Opu Hasnat

আজ ১৪ জুলাই মঙ্গলবার ২০২০,

দামুড়হুদায় ৫৩ বীর মুক্তিযোদ্ধার নামে সড়ক, স্মৃতি স্তম্ভ মুক্তিবার্তাচুয়াডাঙ্গা

দামুড়হুদায় ৫৩ বীর মুক্তিযোদ্ধার নামে সড়ক, স্মৃতি স্তম্ভ

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলা পারকৃষ্ণপুর-মদনা এই ইউনিয়নে ঢুকতেই চোখে পড়বে মুক্তিযোদ্ধা শাহার আলী সড়কের নামফলক। খানিক দূর এগোলেই দেখা যাবে মুক্তিযোদ্ধা তমছের আলী সড়কের নামফলক। এই ভাবে মুক্তিযোদ্ধা বিল্লাল হোসেন, তমছের আলী, আজিম উদ্দীন, রেজাউল করিম, নুর হাকিম, আঃ ওহাব, আলতাফ উদ্দীন, খাঁজা আবুল হাসনাথ, শাহার আলীসহ ইউনিয়নের সকল মুক্তিযোদ্ধা ৫৩ জনের ইউনিয়নের বিভিন্ন সড়কের নামকরণ করা হয়েছে। শুধু তাই নয় ইউনিয়ন পরিষদের অর্থায়নে ইউপি চেয়ারম্যান বাংলাদেশ ইউপি চেয়ারম্যান এ্যাসিসিয়েশন এর কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ও দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সম্পাদক তিন বারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান এস এম জাকারিয়া আলমের প্রচেষ্টায় ইউনিয়নের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া মাথাভাঙ্গা নদীর উপর নির্মিত সেতুর নামকরণ করা হয়েছে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম মির্জা সুলতান রাজা সেতু ও পরিষদ ভবনে মির্জা সুলতান রাজা মঞ্চ গড়ে তোলা হয়েছে। ৫ শহীদ কুড়ন মন্ডল, ইছাহাক আলি, দাউদ আলী, বাহার আলী ও আঃ মান্নানের নামে সীমান্তবর্তী হৈবৎতপুর গ্রামে গড়েতোলা হয়েছে স্মৃতি স্তম্ভ ও মুক্তিযোদ্ধার স্মৃতি রক্ষানাগার ভবন। এতে বেজায় খুঁশি বীর মুক্তিযোদ্ধারা। চুয়াডাঙ্গা জেলাসহ সারাদেশে মুক্তিযোদ্ধাদের নামে সড়কসহ প্রতিষ্ঠানের  নামকরণ করার দাবী দামুড়হুদা উপজেলার মুক্তিযোদ্ধাদের।

পারকৃষ্ণপুর-মদনা ইউপি চেয়ারম্যান এস এম জাকারিয়া আলম জানান, মহান মুক্তিযুদ্ধে গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকা রাখার স্বীকৃতিস্বরূপ উপজেলার তার ইউনিয়নের ৫৩টি সড়কে একটি সেতুর নামকরণ করা হয়েছে। ১৯৭১ সালে ১২ সেপ্টম্বর  সম্মুখ সমরে পাঁচজন মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হন। তাঁদের স্মরণীয় করে রাখতে এবং মুক্তিযোদ্ধার অবদানের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে ভারত সীমান্তবর্তী হৈবৎতপুর গ্রামে ৫ শহীদ মুক্তিযোদ্ধার নামে গড়েতোলা হয়েছে স্মৃতি স্তম্ভ ও মুক্তিযোদ্ধার স্মৃতি রক্ষানাগার দ্বিতল ভবন গড়ে তোলা হচ্ছে। আগামী প্রজন্ম এই সড়কের নামের সূত্র ধরেই মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযোদ্ধাদের জানতে পারবে।এছাড়াও ইউনিয়নের ১০টি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ৩টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মান করে দেওয়া হয়েছে।আগামিতে আরো কিছু করার চিন্তা ভাবনা রয়েছে বলে তিনি জানান।

বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী কাওছার আলী বলেন, পারকৃষ্ণপুর-মদনা ইউনিয়নের চেয়ারম্যন সকল মুক্তিযোদ্ধাদের নামে সড়কের নামকরণসহ যা কিছু করেছে তাতে আমাদের অনেক সম্মান দেখানো হয়েছে তার জন্য চেয়ারম্যানকে ধন্যবাদ জানায়। আমরা মনে করি চুয়াডাঙ্গা জেলাসহ সারাদেশে মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতি ধরে রাখতে আরো অনেক কিছুই করার প্রয়োজন।

দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও প্রশাসক, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ উপজেলা কমান্ডার কাউন্সিল এস.এম মুনিম লিংকন জানান পারকৃষ্ণপুর-মদনা ইউপি চেয়ারম্যন এস এম জাকারিয়া আলমের কাজটি প্রশংসনিয় আমি উপজেলার সকল ইউপি চেয়ারম্যনদের সাথে কথা বলেছি এমন কাজে উদ্দোগ নিলে তা বাস্তবায়ন করা হবে। এছাড়াও দামুড়হুদার পাটাচোরা গ্রামে দুই জন মুক্তিযোদ্ধা আছে ঐ গ্রামে তাদের নামে দুটি সড়কের নামকরণ করা হবে।