Opu Hasnat

আজ ১১ ডিসেম্বর বুধবার ২০১৯,

সাতক্ষীরাতে গোয়েন্দাগিরি চলচ্চিত্রের বিশেষ প্রদর্শনী বিনোদন

সাতক্ষীরাতে গোয়েন্দাগিরি চলচ্চিত্রের বিশেষ প্রদর্শনী

২২ নভেম্বর সাতক্ষীরা শহরে প্রদর্শিত হলো পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘গোয়েন্দাগিরি’। সাতক্ষীরা শহরের শহীদ আবদুর রাজ্জাক পার্কে বিশেষ ব্যবস্থায় সন্ধ্যা সাতটায় শুরু হয় এই প্রদর্শনী। সাতক্ষীরার জেলা প্রশাসক এই বিশেষ প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন। প্রায় পাঁচশত দর্শক এই চলচ্চিত্রটি উপভোগ করেন।  চলচ্চিত্রটির নির্মাতা নাসিম সাহনিক সাতক্ষীরা শহরের এই বিশেষ প্রদর্শনীতে উপস্থিত থেকে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন। 

শিশু কিশোরদের উপযোগী এই চলচ্চিল্ফটি পরিবার নিয়ে দেখার মতো। চলচ্চিল্ফটির চিত্রনাট্য ও পরিচালনায় আছেন নির্মাতা নাসিম সাহনিক। মামুনুর ইসলাম প্রযোজিত চলচ্চিত্রটির পরিবেশনায় আছে আম্মাজান ফিল্মস। আর ডিজিটাল পার্টনার হিসেবে আছে ইমপ্রেস টেলিফিল্ম।

গত ২৬ জুলাই, ২০১৯ হলে শুভমুক্তি ঘটে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘গোয়েন্দাগিরি’র। এরপর গত ঈদুল আযহা ২০১৯ উপলক্ষ্যে চ্যানেল আইয়ে গোয়েন্দাগিরি চলচ্চিত্রের ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হয় অর্থাৎ গত ১২ আগস্ট, ২০১৯ ঈদের দিন সকাল ১০.১৫ মিনিটে গোয়েন্দাগিরি চলচ্চিত্রের ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হয়। চলচ্চিত্রটি বিষয় বস্তু এবং গল্প বলার ভিন্নতার কারণে দর্শকের কাছে বিশেষ প্রশংসিত হয়েছে। দর্শকরা বিশেষ করে শিশু কিশোর আর তরুণ প্রজন্ম চলচ্চিত্রটিকে পজিটিভলি নিয়েছে। চ্যানেল আইতে চলচ্চিত্রটি দেখে অনেকের কাছেই মনে হয়েছে ভিন্নধর্মী একটি  উদ্যোগ। এ ধরনের রুচিশীল এবং পরিবার নিয়ে দেখা যায় এমন চলচ্চিত্র আমাদের সমাজ পরিবারকে ভালো কিছু দিবে। ২২ নভেম্বর, ২০১৯ শুক্রবারে সাতক্ষীরার বিশেষ প্রদর্শনীতে এসেও দর্শকেরা চলচ্চিত্রটির কাহিনী এবং নির্মাণশৈলীর প্রশংসা করেন।

যেখানে অশ্লীল কনটেন্টের কারণে সামাজিক মূল্যবোধের অবক্ষয় ঘটেছে এবং ধর্ষণ - মাদক বেড়েছে মাত্রাতিরিক্ত আকারে সেই পরিস্থিতিতে গোয়েন্দাগিরির মতো সুস্থ ধারার চলচ্চিত্র দর্শককে দিয়েছে সুস্থ বিনোদন। তরুণ প্রজন্মকে এবং আমাদের সকলকেই অসুস্থ কনটেন্ট পরিহার করতে হবে এবং সুন্দর রুচিশীল সমাজ গড়ে তুলতে হবে। মানুষের মাঝে সামাজিক মূল্যবোধ গড়ে তোলার ক্ষেত্রে সুস্থ সংস্কৃতিই হোক অন্যতম হাতিয়ার। এজন্য সর্বস্তরে আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে, মানুষকে করতে হবে সচেতন- এ রকমই জানালেন সাতক্ষীরার সুধীজন।

গোয়েন্দাগিরির গল্পে দেখা যায়, একদল টিনএজ ছেলে-মেয়ে ছুটিতে বেড়াতে যাচ্ছে। তাদের এশটি বিশেষ পরিচয় হচ্ছে তারা স্বপ্ন দেখে যে ভবিষ্যতে বড় গোয়েন্দা হবে। তাদের কারও আইডল শার্লক হোমস, কারও ফেলুদা, কারও তিন গোয়েন্দা, কারও আবার জেমস বন্ড। যাই হোক তাদের এবারের অভিযানটা শুরু হয় যখন মিডিয়াতে এশটি পুরনো ভুতুড়ে বাড়ি নিয়ে হইচই পরে যায়। বনের মধ্যে অবস্থিত বাড়িটি নাকি অভিশপ্ত। অভিশপ্ত এই বাড়ির রহস্য উন্মোচনে ঝাঁপিয়ে পড়ে এই শখের গোয়েন্দারা। তাদের এই অভিযানে রহস্যের স্বাদ যেমন পাওয়া যাবে তেমনি পাওয়া যাবে টিনএজ খুনসুটি, টিনএজ রোমান্টিসিজম আরও কত কি!

চলচ্চিত্রটিতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন শম্পা হাসনাইন, কল্যাণ কোরাইয়া, মিম চৌধুরি, সীমান্ত আহমেদ, কচি খন্দকার, তারেক মাহমুদ, টুটুল চৌধুরি, শিখা খান, তানিয়া বৃষ্টি, ইশরাত চৈতি, প্রিন্স প্রমুখ।
 
নির্মাতা সূত্রে জানা গেছে, শীঘ্রই আরো কিছু জেলায় গোয়েন্দাগিরি চলচ্চিত্রের বিশেষ প্রদর্শনী হবে।