Opu Hasnat

আজ ১১ ডিসেম্বর বুধবার ২০১৯,

কালিয়ায় প্রেমে প্রতারিত হয়ে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা নারী ও শিশুনড়াইল

কালিয়ায় প্রেমে প্রতারিত হয়ে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

নড়াইরের কালিয়ায় প্রেমে প্রতারিত হয়ে স্কুলছাত্রী  হিরা খানম (১৭) আত্মহত্যা করেছে। হিরা নড়াগাতি থানার লোহারগাতি গ্রামের ফরিদ শেখের মেয়ে। 

এ ঘটনায় প্রেমিক পুলিশ কন্সটেবল মোঃ তুরান আলীর বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনার অপরাধে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। নিহতের পিতা মোঃ ফরিদ শেখ রবিবার (১ডিসেম্বর) রাতে কালিয়া উপজেলার নড়াগাতি থানায় এ মামলা দায়ের করেন। সে কলাবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ১০ম শেনীর ছাত্রী ছিল। প্রেমে প্রতারিত হয়েই গলায় ওড়না পেচিয়ে ফাঁস দিয়ে হিরা আত্মহত্যা করেছে বলে মৃত্যুর আগে একটি চিরকুটে লিখে গেছে। 

জানা যায়, হিরা খানম তার পাশের গ্রাম আইজপাড়ার মৃত রায়জুল হক শেখের ছেলে মোঃ তুরান আলী (২০) এর সাথে দীর্ঘ ২ বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলছিল। এক বছর আগে তুরান পুলিশে চাকরী পায়। চাকরী পাবার পর থেকে হিরার পরিবারের লোক তুরানের সাথে সম্পর্ক মেনে নিয়ে তাদের বিয়ে দিতে রাজি হয়। কিন্তু চাকরী পাবার পর থেকে তুরান হিরার সঙ্গে বিভিন্ন ভাবে প্রতারনা করতে থাকে। বিয়ে ও প্রেম বিষয়ক নানাবিধ প্রতারনা করার পর হীরা তার প্রেমিক তুরানের মা হোসনেয়ারা বেগমের কাছে প্রতিকার চায়। কিন্তু তার মা ছেলের প্রতারনার বিষয়টি আমলে না নিয়ে ওই স্কুলছাত্রী হিরাকে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ এবং নানাবিধ ভর্ৎসনা করে। এর পরেই সে ঘরে গিযে গলায় ওড়না পেচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। মৃত্যুর আগে হীরা একটি চিরকুটে লিখে যায় তার মৃত্যুর জন্য তার প্রেমিক তুরান শেখ দায়ি। তাকে যেন ক্ষমা করা না হয়। 

নিহত হিরা খানমের চাচা মোঃ আবুল হাচান বলেন, হিরার সঙ্গে তুরানের প্রেমের সম্পর্ক বাড়ির সবাই মেনে নিয়ে তাদের বিয়ে দিতে চেয়েছিল। কিন্তু তুরান কিছুদিন আগে কাউকে কিছু না বলে গোপনে বিয়ে করে এবং হিরাকে অস্বিকার করে। এ অপমান সইতে না পেরে হিরা আত্মহত্যা করে। 

এ বিষয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপ পুলিশ পরিদর্শক মোঃ কামরুজ্জামান বলেন, স্কুলছাত্রী হিরার আত্মহত্যার ঘটনায় তার পিতার অভিযোগের ভিত্তিতে আত্মহত্যায় প্ররোচনা প্রদানের অপরাধে মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং আসামীকে আটকের চেষ্টা চলছে।