিয়া ও পাটুরিয়ার উভয় ঘাটে আটকা পড়ে সহস্রাধিক যানবাহন। দুর্ভোগের শিকার হন যাত্রী ও পরিবহন সংশ্লিষ্টরা। 

সরেজমিনে রবিবার বেলা সাড়ে ৫ সময় দেখা যায়, দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের গোয়ালন্দ ফায়ার সার্ভিস স্টেশন পর্যন্ত অন্তত ৪ কিলোমিটার জুড়ে শত শত যানবাহন আটকে থাকতে দেখা যায়। পাটুরিয়া প্রান্তেও একইভাবে যানবাহন আটকে থাকার কথা জানায় কর্তৃপক্ষ।

বিআইডব্লিউটিসি’র দৌলতদিয়া অফিস সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন স্বাভাবিক থাকার পর শনিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে পদ্মা-যমুনা নদীর দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুট এলাকায় হঠাৎ করে কুয়াশার ঘনত্ব বেড়ে যায়। এতে দৃষ্টি সীমা শূণ্যে নেমে এসে নৌযান চালানো ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে নৌ দূর্ঘটনা এড়াতে এ রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেয় ফেরি কর্তৃপক্ষ। এতে করে শতশত দুরপাল্লার নৈশ কোচসহ নদী পারের অপেক্ষায় সিরিয়ালে আটকা পড়ে প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস, পন্যবাহি ট্রাকসহ বিভিন্ন ধরনের যানবাহন। এতে করে চরম ভোগান্তিতে পড়েন যাত্রী ও চালকেরা।

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মোঃ আবু আব্দুল্লাহ রণি জানান, কুয়াশায় দীর্ঘ সাড়ে ৮ ঘন্টা ফেরি চলাচল বন্ধ থাকার পর পুনরায় ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। যাত্রীদের দুর্ভোগ কমাতে যাত্রীবাহী যানবাহনগুলোকে অগ্রাধিকার দিয়ে নদী পার করা হচ্ছে। স্বাভাবিকভাবে ফেরি চলাচল করলে নদী পারের অপেক্ষায় আটকে থাকা যানবাহনগুলোকে রাতের মধ্যেই পার করা যাবে বলে আশা করা যায়। বর্তমানে এ রুটে ছোট-বড় ১৫ টি ফেরি চলাচল করছে। শাহ আলী নামের একটি রোরো ফেরিকে সংস্কারের জন্য ৩ দিন আগে নারায়ণগঞ্জ ডকইয়ার্ডে পাঠানো হয়েছে বলে তিনি জানান।

এই বিভাগের অন্যান্য খবর