Opu Hasnat

আজ ১০ ডিসেম্বর মঙ্গলবার ২০১৯,

বিভিন্ন জেলায় বাস বন্ধ, যাত্রী ভোগান্তী চরমে সারাবাংলা

বিভিন্ন জেলায় বাস বন্ধ, যাত্রী ভোগান্তী চরমে

নতুন সড়ক পরিবহন আইন বাস্তবায়নের প্রতিবাদে তৃতীয় দিনের মত দেশের বিভিন্ন জেলায় বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে শ্রমিকরা।

এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন হাজার হাজার সাধারণ যাত্রী। তারা অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে নছিমন, করিমন ও ইজিবাইকে গন্তব্যে পৌঁছানোর চেষ্টা করছেন।

গত সোমবার সকাল থেকে শুরু হওয়া এই ধর্মঘট বুধবার তৃতীয় দিনের মত অব্যাহত রয়েছে। পরিবহন শ্রমিক নেতাদের দাবি- আইন সংশোধনের পর এটি বাস্তবায়ন করা হোক। এটা না করা পর্যন্ত তাদের এ ধর্মঘট অব্যাহত থাকবে।

মঙ্গলবার সকাল থেকে চট্টগ্রাম, সিলেট, সাতক্ষীরা, ঝালকাঠি, খুলনা, কুমিল্লা, চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন জেলায় কোনো বাস চলছে না।

এছাড়া ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা-সিলেট, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কেও বাস চলাচল বন্ধ রেখেছে পরিবহন শ্রমিকরা।

বুধবার সকাল থেকে নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড, সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল, কাঁচপুরসহ ঢাকা-সিলেট ও ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বিভিন্নস্থানে অবস্থান নিয়েছেন পরিবহন শ্রমিকরা। তারা সড়কে যানবাহন চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছেন।

সাতক্ষীরা থেকে খুলনা, যশোর, শ্যামনগর, আশাশুনিসহ সব রুটে বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়ায় হাজার হাজার যাত্রী দুর্ভোগে পড়েছেন।

সাতক্ষীরা জেলা বাস মিনিবাস মালিক সমিতির সাবেক সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদ জানান, নতুন সড়ক পরিবহন আইন বাস্তবায়নের প্রতিবাদে শ্রমিকরা বাস চালানো বন্ধ করে দিয়েছে। তারা চান, আগে এটি সংশোধন করা হোক। এরপর এটি বাস্তবায়ন করা হোক।

ঝালকাঠি সংবাদদাতা জানান, নতুন সড়ক পরিবহন আইন বাস্তবায়নের প্রতিবাদে ঝালকাঠির আট রুটে বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে পরিবহন শ্রমিকরা।

পরিবহন ধর্মঘটের কারনে স্থবির হয়ে গেছে গোটা কুমিল্লা। নগরীর শাসনগাছা, জাঙ্গালিয়া ও চকবাজার বাসস্ট্যান্ডে সহস্রাধিক যাত্রী অপেক্ষা করতে দেখা যায়। তবে কোথাও কোন যানবাহন চলাচলের খবর শোনা যায়নি।

নগরীর শাসনগাছা এলাকায় প্যাডেল ও ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা স্বল্পমাত্রায় যাত্রী আনা নেওয়া করলেও পরিবহন শ্রমিকদের অবরোধের কারণে এলাকায় কোন যানবাহন নেই।