Opu Hasnat

আজ ১২ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার ২০১৯,

ফরিদপুরে সাহিত্য সম্মেলন ও আলাওল সাহিত্য পুরস্কার প্রদান শিল্প ও সাহিত্যফরিদপুর

ফরিদপুরে সাহিত্য সম্মেলন ও আলাওল সাহিত্য পুরস্কার প্রদান

ফরিদপুর সাহিত্য সংস্কৃতি উন্নয়ন সংস্থার অয়োজনে দুই দিন ব্যাপি দ্বাদশ সাহিত্য সম্মেলন ও আলাওল সাহিত্য পুরস্কারের সমাপনি অনুষ্ঠান শনিবার রাতে কবি জসিমউদ্দীন হলে অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলির সদস্য ও স্থানীয় সরকার বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আালহাজ্ব ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন এমপি। 

ফরিদপুর সাহিত্য সংস্কৃতি উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আবুল ফয়েজ শাহনেওয়াজের সভাপতিত্বে সমাপনি অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার, পুলিশ সুপার মোঃ আলিমুজ্জামান। 

এ সাহিত্য সম্মেলনে দেশ্য বরেন্য ৬ কবি ও সহিত্যিককে আলাওল সাহিত্য পুরস্কার প্রদান করা হয়। তাঁরা হলেন আলতাফ হোসেন(কবিতা গ্রন্থ ২০০১), ওয়াসি আহমেদ (উপন্যাস-২০০১), সুকুমার বিশ্বাস (মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক গ্রন্থ ২০০১), আসাদ চৌধুরী (কবিতা গ্রন্থ-২০১২), রফিকুর রশীদ (ছোট গল্পগ্রন্থ-২০১২) ও হরিশংকর জলদাস (উপন্যাস-২০১২)। 

কবি আলাওল ছিলেন মধ্যযুগীয় বাংলা সাহিত্যের অন্যতম শ্রেষ্ঠ কবি। আনুমানিক ১৬০৭ খ্রিস্টাব্দে ফরিদপুর জেলার ফতেয়াবাদ পরগনার জালালপুর গ্রামে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা ছিলেন ফতেয়াবাদের অধিপতি মজলিস কুতুবের একজন অমাত্য। অভিজাত পরিবারের সন্তান হিসেবে আলাওল বাল্যকালে বাংলা, সংস্কৃত, আরবি ও ফারসি ভাষা শেখেন। যুদ্ধবিদ্যা ও সঙ্গীত বিষয়ে ও তাঁর জ্ঞান ছিল।

একবার পিতার সঙ্গে নৌকাযোগে চট্টগ্রাম যাওয়ার সময় পর্তুগিজ জলদস্যুদের দ্বারা তাঁরা আক্রান্ত হন। এতে তাঁর পিতা নিহত হন এবং আলাওল আহত ও বন্দি অবস্থায় আরাকানে (বার্মা) নীত হন। তখন তাঁর বয়স ছিল কম। আরাকানে তিনি একজন দেহরক্ষী হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন এবং পরে মহন্তের গৃহে নাটগীত ও  সঙ্গীত শিক্ষকের কাজ করেন।