Opu Hasnat

আজ ১২ আগস্ট বুধবার ২০২০,

ব্রেকিং নিউজ

পরমাণু চুক্তি থেকে সরে আসার ঘোষণা ইরানের আন্তর্জাতিক

পরমাণু চুক্তি থেকে সরে আসার ঘোষণা ইরানের

মার্কিন হামলায় ইরানের কুদস ফোর্সের প্রধান জেনারেল কাসেম সোলাইমানি নিহত হওয়ার জেরে পরমাণু চুক্তি না মানার ঘোষণা দিলেন ইরান। ২০১৫ সালে যে পরমাণু চুক্তি করা হয়েছিল, তা আর মানবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে তারা।

রবিবার (৫ জানুয়ারি) দেশটির রাজধানী তেহরানে মন্ত্রীসভার বৈঠকে সিদ্ধান্তের পর এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, এখন থেকে পরমাণু বিষয়ক আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষকদের সহযোগিতা করা হলেও চুক্তির শর্তাবলি মানবে না দেশটি। এছাড়াও নতুন সেন্ট্রিফিউজ স্থাপন করে পরমাণু শক্তি বৃদ্ধি, উন্নয়ন ও গবেষণায় কোনও সীমাবদ্ধতা রাখবে না তারা। 

বিশ্বের ৬ পরাশক্তির সাথে ২০১৫ সালে পরমানু চুক্তি সম্পন্ন করে ইরান। সেখানে পরমাণু কার্যক্রম সীমিত রাখতে সম্মত হয়েছিল দেশটি। ইরান অভিযোগ করে আসছে যুক্তরাষ্ট্র একাধিকবার এই চুক্তি ভঙ্গ করেছে। তবে ২০১৯ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কোনও নিয়মের তোয়াক্কা না করে চুক্তি থেকে বেরিয়ে যায়। 

বৃহস্পতিবার (২ জানুয়ারি) রাতে বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে মার্কিন হামলায় ইরানের কুদস ফোর্সের প্রধান জেনারেল কাসেম সোলাইমানি নিহত হন। মার্কিন প্রতিরক্ষা অফিস পেন্টাগন নিশ্চিত করেছে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্দেশে সোলাইমানিকে হত্যা করা হয়েছে।

এরই মধ্যে সোলেমানি হত্যায় ক্ষুব্ধ ইরানের জেনারেল গোলাম আলি আবু হামজাহ হরমুজ প্রণালীতে গুরুত্বপূর্ণ মার্কিন স্থাপনায় হামলার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। তার বাহিনী ডেস্ট্রয়ার ও যুদ্ধজাহাজসহ পারস্য উপসাগর ও ইজরায়েলের নিকটবর্তী প্রায় ৩৫টি মার্কিন স্থাপনার দিকে তাক করে আছে বলে জানান তিনি।

শনিবার (৪ জানুয়ারি) এক টুইট বার্তায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ইরানের ৫২টি স্থাপনা চিহ্নিত করেছে, যা অত্যন্ত উচ্চপর্যায়ের এবং ইরানের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। যদি তেহরান আক্রমণ করে তাহলে ওইসব স্থাপনা এবং ইরান নিজেও অত্যন্ত দ্রুত ও কঠিন আঘাতের শিকার হবে। যুক্তরাষ্ট্র আর কোনো হুমকি চায় না।