Opu Hasnat

আজ ২৫ ফেব্রুয়ারী মঙ্গলবার ২০২০,

রাজবাড়ীর এসপি’র মহতী উদ্যোগ সিসি ক্যামেরার সুফলতা রাজবাড়ী

রাজবাড়ীর এসপি’র মহতী উদ্যোগ সিসি ক্যামেরার সুফলতা

রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ঘাটে স্থাপিত সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে মাত্র এক ঘন্টায় খোয়া যাওয়া মালামাল উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার সন্ধ্যায় মালামাল হাতে পেয়ে খুশিতে আত্মহারা হন মনোয়ারা বেগম (৫০)। মনোয়ারা বেগম ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার পীরেরচর গ্রামের মৃত আওয়াল ফকিরের স্ত্রী।

এর আগে গত সোমবার সকালে রাজবাড়ী শহরের কোর্ট চত্তরে প্রবেশ পথে নগদ ১০ হাজার ৩ শত টাকা, ড্রাইভিং লাইসেন্স, পরিচয়পত্র, চাকুরীর পরিচয়পত্র ও  গুরুত্বপূর্র্ন কাগজপত্র খোয়া যাওয়ার সাথে সাথে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ সিসি ক্যামেরার ফুটেজ পর্যালোচনা করে মানিব্যাগসহ সকল কাগজপত্র উদ্ধার করে। পরে রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান পিপিএম বার তার কার্যালয়ে মানিব্যাগের মালিক বিদ্যুৎ চন্দ্র মন্ডলের হাতে মানিব্যাগটি হস্তান্তর করেন।

জানাগেছে, মনোয়ারা বেগম শনিবার বিকেলে ফরিদপুর থেকে ঢাকায় যাচ্ছিলেন। তার মালামাল বহনের জন্য দৌলতদিয়া ঘাটে বাস থেকে নেমে একজন কুলি ঠিক করেন। কুলির মাথায় মালামাল দেয়ার পর তিনি তাকে হারিয়ে ফেলেন। বিষয়টি তিনি দ্রুত দৌলতদিয়া পুলিশ বক্সে কর্তব্যরত পুলিশকে জানালে সিসি ক্যামেরার ফুটেজ পরীক্ষা করেন। দ্রুত সময়ের মধ্যে মোস্তফা নামের ওই কুলিকে সনাক্ত করে পুলিশ। 

মোস্তফার খোঁজে পুলিশ লঞ্চঘাটে তল্লাশি করে। এক পর্যায়ে মোস্তফাকে ওই মালামালসহ আটক করে পুলিশ। পরে খোয়া যাওয়া মালামাল রাজবাড়ীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ ফজলুল করিম, গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি আশিকুর রহমান মালিককে বুঝিয়ে দেন। 

রাজবাড়ীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ সালাহউদ্দিন জানান, কম্বল, মোবাইল ফোন, ব্যাবহৃত কাপরসহ অন্যান্য মালামাল নিয়ে লঞ্চঘাটের পাশে চলে যায় ওই যুবক। পুলিশ বিষয়টি জানতে পেরে সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে মাত্র ১ ঘন্টার মধ্যে মালিককে তার মালামাল বুঝিয়ে দেয়া হয়।

তিনি আরো জানান, রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান পিপিএম মহোদয়ের উদ্যোগে গত ১৫ জানুয়ারী দৌলতদিয়া ঘাটের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হাবিবুর রহমান সিসি ক্যামেরার উদ্বোধন করেন। ইতিমধ্যে এই উদ্যোগের সুফল পেতে শুরু করেছে দৌলতদিয়া ঘাট দিয়ে চলাচল কারী মানুষ।